মনোনয়ন প্রত্যাহারের একদিন আগে গ্রেফতার হলেন এরশাদ

December 12, 2013 0

শীর্ষবিন্দু নিউজ: জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদকে তার বারিধারার বাসা থেকে আটক করা হয়েছে। রাত সাড়ে ১১টার পর প্রেসিডেন্ট পার্কের বাসা থেকে তাকে নিয়ে গেছে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। এসময় র‌্যাব এবং পুলিশের পৃথক দল সেখানে উপস্থিত ছিল। এরশাদকে র‌্যাবের একটি গাড়িতে করে নিয়ে যাওয়া হয়।

তবে র‌্যাব দাবি করেছে, অসুস্থ বোধ করায় তাকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টার পর রাজধানীর বারিধারার প্রেসিডেন্ট পার্কের বাসা থেকে এরশাদকে আটক করা হয়েছে বলে জানান দলের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ।তফসিল ঘোষণার পর ৫ জানুয়ারির ভোটে অংশ নেয়ার জন্য ২ ডিসেম্বর জাতীয় পার্টির প্রার্থীরাও মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। এরশাদের পক্ষেও ঢাকা-১৭, লালমনিরহাট-১ ও রংপুর-৩ আসনের মনোনয়নপত্র জমা দেয়া হয়। কিন্তু এর পরদিনই এরশাদ এক সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা দেন, বিরোধী দল বিএনপিসহ সব দল না আসায় এবং পরিবেশ না থাকায় জাতীয় পার্টি দশম সংসদ নির্বাচনে অংশ নেবে না। নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেয়ার পর জাতীয় পার্টির মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদেরও পদত্যাগ করতে বলেন এরশাদ।

ইতোমধ্যেই জাতীয় পার্টি থেকে মনোনয়ন পাওয়া প্রার্থীরা তা প্রত্যাহারের আবেদন জানিয়েছেন। শুক্রবার ১৩ ডিসেম্বর মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন। এর আগের রাতেই এরশাদকে আটক করা হল বলে জাতীয় পার্টির নেতারা বলছেন। এদিকে নির্বাচনে না যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে রাখা জাতীয় পার্টির জন্য ৬০টি আসন রেখেই দশম সংসদ নির্বাচনের আসন বণ্টন চূড়ান্ত করেছে আওয়ামী লীগ।
এরশাদকে আটকের আগে বৃহস্পতিবার রাতে রওশন এরশাদের নেতৃত্বে জাতীয় পার্টির একটি প্রতিনিধিদল গণভবনে যায়, যা নিশ্চিত করেছেন প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের এক কর্মকর্তা। ওই কর্মকর্তা দেয়া তথ্য মতে, রওশন এরশাদের সঙ্গে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য আনিসুল ইসলাম মাহমুদ ও জিয়াউদ্দিন বাবলু ছিলেন। এছাড়াও জাতীয় পার্টির একজন প্রতিমন্ত্রীও গণভবনে গিয়েছিলেন।