মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:০৬

যুক্তরাজ্যে ১৮ শতকের জীবন কাটাচ্ছে ১ লাখ ২০ হাজার শিশু

যুক্তরাজ্যে ১৮ শতকের জীবন কাটাচ্ছে ১ লাখ ২০ হাজার শিশু

শীর্ষবিন্দু নিউজ, লন্ডন / ১২৯
প্রকাশ কাল: মঙ্গলবার, ২২ আগস্ট, ২০২৩

যুক্তরাজ্যের ১ লাখ ২০ হাজার শিশু একবিংশ শতাব্দীতে থেকেও ১৮ শতকের জীবন কাটাচ্ছে। শনিবার গার্ডিয়ানে প্রকাশিত দাতব্য সংস্থা ‘বাটল ইউকে’র এক জরিপে চাঞ্চল্যকর এ তথ্য উঠে এসেছে।

জ্বালানি, খাদ্য ও দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির প্রভাবে জীবনযাত্রার মানে ভয়ংকর পতন ঘটেছে যুক্তরাজ্যে। বিশেষ করে ব্রিটেনের মধ্যবিত্ত ও নিম্নমধ্যবিত্ত সমাজে। ফলে দারিদ্র্যসীমার চরম নিচে পড়ে মানবেতর দিন কাটছে এসব পরিবারের প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার শিশুর।

ক্ষুধার পাশাপাশি বাড়ছে তাদের মানসিক চাপও। প্রায় দুই-তৃতীয়াংশ পরিবারই শিশুদের মৌলিক চাহিদাগুলোই পূরণ করতে পারছে না। দৈনন্দিন খাবার, বাসাভাড়া, ইন্টারনেট সুবিধা এমনকি ঘরের জন্য বাতিও কিনতে পারছে না কেউ কেউ। ক্ষুধার্ত, দুর্গন্ধযুক্ত অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে ক্লান্ত শিশুরা শ্রেণিকক্ষে মন দিতে পারছে না।

সঙ্গত কারণেই চরম ব্যাঘাত ঘটছে তাদের পড়ালেখায়। নতুন প্রজন্মের এমন বেহালে দেশটির ‘ভবিষ্যৎ অন্ধকার’ বলেও মন্তব্য করা হয়েছে জরিপটিতে। দ্য গার্ডিয়ান।

জরিপের এক কর্মকর্তা জানান, কিছু কিছু শিশু জানিয়েছে-স্কুলে তাদের কোনো বন্ধু নেই এবং বাইরের কোনো আগ্রহ নেই। তারা একটি ঠান্ডা, অন্ধকার বাড়িতে সময় কাটায়। যখন আমি এ কথাগুলো শুনছিলাম তখন ১৮০০ সালের গল্পের মতো লাগছিল। এটা মেনে নেওয়া কষ্টকর যে, যুক্তরাজ্যে ২০২৩ সালে এমন শিশুরা বাস করছে।’

বাটল ইউকে-এর প্রধান নির্বাহী জোসেফ হাউস বলেছেন, ‘শিশু ও যুবক-যুবতীদের মধ্যে ক্রমবর্ধমান বৃদ্ধি অত্যন্ত উদ্বেগজনক। তবে লাখ লাখ শিশুকে দারিদ্র্যের ধ্বংসাত্মক কবল থেকে বের করে আনতে এখনই পরিবর্তন আনা প্রয়োজন।’

একজন সরকারি মুখপাত্র বলেছেন, ‘২০১০ সাল থেকে দারিদ্র্যের মধ্যে ৪০০,০০০ কম শিশু বাস করছে। তবে আমরা জানি মুদ্রাস্ফীতির পরিবারের বাজেটকে চাপের মুখে ফেলছে।’

প্রতিবেদন জানা যায়, প্রায় ৫৭ শতাংশ পরিবার পর্যাপ্ত খাদ্য ও পুষ্টির অভাবে ভুগছে। গ্যাস এবং বিদ্যুতের সামর্থ্য নেই ৫৮ শতাংশ পরিবারের। মৌলিক আসবাবপত্র যেমন-বেড, সোফা এবং যন্ত্রপাতির নেই ৬৩ শতাংশ মানুষের শিক্ষা বা কর্মসংস্থানের জন্য আইটি সরঞ্জাম নেই ৬৫ শতাংশ বাড়িতে এবং কিছু ৪৯ শতাংশ পরিবার তাদের বাসাভাড়া বহন করতে সক্ষম নয়।

প্রসঙ্গত, যুক্তরাজ্যের মতো উন্নত দেশে ২০২৩ সালে এমন করুণ পরিস্থিতি অবিশ্বাস্য। ১,২৪০ জন কর্মী-কর্মকর্তার এই জরিপে দেখা যায়, ইংল্যান্ড, আয়ারল্যান্ড এবং উত্তর স্কটল্যান্ডজুড়ে প্রায় ৬০ শতাংশ শিশু অত্যন্ত দারিদ্র্যে দিন কাটাচ্ছে।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
All rights reserved © shirshobindu.com 2024