শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ০১:০৮

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় পাসের হার ও জিপিএ-৫ দুটোই কমেছে

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় পাসের হার ও জিপিএ-৫ দুটোই কমেছে

/ ২১৩
প্রকাশ কাল: বৃহস্পতিবার, ১৯ জুলাই, ২০১৮

শীর্ষবিন্দু নিউজ: এবারের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় পাসের হার ও জিপিএ-৫ দুটোই কমেছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।  যদিও এবার এইচএসসিতে শিক্ষার্থী বেশি ছিল।

তবে গত বছরের তুলনায় পাসের হার কমেছে ২.২৭ শতাংশ। জিপিএ ৫ কমেছে ৮ হাজার ৪৬৪টি। বৃহস্পতিবার (১৯ জুলাই) সকাল ১০টার দিকে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে শিক্ষাবোর্ডগুলোর ফলের সারসংক্ষেপ তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী। সব বোর্ডের চেয়ারম্যানরা সেখানে উপস্থিত ছিলেন। তারাও পৃথকভাবে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ফল হস্তান্তর করেন।

শিক্ষামন্ত্রী জানান, এবার এইচএসসি পরীক্ষায় পাস করেছে ৮ লাখ ৫৮ হাজার ৮০১ জন শিক্ষার্থী।  পাসের হার ৬৬. ৬৪ শতাংশ। গতবছর এইচএসসিতে পাসের হার ছিল ৬৮ দশমিক ৯১ শতাংশ।  গতবছরের তুলনায় এবারে পাসের হার কমেছে ২.২৭ শতাংশ। এছাড়া এবার জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৯ হাজার ২৬২ জন। গত বছর জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৩৭ হাজার ৭২৬ জন।

তিনি আরও জানান, এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় চলতি বছর মোট ১২ লাখ ৮৮ হাজার ৭৫৭ জন শিক্ষার্থী অংশ নেয়। যা গত বছরের তুলনায় এক লাখ ২৫ হাজার ৩৮৭ জন বেশি।

শিক্ষামন্ত্রী জানান, মোট ১০টি বোর্ডে গড়ে ছাত্রদের তুলনায় ছাত্রীদের ফলাফল ভালো। এবার ছাত্রীদের পাসের হার ৬৯.৭২ শতাংশ। ছাত্রদের পাশের হার ৬৩.৮৮ শতাংশ।

নুরুল ইসলাম নাহিদ জানান, কারিগরি শিক্ষাবোর্ডে এবার উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় মোট পাসের হার ৭৫.৫০ শতাংশ। মোট পরীক্ষার্থী ছিল এক লাখ ১৮ হাজার। এর মধ্যে পাস করেছে  ৮৯ হাজার ৮৯ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে দুই হাজার ৪৫৬ জন।

মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ডে চলতি বছর ৯৭ হাজার ৭৯৩জন শিক্ষার্থী অংশ নেয়। এর মধ্যে পাস করেছে  ৭৬ হাজার ৯৩২ জন। পাসের হার ৭৮.৬৭ শতাংশ। মোট জিপিএ-৫ পেয়েছে  এক হাজার ২৪৪ জন।

এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয় গত ২ এপ্রিল। তত্ত্বীয় পরীক্ষা চলে ১৩ মে পর্যন্ত। আর ১৪ থেকে ২৩ মে’র মধ্যে অনুষ্ঠিত হয় ব্যবহারিক পরীক্ষা।

এবার উচ্চ মাধ্যমিকে পরীক্ষার্থী ছিল ১৩ লাখ ১১ হাজার ৪৫৭ জন। এর মধ্যে ৬ লাখ ৯২ হাজার ৭৩০ জন ছাত্র ও ৬ লাখ ১৮ হাজার ৭২৭ জন ছাত্রী।

ফল জানা যাবে যেভাবে

এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রধানমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৯ জুলাই) দুপুর ১টায় সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে ফলাফলের বিভিন্ন দিক তুলে ধরবেন শিক্ষামন্ত্রী। এরপরই আনুষ্ঠানিকভাবে সব কলেজ, মাদ্রাসা, শিক্ষা বোর্ডগুলোর ওয়েবসাইট ও মোবাইলের এসএমএস-এর মাধ্যমে ফল জানতে পারবেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

পরীক্ষার্থীরা শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইট www.educationboardresults.gov.bd এবং সংশ্লিষ্ট বোর্ডের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফল সংগ্রহ করতে পারবেন।

আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ডের এইচএসসি পরীক্ষার্থী মোবাইলের মাধ্যমে ফল পেতে HSC লিখে স্পেস দিয়ে বোর্ডের প্রথম তিন অক্ষর স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০১৮ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে। ফিরতি এসএমএসে ফল জানা যাবে।

মাদ্রাসা বোর্ডের শিক্ষার্থীদের ফল জানতে HSC লিখে স্পেস দিয়ে MAD স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০১৮ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে। ফিরতি এসএমএসে ফল পাওয়া যাবে।

এছাড়া কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের ফল জানতে HSC লিখে স্পেস দিয়ে TEC লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে স্পেস দিয়ে ২০১৮ লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে। ফিরতি এসএমএসে ফল জানিয়ে দেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (১৯ জুলাই) সকাল ১০টার দিকে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে শিক্ষা বোর্ডগুলোর ফলের সারসংক্ষেপ তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। এ সময় সব বোর্ডের চেয়ারম্যানরা সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

শিক্ষামন্ত্রী জানান, এবার পাস করেছে ৮ লাখ ৫৮ হাজার ৮০১ জন শিক্ষার্থী। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২৯ হাজার ২৬২ জন।

তিনি জানান, এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষায় চলতি বছর মোট ১২ লাখ ৮৮ হাজার ৭৫৭ জন শিক্ষার্থী অংশ  নেয়, যা গত বছরের তুলনায় এক লাখ ২৫ হাজার ৩৮৭জন বেশি। এবার শিক্ষার্থী বাড়লেও গত বছরের তুলনায় পাসের হার  কমেছে ২.২৭ শতাংশ। গত বছর এইচএসসিতে পাসের হার ছিল ৬৮ দশমিক ৯১ শতাংশ, জিপিএ-৫ পেয়েছিল ৩৭ হাজার ৭২৬ জন।




Comments are closed.



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
All rights reserved © shirshobindu.com 2021