শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১২:৩০

টিভিওয়ানের জমজমাট ‘ক্ষুদে তারা’ অনুষ্ঠানের সফল সমাপ্তি

টিভিওয়ানের জমজমাট ‘ক্ষুদে তারা’ অনুষ্ঠানের সফল সমাপ্তি

এই আয়োজন শিশু-কিশোরদের বাংলা চর্চায় অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে

সংবাদ বিজ্ঞপ্তি / ৮৩
প্রকাশ কাল: শুক্রবার, ৮ অক্টোবর, ২০২১

স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর সুবর্ন সময়কে অম্লান করে রাখতে বৃটেনের বাংলাভাষী টেলিভিশন ‘টিভি ওয়ান’ আয়োজন করেছিলো যুক্তরাজ্যের শিশু-কিশোরদের নিয়ে মেধাভিত্তিক প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠান ‘ক্ষুদে তারা’।

গত ২৬ সেপ্টেম্বর রোববার বিকেলে চূড়ান্ত পর্বের প্রতিযোগীসহ অংশগ্রহণকারী সকল প্রতিযোগীকে নিয়ে পূর্ব লন্ডনের চ্যাডওয়েল হিথের মে ফেয়ার ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হয় জমকালো এই অনুষ্ঠান । বেলা ১টায় অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার কথা থাকলেও দুপুর বারোটা থেকেই যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন অঞ্চল হতে প্রতিযোগীরা তাদের অভিভাবকদের সঙ্গে মেফেয়ার ভেন্যুর সম্মুখে জড়ো হতে থাকেন।

বিশিষ্ট আবৃত্তি শিল্পী সৈয়দ রুম্মানের উপস্থাপনায় জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে শুরু হয় ‘ক্ষুদে তারা’র চূড়ান্ত পর্ব। গৌরী চৌধুরী সুরালয়ের শিক্ষার্থীরা পরিবেশন করে এ জাতীয় সংগীত । এরপর গ্র্যান্ড ফিনালের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ও যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা অতিথিদের স্বাগত জানাতে মঞ্চে বক্তব্য নিয়ে আসেন টিভি ওয়ানের অন্যতম পরিচালক শায়খ মাহমুদুল হাসান।

তিনি তাঁর বক্তব্যে অভিভাবকদের ঘাম ঝরানো পরিশ্রমের বিনিময়ে শিশুদের এই বাংলা চর্চা আর বাংলাদেশের ভালবাসার দিকটি তুলে ধরেন। তিনি বলেন, নিজের ঘরেই আমাদেরকে অন্যদেশের মানুষ মনে হয়- যখন সন্তানেরা ইংরেজীতে কথা বলে । আমাদেরকে ঘরে বাংলায় কথা বলার চর্চা বাড়াতে হবে। যাতে সন্তানরা আমাদের সঙ্গে কথা বলে বাংলা শিখতে পারে। ‘ক্ষুদে তারা’র পুরো আয়োজনকে এক সাহসী পদক্ষেপ বলে মন্তব্য করেন বিশিষ্ট মুক্তিযাদ্ধা, আবৃত্তিশিল্পী ও বিবিসি বাংলার সাবেক প্রযোজক উদয় শংকর দাস। তিনি টিভি ওয়ানের এই উদ্যোগের ভুয়শী প্রশংসা করে এই ধারা অব্যাহত রাখার আহবান জানান।

