সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৬:৩৫

লন্ডনে জনপ্রিয় এক কক্ষের ‘মাইক্রোফ্ল্যাট’

লন্ডনে জনপ্রিয় এক কক্ষের ‘মাইক্রোফ্ল্যাট’

শীর্ষবিন্দু নিউজ, লন্ডন / ২২০
প্রকাশ কাল: বুধবার, ১৭ নভেম্বর, ২০২১

লন্ডনের মতো যেসব শহরে জমির দাম অনেক সেসব জায়গায় মাইক্রোফ্ল্যাট দিন দিন জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। বারাট নামের একটি ডেভেলপার কোম্পানি সম্প্রতি উত্তর-পশ্চিম লন্ডনে এরকম ১২৩টি মাইক্রোফ্ল্যাট বিক্রির ঘোষণা দিয়েছে।

এসব ফ্ল্যাটে রয়েছে স্থায়ী ওয়ার্ড্রব ও কাপবোর্ড। রান্নাঘরের আকৃতি রাখা হয়েছে একদমই ছোট। এবং প্রতিটি ফ্লাটই ৩৭ স্কয়ার মিটারের নির্দেশনা মেনে তৈরি করা হয়েছে। কোম্পানিটি এখন পুরো ব্রিটেনে ব্যবসা টেনে নিয়ে যেতে চাইছে।

এ রকম একটি ফ্ল্যাট কিনতে খরচ হচ্ছে ২ লাখ ৮৫ হাজার পাউন্ড। অথচ সেখানে মধ্যম আকারের বাড়ির গড় দাম ৩ লাখ ২২ হাজার পাউন্ড। লন্ডনের ফ্ল্যাটগুলোর গড় দাম ৫ লাখ ১০ হাজার পাউন্ড। একটি পুরানো টাউনহাউজকে ভেঙ্গে এখানে ১০টি আলাদা ফ্ল্যাট করা হয়।

উত্তর লন্ডনের মাত্র ২০৪ স্কয়ার ফিটের (১৯ স্কয়ার মিটার) ‘মাইক্রোফ্ল্যাটে’ থাকেন ৩৯ বয়সী রিওচ ফিজপ্যাট্রিক। পুরো ফ্ল্যাটে শুধু একটিই কক্ষ, সঙ্গে আছে আলাদা একটি বাথরুম। তিনি বললেন, হয়ত এটি দেখতে একটু অদ্ভুত লাগছে। মানুষ এসে মনে করে রান্নাঘরে বিছানা রেখে থাকি আমি। কিন্তু আমি এখন এসবে অভ্যস্ত হয়ে গেছি। তবে আমার পাশের ফ্ল্যাটে একই রকম জায়গায় এক শিশুকে নিয়ে তার বাবা মা থাকেন। এটি তাদের জন্য কষ্টকর হওয়ার কথা।

ফিজপ্যাট্রিক ২০১৮ সালের মে মাসে এখানে এসে উঠেন। অন্যদের সঙ্গে ফ্ল্যাট শেয়ার করে থাকতে থাকতে তিনি ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলেন। তবে এরকম একটি ছোট ফ্লাটে থাকা সহজ বিষয় নয়। তিনি বলেন, আমাকে কানে এয়ারপ্লাগ লাগিয়ে ঘুমাতে হয়। কারণ বয়লার ঠিক আমার মাথার উপরে এবং রাতের বেলা ফ্রিজ থেকেও প্রচুর শব্দ পাওয়া যায়। এখানে তিনি থাকেন কারণ ভাড়া তুলনামূলক কম। মাসে তাকে গ্যাস ও বিদ্যুৎসহ মোট ৯০০ পাউন্ড দিতে হয়। একই এলাকায় এক বেডের ফ্ল্যাটের ভাড়া হয় সাধারণত ১২০০ পাউন্ডের বেশি।

ফিজপ্যাট্রিক একাই নন, লন্ডনে এ ধরণের মাইক্রোফ্ল্যাট জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। দেশটিতে এক বেডের ফ্ল্যাটের স্ট্যান্ডার্ড আকৃতি হচ্ছে ৩৭ স্কয়ার মিটার। কিন্তু ২০১১ থেকে ২০২১ সালের মধ্যে লন্ডনে তৈরি প্রতি ১৫ ফ্লাটের একটিই এর থেকে ছোট বলে জানা গেছে এক জরিপে। ২০১৯ সালে বৃটেনের মধ্যম সাইজের ফ্ল্যাটের গড় আকৃতি ৩০ স্কয়ার মিটারে নেমে আসে।

গত দুই বছরে সেটি আরও নেমে ২৯ স্কয়ার মিটারে এসে দাঁড়িয়েছে। ২০১৫ সালে ব্রিটিশ সরকারের নির্দেশনায় ফ্ল্যাটের সর্বনিম্ন আকৃতি নির্ধারণ করা হয় ৩৭ স্কয়ার মিটার। যদিও এটি বাধ্যতামূলক নয়। স্থানীয় কর্তৃপক্ষ চাইলে এ নিয়ম প্রয়োগ করতে পারে আবার নাও করতে পারে।

গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৩ সাল থেকেই মাইক্রোফ্ল্যাটগুলো ব্রিটেনে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। দেশজুড়ে আবাসন সংকট মোকাবেলা করতে ডেভেলপারদের অফিস ব্লক ভেঙ্গে ছোট এপার্টমেন্ট তৈরির অনুমোদন দেয়া হয় সে বছর। যদিও ছোট স্থানে থাকতে গিয়ে নানা সমস্যায় পড়তে হয় পরিবারগুলোকে। এরপরই এ বছরের এপ্রিলে নতুন একটি আইন পাস হয় ব্রিটেনে। ফলে এখন থেকে ফ্ল্যাট নির্মানে সর্বনিম্ন আকৃতির নিয়ম মেনে চলতে হবে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

All rights reserved © shirshobindu.com 2021