l

মঙ্গলবার, ০৯ মার্চ ২০২১, ১২:২০ পূর্বাহ্ন

অবশেষে কেনিয়ার শপিংমল দখলের অবসান ঘটলো

অবশেষে কেনিয়ার শপিংমল দখলের অবসান ঘটলো

এখানে শেয়ার বোতাম

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: অবশেষে কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবির অভিজাত শপিং মল ওয়েস্টগেটে জঙ্গি দখলদারিত্বের অবসান হয়েছে বলে ঘোষণা করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট উহুরু কেনিয়াত্তা। চারদিনের এই লড়াইয়ে ছয় নিরাপত্তা রক্ষী ও পাঁচ জঙ্গি নিহত হয়েছে বলে  জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট কেনিয়াত্তা। ৬১ জন বেসামরিক ব্যক্তির মৃত্যুও নিশ্চিত করেছেন  তিনি।

 শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত শপিং মলে হামলার ঘটনায়  অন্তত ৬৭ জন নিহত হয়েছেন। নিহতদের স্মরণে বুধবার থেকে তিনদিনের রাষ্ট্রীয় শোক পালন  শুরু করেছে কেনিয়া। শপিং মলের একটি অংশ ধসে পড়ার কারণ জানা  যায়নি। তবে সেনা অভিযানের শেষ পর্যায়ে মলটির একটি অংশের তিনটি  তলা ধসে পড়লে হামলাকারী জঙ্গিরাসহ অজ্ঞাত সংখ্যক জিম্মি কংক্রিট ও স্টিলের  ধ্বংসস্তুপের নিচে চাপা পড়ে যায়। এতে জঙ্গিদের সঙ্গে আরো কতজন জিম্মি নিহত হলেন তা  নিয়ে অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হয়েছে।
গত শনিবার দুপুরে অভিজাত এই শপিং মলটিতে হামলা চালায় আল কায়েদার  সঙ্গে সম্পর্কিত সোমালি জঙ্গি গোষ্ঠী আল শাবাব। দেশি-বিদেশি ক্রেতার ভিড় লেগে থাকা  শপিং মলটিতে বেপরোয়া গুলিবর্ষণ করে অনেক মানুষকে হত্যার পর বিপুল সংখ্যাক মানুষকে  জিম্মি করে রাখে তারা। হামলার দায়িত্ব স্বীকার করে আল শাবাবের পক্ষ থেকে  সোমালিয়ায় মোতায়েন কেনীয় সেনাদের প্রত্যাহারের দাবি জানানো হয়। জঙ্গিদের  দাবি না মেনে মলটিতে অভিযান চালানোর সিদ্ধান্ত নেয় কেনীয় সরকার। নিরাপত্তা বাহিনীর  সঙ্গে জঙ্গিদের চারদিন লড়াইয়ের পর এর রক্ত ক্ষয়ের মধ্যদিয়ে এর সমাপ্তি  হয়।

কেনিয়াত্তা জানিয়েছেন, সুপরিকল্পিত এই হামলা ও  হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত সন্দেহভাজন ১১ জনকে নিরাপত্তা হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ  করা হচ্ছে। তবে কোনো হামলাকারীকে জীবিত ধরা হয়েছে কিনা বা এ ঘটনার সঙ্গে  জড়িত সন্দেহে অন্যান্য স্থান থেকে কতজনকে আটক করা হয়েছে সে সম্পর্কে তিনি কিছু  জানান নি। হামলাকারীদের মধ্যে তিনজন মার্কিন নাগরিক ও এক ব্রিটিশ নারী ছিলেন  বলে প্রকাশিত সংবাদের সত্যতাও যাচাই করা সম্ভব হয়নি। হামলাকারীদের মধ্যে কোনো নারী  থাকার কথা অস্বীকার করেছে আল শাবাব।

ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞের চিহ্ন নিয়ে দাঁড়িয়ে  থাকা ওয়েস্টগেট শপিং মলটি ইসরায়েলিদের তৈরি। এটিকে আফ্রিকার নতুন সমৃদ্ধির প্রতীক  হিসেবে দেখা হতো। এই অত্যাধুনিক শপিং মলে চারদিনে ধরে গুলি, বিস্ফোরণ ও ব্যাপক  রক্তপাতে হতবাক হয়ে গেছে কেনিয়াবাসী। এই অবস্থায় টেলিভিশনে কেনিয়ানরা  কেনিয়াত্তার ঘোষণা শুনলেন, অভিযান শেষ হয়েছে। আমরা হামলাকারীদের পরাজিত  করেছি। এরপর তিনদিনের জাতীয় শোক ঘোষণা করেন তিনি।

অভিযানের মুখে অনবরত জিম্মিদের হত্যার  হুমকি দিচ্ছিল জঙ্গিরা। তবে রেডক্রস ঘোষিত নিখোঁজ ৬৩ জনের ভাগ্যে কি ঘটেছে তা নিয়ে কথা বলতে  অস্বীকার করেন কেনীয় কর্মকর্তারা। এদের অনেকেই অভিযানের সময় জঙ্গিদের হাতে নিহত হয়ে  থাকতে পারেন বলে জানিয়েছেন তারা।

 


এখানে শেয়ার বোতাম






পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

All rights reserved © 2021 shirshobindu.com