বিনোদন

সবুজ ছায়ার শ্রীমঙ্গল

ঢাকা থেকে রেল ও সড়ক পথে শ্রীমঙ্গল যাওয়া যায়। ঢাকার ফকিরাপুল ও সায়দাবাদ থেকে হানিফ এন্টারপ্রাইজ, শ্যামলী পরিবহন, সিলেট এঙপ্রেস, টি আর ট্রাভেলস ইত্যাদি বাস যায় শ্রীমঙ্গল। ঢাকা থেকে ট্রেনেও যাওয়া যায় শ্রীমঙ্গল। ঢাকার কমলাপুর থেকে মঙ্গলবার ছাড়া সপ্তাহের প্রতিদিন সকাল ৬টা ৪০ মিনিটে ছেড়ে যায় আন্তঃনগর ট্রেন পারাবত এঙপ্রেস, দুপুর ২টায় প্রতিদিন ছাড়ে জয়ন্তিকা এঙপ্রেস এবং বুধবার ছাড়া সপ্তাহের প্রতিদিন রাত ১০টায় ছাড়ে উপবন এঙপ্রেস। চট্টগ্রাম থেকে সোমবার ছাড়া সপ্তাহের প্রতিদিন সকাল ৮টা ১৫ মিনিটে যায় পাহাড়িকা এঙপ্রেস এবং শনিবার ছাড়া প্রতিদিন রাত ৯টায় উদয়ন এঙপ্রেস।
শ্রীমঙ্গলে এসে প্রথমেই দেখুন চা বাগান। মাইলের পর মাইল এখানে রয়েছে বিস্তীর্ণ বাগান। বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়ানোর সময় চারিদিকে চোখে পড়বে শুধুই চা বাগান আর চা বাগান। পছন্দসই যে কোনো বাগানে কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে দেখতে পারেন। চা পাতা তোলার মৌসুম এখন শেষের দিকে। কোনো কোনো বাগানে চা বাগানের শ্রমিকদের কর্মব্যস্ততা তাই চোখে পড়তে পারে।
চা বাগান দেখে চলুন দেশের একমাত্র চা গবেষণা ইনস্টিটিউটটি (বিটিআরআই) শ্রীমঙ্গল শহরের পাশেই। বিশাল চা বাগানের মাঝে বিটিআরআই-এর ক্যাম্পাসটি সবারই ভালো লাগবে। এখানে আছে চা পরীক্ষার ল্যাবরেটরি, বিটিআরআই উদ্ভাবিত বিভিন্ন প্রজাতির চা গাছ, ভেষজ উদ্ভিদের বাগান, পুরোনো চা গাছ। তবে এসব দেখতে হলে কর্তৃপক্ষের অনুমতি লাগবে।
কোথায় থাকবেন
শ্রীমঙ্গলে থাকার জন্য হোটেল হলো হবিগঞ্জ সড়কে টি টাউন রেস্ট হাউস, কলেজ রোডে হোটেল প্লাজা। এ ছাড়াও শহরে সাধারণ মানের কিছু আবাসিক হোটেল আছে। শ্রীমঙ্গল শহরে খাবার জন্য সবচেয়ে ভালো রেস্তোরাঁ হলো কুটুমবাড়ি। এখানকার খাবারের মান বেশ ভালো, তবে দামটাও একটু বেশি।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close