নতুন এমপিদের সাথে শপথ নেবেন এরশাদও

January 8, 2014 0

শীর্ষবিন্দু নিউজ: আগামীকাল নতুন এমপিদের সাথে জাতীয় সংসদের নবনির্বাচিত সাংসদ হিসেবে শপথ নেবেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ। আজ বুধবার বিকেলে জাতীয় সংসদের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় পার্টির সিনিয়র প্রেসিডিয়াম সদস্য রওশন এরশাদ সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।

আনুষ্ঠানিক বক্তব্যে যাওয়ার আগে তিনি দুই মাস ধরে জাতীয় পার্টির খবরাখবর সংগ্রহের জন্য সাংবাদিকদের ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, ‘আমি জানতে পেরেছি যে সাংবাদিকেরা বাসার সামনে ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকেছেন।’ কিন্তু তিনি দলের মুখপাত্র না হওয়ায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হননি। আজ সংসদ ভবনে আয়োজিত বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, জিয়াউদ্দিন আহমেদ, তাজুল ইসলাম চৌধুরী, মুজিবুল হক চুন্নু, সালমা ইসলাম প্রমুখ।

আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে রওশন এরশাদ বলেন, উনি (এরশাদ) আছেন। উনি আমাদের উৎসাহ দিচ্ছেন। শরীরটা একটু খারাপ থাকায় উনি হাসপাতালে আছেন। শরীরে যাতে চাপ না পড়ে এজন্য তিনি সেখানে আছেন। উনি সুস্থ আছেন। কয়েকদিন পরই চিকিৎসকেরা উনাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেবেন। উনার নির্দেশনায় আমরা সব করছি। তিনি আরও জানিয়েছেন, এরশাদের ভাই ও সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জিএম কাদেরও তাঁদের সঙ্গে আছেন।

বিরোধী দল প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে রওশন এরশাদ বলেন, এরশাদ সাহেব বলেছেন, আমি সাবেক রাষ্ট্রপতি ছিলাম। আমি না হয়ে তুমি বিরোধীদলীয় নেতা হও। তবে নির্বাচনের ঠিক তিন দিন পর রওশন বললেন, আলাপ আলোচনার মাধ্যমে দুটি বড় দলের মধ্যে সমঝোতা হতে পারে। সব দলের অংশগ্রহণে একটি মধ্যবর্তী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে। রওশন এরশাদ আরো বলেছেন, দেশের উন্নয়নে সব সিদ্ধান্ত জাতীয় সংসদ থেকে আসা উচিত। নির্বাচনের আগে একদল তত্ত্বাবধায়ক সরকার চাইল, অন্যদল সর্বদলীয় সরকারের কথা বলল, এখনো সমঝোতা হলো না। এটা নিয়ে যদি সংসদে আলোচনা হতো, তাহলে ভালো হতো। সংসদের দিকে দেশ-জাতি তাকিয়ে থাকে। সংসদকে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু করা উচিত।

রওশন বলেন, সাংবিধানিক ধারাবাহিকতা রক্ষার জন্য জাপা নির্বাচনে গেছে। আমরা নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতা পরিবর্তনে বিশ্বাসী বলেই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছি। কিন্তু দেশের জনগণের মনের ভাষা উপলব্ধি করে জাতীয় পার্টির আহ্বান, সংঘাত ও সহিংসতার পথ পরিহার করে সংবিধানের আওতায় আগামী দিনে সব দল ও মানুষের অংশগ্রহণে একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হোক। এর মাধ্যমে চলমান রাজনৈতিক অচলাবস্থা কেটে যাবে। ঐকমত্যের সরকারে যাওয়া নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে রওশন বলেন, আমরা এখনো আলোচনা করিনি। আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব। নির্বাচন সম্পর্কে তাঁর মূল্যায়ন কী, জানতে চাইলে রওশন এরশাদ বলেন, নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়েছে।