শনিবার, ২৫ জুন ২০২২, ০৮:৪৪

পৃথিবী ধ্বংস হবে ২১ ডিসেম্বর

পৃথিবী ধ্বংস হবে ২১ ডিসেম্বর

/ ৬৭
প্রকাশ কাল: শনিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১২

পৃথিবী ধ্বংসের পরও একটি জায়গা টিকে থাকবে। তা হচ্ছে ফ্রান্সের দক্ষিণাঞ্চলীয় পার্বত্য এলাকা পিরেনির একটি পর্বত_একটি স্বঘোষিত ধর্মীয় গোষ্ঠী এ দাবি করেছে। তাদের দাবি, পৃথিবী ধ্বংস হবে আগামী ২১ ডিসেম্বর। তবে এ ভবিষ্যদ্বাণীতে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই বলে লোকজনকে সতর্ক করে দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। এর আগেও বিভিন্ন গোষ্ঠী এ রকম পূর্বাভাস দিয়েছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেগুলো গুজবই থেকে গেছে। গোষ্ঠীটির এ আগাম সতর্কবাণীতে নড়েচড়ে বসেছে ফ্রান্সের ওই এলাকার প্রশাসনও। তারা দিনটিকে উপলক্ষ করে ওই পর্বতে পর্যটকদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। তাদের আশঙ্কা ওই দিন আতঙ্কগ্রস্ত লোকজন পর্বতটিতে গিয়ে অযাচিত হুড়োহুড়ি করতে পারে। ঘটতে পারে ১৯৯৫ সালে আল্পস পর্বতের সৌরমন্দিরের মতো আরেকটি ট্র্যাজেডি। সে বছরও একটি গোষ্ঠী পৃথিবী ধ্বংসের ভবিষ্যদ্বাণী করেছিল। ফলে বেশ কিছু আত্মাহুতির ঘটনা ঘটে। পিরেনির পর্বতটি ফ্রান্সের বুগারাস এলাকার কাছাকাছি। এলাকার লোকসংখ্যা মাত্র ১৭৯ জন। ধর্মীয় গোষ্ঠীটি প্রাচীন মায়া বর্ষপঞ্জীর ভিত্তিতে পৃথিবী ধ্বংসের আগাম এ বার্তা ঘোষণার দাবি করেছে। তাদের মতে, ২১ ডিসেম্বর রাতেই কেয়ামত হবে। এদের বিশ্বাস, বুগারাসের চূড়ায় ‘ভিনগ্রহবাসীদের বাড়িঘর’ আছে। একটি পাথরের নিচে বিশাল গুহায় অবস্থান করে তারা। কেয়ামতের দিন সেখানে পৃথিবীর হাতেগোনা কয়েকজন ভাগ্যবানের জায়গা হবে টিকে থাকার জন্য। বুগারাসের ওই পর্বতের চূড়াটি সমতল। বুগারাসের মেয়র সেখানে ২১ তারিখের আগে ও পরে সব ধরনের সমাবেশ বা ছোটখাটো বিমান ও হেলিকপ্টার অবতরণ নিষিদ্ধ করেছেন। নির্দেশ অমান্যকারীদের গ্রেপ্তার করা হবে। আধ্যাত্মিক ধর্মীয় গোষ্ঠী নিউ এজ মুভমেন্টের সদস্য ও অজ্ঞাত উড়ন্ত বস্তু (ইউএফও) পর্যবেক্ষণকারীদের প্রতি বিশেষ নজর রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তবে অনেকেই বলছেন, পর্বতটি বন্ধ করে দেওয়ার কারণ অন্য। সম্প্রতি সেখানে কয়েক ডজন ‘অজ্ঞাত উড়ন্ত বস্তুর’ দেখা মিলেছে। সে ব্যাপারে তদন্ত করার জন্যই কর্তৃপক্ষ এ উদ্যোগ নিয়েছে। এদিকে নতুন ঘোষণাকে কেন্দ্র করে এক শ্রেণীর লোক ব্যবসাও ফেঁদে বসেছে। তারা অত্যন্ত চড়াদামে পোস্টার, ফটোগ্রাফসহ বিভিন্ন স্মারক বিক্রি করছে অত্যন্ত চড়ামূল্যে। স্থানীয় পুলিশ এ ব্যবসায়ীদের দমনের চেষ্টা চালচ্ছে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, ওই এলাকার জমি বা বাড়ির মালিকরা চড়ামূল্যে তাদের জমি-বাড়ি ভাড়া দিচ্ছে। এক বাড়িওয়ালা বুগারাসের ঢালে তাঁর চার বেডরুমের একটি বাড়ির জন্য প্রতি রাতের ভাড়া হেঁকেছেন দেড় হাজার ইউরো। আর একটি খালি মাঠে তাঁবুপ্রতি ভাড়া ধরা হয়েছে ৪০০ ইউরো করে। বুগারাস অদে কাউন্টির অন্তর্ভুক্ত এলাকা। অদের প্রশাসক এরিক ফ্রেসেলিনার্দ বলেন, ‘সাধারণ মানুষের সরলতার সুযোগ নিয়ে এক শ্রেণীর লোক চরম বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির মাধ্যমে বাণিজ্যের চেষ্টা করছে।’ কর্তৃপক্ষ কথিত ওই ধর্মীয় গোষ্ঠীর ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছে। আতঙ্কিত না হওয়ার জন্য প্রচারও চালানো হচ্ছে। ১৯৯৫ সালে আল্পস পর্বতে গণ-আত্মাহুতির মতো ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঠেকাতে কর্তৃপক্ষ সতর্ক রয়েছে। সূত্র : টেলিগ্রাফ।




Leave a Reply

Your email address will not be published.



পুরানো সংবাদ সংগ্রহ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০  
All rights reserved © shirshobindu.com 2022