বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২, ০৯:৪৪

চায়নিজ ও আরবিসহ নতুন ২৭ ভাষায় ডোমেইন

চায়নিজ ও আরবিসহ নতুন ২৭ ভাষায় ডোমেইন

/ ৭১
প্রকাশ কাল: বুধবার, ৩ এপ্রিল, ২০১৩

 

 

 

 

 

 

 

 

এম. মিজানুর রহমান সোহেল: ইংরেজি ভাষার পাশাপাশি চায়নিজ ও আরবিসহ নতুন আরও ২৭টি ভাষায় ইন্টারনেট ঠিকানার (ডোমেইন) নামের প্রাথমিক অনুমোদন দিয়েছে বিশ্বের ইন্টারনেট ঠিকানা নিয়ন্ত্রণ সংস্থা আইক্যান (আইসিএএনএন)। চলতি বছরের মাঝামাঝি থেকে এ সুবিধা চালু হবে। তবে সেই তালিকায় বাংলা ডোমেইনের নাম নেই। এপি সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

এপি বলছে, বিভিন্ন ভাষার লোকদের স্বচ্ছন্দে ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগ দিতে আইক্যান গত বছর ডোমেইনের পরিধি বিস্তারের ঘোষণা দেয়। তখন বাংলা ভাষাসহ নিজস্ব ভাষায় ডোমেইনের জন্য সারা পৃথিবী থেকে প্রায় ২০০০ আবেদন জমা পড়ে। সেখান থেকে বাছাই করে প্রাথমিকভাবে ২৭টি ভাষায় ডোমেইনের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। আগামী সপ্তাহের মধ্যে আরও কিছু ভাষা অনুমোদন দেয়া হবে বলেও জানিয়েছে আইক্যান।

সংস্থাটি জানায়, অনুমোদন পাওয়া ডোমেইন নামগুলোর মাধ্যমে ইংরেজি ভাষা না জানলেও নিজ ভাষায় স্বচ্ছন্দে একে অন্যের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা। এতে তাদের ব্যবসা-বাণিজ্যে আরও বেশি সুযোগ তৈরি হবে। উল্লেখ্য, ওয়েবসাইটের ডোমেইন নেম সংক্রান্ত নীতিনির্ধারণীমূলক যাবতীয় কাজ করে থাকে ইন্টারন্যাশনাল করপোরেশন ফর অ্যাসাইন্ড নেমস অ্যান্ড নাম্বারস (আইসিএএনএন)।

প্রসঙ্গত, বাংলা ভাষা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষার মর্যাদা পেলেও বাংলা ডোমেইনের জন্য দেশের মানুষের আবেদন এখনও উপেক্ষিত। ফলে এখনও ডট বাংলা ডোমেইন চালু করার সুযোগ হয়নি। তত্ত্বাবধায়ক সুনির্দিষ্ট না হওয়ায় ডট বাংলা ডোমেইন বরাদ্দ হওয়ার পরও বাংলাদেশ তা নিতে পারছে না। এখনও শুধু নামটি টপ লেভেল ডোমেইন হিসেবে ব্যবহার করা যায় না ডট বিডি ডোমেইন। সহজে বিটিসিএল থেকে এই ডোমেইনটি কেনার সুযোগ না থাকায় দেশের অধিকাংশ ডোমেইন ডটকম, ডটনেট বা ডট অর্গ-এ সীমাবদ্ধ থাকছে। সাবডোমেইন হিসেবে ডট বিডি ব্যবহার করতে হচ্ছে। একইভাবে সরকারি ওয়েবসাইটগুলোতে এখনও বাংলার ব্যবহার উপেক্ষিত রয়েছে। এদের বেশিরভাগই ইংরেজিতে।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, বাংলা ভাষায় ইন্টারনেটে ডোমেইন (বাংলায় ওয়েব ঠিকানা লিখতে) ডট বাংলা বাংলাদেশ বরাদ্দ পেলেও তত্ত্বাবধায়ক ঠিক না হওয়ায় চূড়ান্তভাবে এখনও এটি পায়নি বাংলাদেশ। ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) না বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ কোম্পানি লিমিটেডকে (বিটিসিএল) তত্ত্বাবধান করবে সে বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারছে না সরকার।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১১ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি অনলাইনে এ সম্পর্কিত একটি আবেদন করেন। আইসিএএনএন বাংলা ভাষার জন্য স্ট্রিং ইভ্যালুয়েশন (বাংলা অক্ষরগুলো চেনার জন্য নির্দিষ্ট কোড (আইডিএন সিসিটিএলডি) প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে ইন্টারনেট অ্যাসাইন্ড নাম্বারস অথরিটি (আইএএনএ) বাংলার জন্য কোডটি (আইডিএন সিসিটিএলডি) অনুমোদনও (ডিএনস রুট জোনে ডেলিগেট) করে। এদিকে অনলাইনে বাংলা কনটেন্টের দৈন্যও প্রকট। লিনাক্স ছাড়া সব অপারেটিং সিস্টেম ইংরেজিতে (যদিও বাংলা সমর্থিত), ইউনিকোডে না লিখে এখনও বাংলায় কোনো সার্চ ইঞ্জিনে তথ্য সার্চ দেয়া যায় না।

 




Leave a Reply

Your email address will not be published.



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১  
All rights reserved © shirshobindu.com 2022