প্রযুক্তি আকাশ

বাজারে এল আইফোন ফাইভ (ভিডিও)

নোমান আহমদ: অ্যাপলের তৈরি নতুন সংস্করণের আইফোনের নাম আইফোন-৫। প্রায় দুই বছরের বেশি সময় ধরে অ্যাপলের আইফোন ৫ আসছে এমন গুজব চলছিল। অবশেষে সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে সান ফ্রান্সিসকোর ইয়ারবা বুয়েনা সেন্টার ফর দ্য আর্টসে ১২ সেপ্টেম্বর একটি সংবাদ সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন পণ্যের ঘোষণা করে অ্যাপল। অনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করেন প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী টিম কুক। এ অনুষ্ঠানে অ্যাপলের নতুন পণ্য আইফোন ৫ এর ঘোষণা দেন ফিল শিলার। তিনি আইফোন ফাইভকে বিশ্বের সবচেয়ে পাতলা আইফোন হিসেবে অভিহিত করে জানালেন মাত্র ১১২ গ্রাম ওজনের এই ফোনটি ৪এস অপেক্ষা ২০% হালকা, ৭.৬ মিমি স্থূল। আইফোনটি তৈরি হয়েছে অ্যালুমিনিয়াম এবং গ্লাসে।
আইফোন-৫ এ রয়েছে ৪” ৩২৬ পিপিআই রেটিনা ডিসপ্লে যার রেজ্যুলুশন ১১৩৬x৬৪০। ফোনটির ডিজাইন নির্মাণে প্রেরণা হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে মানুষের হাত। কালার স্যাচুরেশন ৪৪% উন্নতি, এসআরজিবি রেন্ডারিং, সুপার ফাস্ট ওয়্যারলেস, রয়েছে এইচএসপিএ+২১ মেগাবিট পার সেকেন্ড, ডিসি-এইচএসডিপিএ ৪২ মেগাবিট, এলটিই, এজ। ভয়েস এবং ডাটার জন্য সিঙ্গল চিপ ব্যবহার করা হয়েছে।
এবার যে এলটিই প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে তা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, এশিয়া, ইউরোপ এর ফোর জি প্রযুক্তি সমর্থন করবে। রয়েছে ৮০২.১১ এ/বি/জি/এন, ডুয়েল চ্যানেল। সর্বোচ্চ গতি ১৫০ মেগাবিট পারসেকেন্ড।
আইফোন-৫ এ প্রসেসর হিসেবে এলো নতুন এ৬ প্রসেসর, গত প্রজন্মের প্রসেসর অপেক্ষা ২x দ্রুত, গ্রাফিক্স পারফরমেন্স ২x দ্রুত। প্রসেসরটি পূর্ব প্রজন্মের প্রসেসরগুলোর চাইতে ২২% ছোট হবার কারণে আইফোন ফাইভকে এতটা পাতলা করতে সক্ষম হয়েছে অ্যাপল, হয়েছে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী। এলটিই সহই আট ঘণ্টা কথা বলা সম্ভব হবে এই ফোন দিয়ে। আর যদি ওয়াইফাই ব্যবহার করেন তাহলে পাবেন ১০ ঘণ্টা কথা বলার নিশ্চয়তা।
আইফোন-৫ এ ব্যাকলিট ৮ মেগাপিক্সেল সেন্সর সাথে রয়েছে ৫ এলিমেন্ট লেন্স এবং এফ/২.৪ অ্যাপারচার। ছবি আগের থেকে ৪০% দ্রুত তোলা সম্ভব হবে, আর এর জন্য রয়েছে নতুন এ৬ ইমেজ প্রসেসর। ক্যামেরাটিতে প্যানারমিক মুড থাকায় অনেকগুলো ছবিকে জোড়া দিয়ে ২৮ মেগাপিক্সেলের ছবি তৈরি করা সম্ভব হবে। পেছনের ক্যামেরাটি ব্যবহার করে ১০৮০পি ভিডিও এবং সামনের ক্যামেরাটি ব্যবহার করে ৭২০ পি তোলা সম্ভব।
আইফোন-৫ এর হাত ধরে এলো নতুন কানেক্টর নাম লাইটনিং এবং পূর্বের কানেক্টর অপেক্ষা ৮০% ছোট্ট। সাদা এবং কালো এই দুই রঙে পাওয়া যাবে আইফোন ফাইভ।
আইফোন-৫ মডেলের হাত ধরে বিশ্বপ্রযুক্তিতে ‘ন্যানো-সিম’ এর আর্বিভাব হয়েছে। এ ছাড়াও আছে ১৯ পিনের পাওয়ার এবং কেন্দ্রীয় সংযোগ ব্যবস্থা (কানেক্টর)। এর আগে ২০০৩ সালে থার্ড জেনারেশন আইপডে ৩০ পিনের আধুনিক প্রযুক্তির আর্বিভাব হয়।
অ্যাপলই হবে বিশ্বের প্রথম ‘ন্যানো সিমকার্ড’ উদ্ভাবিত প্রতিষ্ঠান। এরই মধ্যে অ্যাপল, নকিয়া এবং ব্ল্যাকবেরি নির্মাতা রিম চিপকার্ড ব্যবহারযোগ্য করে সেট তৈরি করেছে। তবে এখনও এসব সেট ভোক্তাদের নাগালে আসেনি।
আইফোন ফাইভে থাকছে নতুন আইওএস ৬। এই ওএসএ নতুন বৈশিষ্ট্য হিসেবে অ্যাপলের থ্রিডি ম্যাপস অ্যাপ্লিকেশন যার সাথে থাকছে সিরি ন্যাভিগেশন সুবিধা থ্রিডি বিল্ডিং ভিউ এবং স্যাটেলাইট ইমেজ সুবিধা। সাফারিতে থাকছে ফুল স্ক্রিন মোড। এছাড়া সামান্য কিছু পরিবর্তন আনা হয়েছে নতুন এই ওএস। নতুন ওএসে সিরির আরো উন্নয়ন করা হয়েছে।
১৯ সেপ্টেম্বর থেকে নতুন এই ওএসটি ডাউনলোড করা যাবে। নতুন ওএসটি ৩জিএস, ফোর, ফোরএস, আইপ্যাড ২, দি নিউ আইপ্যাড এবং আইপড টাচ সমর্থন করবে।
আইফোন ফাইভ ১৬ গিগাবাইট মডেলের মূল্য $১৯৯ মার্কিন ডলার, ৩২ গিগাবাইট $২৯৯ মার্কিন ডলার এবং ৬৪ গিগাবাইটের মূল্য $৩৯৯ মার্কিন ডলার হিসেবে ধার্য করা হয়েছে। এই মূল্য এক বা দুই বছরের কন্ট্রাক্টের উপর ভিত্তি করে বলা হয়েছে।
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, জার্মানি, ফ্রান্স, অস্ট্রলিয়া, জাপান, হংকং এবং সিঙ্গাপুরের বাজারে আইফোন ফাইভ ২১ সেপ্টেম্বর থেকে পাওয়া যাবে। তবে প্রাক-অর্ডার দেয়া যাবে ১৪ সেপ্টেম্বর থেকেই। এবং আগামী মাসে আরো ২০টি দেশে আইফোন ফাইভ ছাড়া হবে বলে জানিয়েছে অ্যাপল।
[youtube id=”u5X5cV-4LRo” width=”600″ height=”350″]

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close