শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১২:১৬

সারাহ এভেরার্ড হত্যাকান্ডের পর স্বাধীন তদন্তের ঘোষণা দিলেন ব্রিটিশ হোম সেক্রেটারী

সারাহ এভেরার্ড হত্যাকান্ডের পর স্বাধীন তদন্তের ঘোষণা দিলেন ব্রিটিশ হোম সেক্রেটারী

/ ৬৪
প্রকাশ কাল: বৃহস্পতিবার, ৭ অক্টোবর, ২০২১

ব্রিটেনে সারাহ এভেরার্ড হত্যাকাণ্ডের পর হাজারো প্রশ্ন উঠছে। ওয়েইন কাযেন্স কীভাবে পুলিশ কর্মকর্তা হতে পারলেন? কেন তাকে আরও আগে থামানো গেলোনা? নারীরা কেন এখনও নিরাপদ অনুভব করেনা? সারাহ এভেরার্ডকে হত্যাকারী পুলিশ কর্মকর্তা ওয়েইন কাযেন্সকে গত সপ্তাহে আমরণ কারাদণ্ড দিয়েছেন ওল্ড বেইলি আদালত।

লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশের অভ্যন্তরে যে পদ্ধতিগত ব্যর্থতার কারণে একজন পুলিশ কর্মকর্তা সারাহ এভেরার্ডকে অপহরণ, ধর্ষণ এবং হত্যা করেছেন, তার একটি স্বাধীন তদন্ত হবে বলে ঘোষণা করেছেন হোম সেক্রেটারি প্রীতি প্যাটেল। কনজারভেটিভ দলের বার্ষিক সম্মেলনে বক্তৃতাকালে হোম সেক্রেটারি বলেন, এমন ঘটনা যাতে আর না ঘটে, সে জন্য জনগণ একটা জবাব চায়।

হোম সেক্রেটারি কর্তৃক মঙ্গলবার ঘোষিত স্বাধীন তদন্ত কেবল সমস্যাকে তুলে ধরলে যথেষ্ট হবেনা, বরং পরিবর্তন আনতে ভূমিকা রাখতে হবে, যাতে সকল নারী নিজেদের নিরাপদ ভাবতে পারে। সারাহ এভেরার্ড এর সাথে পুলিস কর্মকর্তা কি কি করেছিলেন, তার মর্মান্তিক বিস্তারিত বিবরণ জানার এক সপ্তাহেরও কম সময়ে জানা গেলো, বিষয়টির ব্যপক ভিত্তিক স্বাধীন তদন্ত হবে। তদন্ত হবে দুই পর্বে। প্রথম পর্বে বিশ্লেষণ করা হবে কাযেন্সের অতীত আচরণ এবং অতীতে এমন কোনো সুযোগ হাতছাড়া করা হয়েছে কিনা, যার মাধ্যমে তাকে আগেই থামিয়ে দেয়া যেতো।

আর দ্বিতীয় পর্বে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হবে পুলিসিং। এতে পুলিস নিজেদের বিষয়ে এবং তাদের আচরণকে কীভাবে তদন্ত করে থাকে, তা খতিয়ে দেখা হবে। কিন্তু এই তদন্ত পরিচালকদের সাক্ষীর বক্তব্য এবং প্রমাণ গ্রহনের সুযোগ থাকবে না। তবে সরকারের মন্ত্রীরা বলছেন, প্রয়োজনে এই নিয়ম পরিবর্তন করা হবে।

সোমবার মেট পুলিসের কমিশনার ঘোষণা করেছেন, একজন স্বাধীন ব্যক্তিকে সাথে নিয়ে তিনি তার নিজস্ব বাহিনীর পুনঃমূল্যায়ন করবেন। এছাড়া পুলিস রেগুলেটর এর উদ্যোগে আরেকটি তদন্ত করা হবে। এতে ওয়েইন কাযেন্সের বিরুদ্ধে উত্থাপিত তিনটি অশোভন আচরণের বিষয়ে মেট পুলিশ এবং কেন্ট পুলিশ সঠিকভাবে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করেছিল কিনা, তা খতিয়ে দেখা হবে।

সারাহ এভেরার্ড হত্যাকাণ্ডের পর আরও ৮০ জন নারীকে হত্যা করা হয়েছে। সাবিনা নেসা তাদের মধ্যে সর্বশেষ। মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রীকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, নারীবিদ্বেষকে ‘হেইট ক্রাইম’ হিসেবে সংজ্ঞায়িত করা হবে কিনা। তিনি তাতে অস্বীকৃতি জানিয়ে বলেন, বর্তমান আইন নারীবিদ্বেষ মোকাবেলায় যথেষ্ট।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
All rights reserved © shirshobindu.com 2021