l

রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ০৫:০৪ অপরাহ্ন

পোশাক শ্রমিকদের ৬৫৬০ টাকা মজুরির প্রস্তাব সিপিডির

পোশাক শ্রমিকদের ৬৫৬০ টাকা মজুরির প্রস্তাব সিপিডির

এখানে শেয়ার বোতাম

তৈরি পোশাক খাতে ন্যূনতম মজুরি নির্ধারণ নিয়ে শ্রমিক ও মালিক পক্ষের মুখোমুখি অবস্থানের মধ্যে সর্বনিম্ন মজুরি ৬ হাজার ৫৬০ টাকা করার প্রস্তাব করেছে সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি)।

তবে বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠানটির মতে, বর্তমানে জীবন-যাপনের সর্বনিম্ন ব্যয় বিবেচনায় শ্রমিকের মজুরি ৮ হাজার ২০০ টাকা এবং ছেলেমেয়েসহ শ্রমিকের ন্যূনতম পুষ্টিকর খাবারের বিবেচনায় তা ১৭ হাজার ৮০০ টাকা হওয়া উচিত। পোশাক শ্রমিক সংগঠনগুলো দীর্ঘদিন ধরে ন্যূনতম মজুরি ৮ হাজার টাকা করার দাবি জানিয়ে এলেও মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ ৩ হাজার ৬০০ টাকা নির্ধারণের প্রস্তাব দিয়েছে।

গত কয়েকদিন ধরে রাজপথে শ্রমিকদের বিক্ষোভ-ভাংচুরের মধ্যে মঙ্গলবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে এক গোলটেবিল আলোচনায় দুই পক্ষের মাঝামাঝি একটি অঙ্ক প্রস্তাব করেছে সিপিডি। সর্বশেষ ২০১০ সালে পোশাক শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি দেড় হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩ হাজার টাকা করা হয়।

এর পর গত মে মাসে পোশাক শ্রমিকদের বেতন-ভাতা বাড়াতে মজুরি বোর্ড গঠন করে সরকার। মালিক ও শ্রমিক প্রতিনিধি নিয়ে কয়েকটি বৈঠক করেও ন্যূনতম মজুরির বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পারেনি বোর্ড।

সিপিডির গোলটেবিলে মূল প্রবন্ধে প্রতিষ্ঠানের অতিরিক্ত গবেষণা পরিচালক খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম বলেন, দারিদ্র্যসীমাকে ভিত্তি ধরা হলে এ মুহূর্তে একজন শ্রমিকের ন্যূনতম মজুরি হওয়া উচিত ৬ হাজার ৫৬০ টাকা। আর একজন শ্রমিকের জীবন-যাপনের সর্বনিম্ন ব্যয় বিবেচনায় নিলে মজুরি হওয়া উচিত ৮ হাজার ২০০ টাকা।  রুগ্ণ প্রতিষ্ঠানগুলোকে পর্যায়ক্রমে এই মজুরি বাস্তবায়নের সুযোগ দেয়ার সুপারিশ করেন তিনি।

প্রথম ধাপে মূল বেতন চার হাজার ৩০০ টাকা ধরে ৪০ শতাংশ হিসাবে বাড়িভাড়া ১ হাজার ৭২০ টাকা এবং চিকিত্সা ভাতা ৫৪০ টাকা মিলে মোট বেতন ৬ হাজার ৫৬০ টাকা করার সুপারিশ করেছে সিপিডি। বাকি ২০ শতাংশ দ্বিতীয় বছরে সমন্বয়ের প্রস্তাব দিয়েছে তারা।

গোলাম মোয়াজ্জেম বলেন, এছাড়া একজন শ্রমিক যদি তার ছেলেমেয়েসহ একটু পুষ্টিকর খাবার খেতে চান, তাহলে তার ন্যূনতম মজুরি হওয়া উচিত ১৭ হাজার ৮০০ টাকা। প্রতিবেদনে বলা হয়, শ্রমিকদের স্বার্থে ক্রেতা প্রতিষ্ঠানগুলোকেও এগিয়ে আসতে হবে। কম মূল্যে পণ্য কেনার অভ্যাস থেকে বেরিয়ে আসা দরকার। সরকারের কাছে ন্যূনতম মজুরির কোনো সংজ্ঞা নেই দাবি করে এটাকে এ মুহূর্তের একটি বড় দুর্বলতা হিসেবে উল্লেখ করেন গোলাম মোয়াজ্জেম। ন্যূনতম মজুরি নির্ধারণের পদ্ধতি নিয়েও জটিলতা আছে, বলেন তিনি।

গোলটেবিলে অংশ নেন শ্রম মন্ত্রণালয়সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ইসরাফিল আলম, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজের নির্বাহী পরিচালক নজরুল ইসলাম খান এবং সিপিডি নির্বাহী পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান প্রমুখ।


এখানে শেয়ার বোতাম






পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

All rights reserved © 2021 shirshobindu.com