শিশু কিশোরদের নিয়ে এ ধরনের আয়োজনের উদ্যোগ সম্পর্কে অভিভাবকেরা বলেন, টিভি ওয়ান শিশু কিশোরদের কবিতা আর ছবি আঁকার যে প্লাটফর্ম তৈরী করে দিয়েছে তা বিলেতের শিশু-কিশোরদের বাংলা চর্চা আর বাংলাদেশকে জানার আগ্রহ আরো বাড়িয়ে দেবে। তাঁরা সন্তানদের বাঙালিত্বের পরিচয়টি স্মরণ করিয়ে দিতে এই আয়োজন অব্যাহত রাখার আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে কমিউনিটির বিশিষ্টজন অতিথি হিসেবে উপস্হিত ছিলেন। তাঁরা বিভিন্ন পর্বে শিশু কিশোরদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন। উপস্থিত ছিলেন বৃটিশ-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট মহিব চৌধুরী, কমনওয়েলথ জার্নালিস্টস এসোসিয়েশনের ভাইস প্রেসিডন্ট সৈয়দ নাহাস পাশা, চ্যানেল এস-এর চেয়ারম্যান আহমেদ উস সামাদ চৌধুরী জেপি, ইমিগ্রেশন এডভাইজার মোঃ লুৎফুর রহমান, বাংলাদেশ ক্যাটারার্স অ্যাসোসিয়েশন ইউকের সাবেক প্রেসিডেন্ট পাশা খন্দকার, গ্রেটার সিলেট কাউন্সিলের  চেয়ারপার্সন ব্যারিস্টার আতাউর রহমান, লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের সেক্রেটারি ও চ্যানেল এস-এর চীফ রিপোর্টার মুহাম্মদ জুবায়ের, লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের ট্রেজারার আবু সালেহ মোঃ মাসুম, ট্রাভেল লিংক-এর সিইও সামি সানাউল্লাহ, টিভি প্রেজেন্টার ব্যারিস্টার তালহা আহমেদ, সাপ্তাহিক দেশ পত্রিকার সম্পাদক টিভি প্রেজেন্টার তাইসির মাহমুদ, টিভিওয়ান নিউজের নির্বাহী সম্পাদক আব্দুল হাই সনজু, বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতা সাংবাদিক কে এম আবু তাহের চৌধুরী ও কবি-ছড়াকার দিলু নাসের। ‘ক্ষুদে তারা’ আয়োজনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন টিভিওয়ানের ডাইরেক্টর অপারেশন গোলাম রাসুল।

শিশুদের ছবি আঁকা এবং আবৃত্তি প্রতিযোগিতায় যারা বিচারক ছিলেন তারা এই উদ্যোগকে অভূতপুর্ব বলে উল্লেখ করেন। চিত্রাঙ্কনে বিচারক ছিলেন ডিজাইনার ও আর্কিটেক্ট  এস রহমান নিকেল, চিত্রশিল্পী বিলকিস পেনাম এবং চিত্রশিল্পী ফাতেমা সিদ্দিকা। আবৃত্তিতে বিচারক ছিলেন বিশিষ্ট আবৃত্তি-শিল্পী সমর সাহা ও বিশিষ্ট সংবাদ পাঠিকা ডাঃ জাকি রিজওয়ানা আনোয়ার। ‘ক্ষুদে তারা’র প্রযোজক জিয়াউর রহমান সাকলেন বলেন, এই আয়োজন এখানেই শেষ নয় বরং এখান থেকেই শুরু । তিনি ক্ষুদে তারার এ সাফল্যকে টিভি ওয়ান এবং সকল অভিভাবকের সফল্য বলে উল্লেখ করেন । অনুষ্ঠানের সাথে সম্পৃক্ত সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি তিনি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

উল্লেখ্য, আবৃত্তি ও চিত্রাঙ্কন এ দুই বিষয়ে ৫ থেকে ১০ ক শাখা এবং ১১ থেকে ১৫ বছর বয়সীরা খ শাখায় ভাগ করে শুরু হওয়া এই প্রতিযোগিতা ফাইনাল পর্ব শেষ হয় আগস্ট মাসে। প্রাথমিক নির্বাচন, সেমিফাইনাল এবং ফাইনাল এই তিনটি পর্যায়ে মোট দুশ’র অধিক শিশু কিশোরের মধ্য থেকে বিচারকদের সুদক্ষ বিচারকার্যে ৪০ জনের কিছু অধিক শিশু কিশোর পৌঁছায় ফাইনাল পর্বে।

আবৃত্তিতে ‘ক’ শাখায় প্রথমস্থান অর্জন করে প্রাপ্তি দেব সরকার, দ্বিতীয় স্হান নিশ্চিত করে সারিনা জায়বা এবং তৃতীয় হয় কাজি আয়ান তায়্যিব। এরা সবাই লন্ডন থেকে অংশ নেয় । আবৃত্তি ‘খ’ শাখায় প্রথম হয় স্কটল্যান্ডের ইবতেসিমা তাবাসসুম রোজ, দ্বিতীয় হয় লন্ডন থেকে আজওয়াদ খান এবং তৃতীয় বেলফাস্ট থেকে আনিলা সাহা। চিত্রাঙ্কনে ‘ক’ শাখায় প্রথম স্থান অর্জন করে প্রাপ্তি দেব সরকার, দ্বিতীয় সৈয়দা নারমিন জামান এবং তৃতীয় তাজরিয়ান রহমান তেহজীব। চিত্রাঙ্কন ‘খ’ শাখায় প্রথম পুরস্কার পায় লন্ডনের আরভিন জামান, স্কটল্যান্ড থেকে ইবতেসিমা তাবাসসুম রোজ এবং তৃতীয় হয় লন্ডনের অহনা জামান।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০
১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
১৮১৯২০২১২২২৩২৪
২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
All rights reserved © shirshobindu.com 2021