Featuredস্বদেশ জুড়ে

মানবতাবিরোধীদের সারা দেশে হরতালে পালিত

 

জামায়াতে ইসলামী সারা দেশে সকাল সন্ধ্যা এই হরতাল ডাকলেও একাত্তরে বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরোধিতাকারী এ দলটির কর্মসূচি প্রত্যাখ্যান করে স্বাভাবিক কর্মকাণ্ড চালিয়ে যেতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানানো হয় শাহবাগের গণজাগরণ মঞ্চ থেকে।

সোমবার রাজধানীর কয়েকটি স্থানে বিক্ষিপ্ত মিছিল ও গাড়ি ভাংচুরের চেষ্টা ছাড়া জামায়াত কর্মীদের তেমন কোনো তৎপরতা চোখে পড়েনি। তবে সকালে জামায়াত-শিবির কর্মীদের ধাওয়ায় বাড্ডায় একটি হিউম্যান হলার উল্টে এক যাত্রী নিহত হন। সকাল থেকেই রাজধানীতে রিকশা, অটোরিকশা ও অভ্যন্তরীণ রুটের বাস চলতে দেখা যায়। হরতালের মধ্যেও প্রাইভেট কার নিয়ে বের হন অনেকে। রাজধানী ছেড়ে যায় দূরপাল্লার কিছু পরিবহনও, অন্য সময় হরতালে যা দেখা যায় না।

সকালে রাজধানীর সদরঘাটের ওয়াইজ ঘাট এলাকায় জামায়াত-শিবিরকর্মীরা হরতালের সমর্থনে মিছিল বের করলে তাতে ধাওয়া দেয় শ্রমিক লীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় বিক্ষুব্ধ জনতা মিছিল থেকে দুই জনকে পিটিয়ে পুলিশে দেয়। তারা  নিজেদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের এবং মহসীন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজনীতি বিজ্ঞানের ছাত্র বলে দাবি করেছেন। হরতালের মধ্যে পুলিশ গাড়ি দেখে দৌঁড় দিলে শ্রমিক লীগের কর্মীরা তাদের ধরে নিয়ে পুলিশের কাছে দেয়।

যাত্রাবাড়ীর রায়েরবাগ ও ঢলপুর নতুন রাস্তায় জামায়াত-শিবির কর্মীরা একটি মিছিল বের করে। এ সময় পুলিশ ধাওয়া দিলে তারা পালিয়ে যায়। ফায়ার সার্ভিসের মহাখালী স্টেশন কর্মকর্তা আতাউর রহমান জানান, মহাখালীতে টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধের চেষ্টা করে হরতাল সমর্থকরা। কিন্তু পুলিশের ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যায় তারা।

নগরবাসীর নিরাপত্তায় বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েনের পাশাপাশি আগের রাত থেকেই টহল শুরু করে বিজিবি সদস্যরা। হরতাল আহ্বানকারীদের তেমন দেখা না গেলেও সকাল থেকেই রাজধানীর কারওয়ানবাজার, মগবাজার, মহাখালী, পল্টন, মতিঝিল, সদরঘাটসহ বিভিন্ন স্থানে হরতালবিরোধী মিছিল করে আওয়ামী লীগ ও বিভিন্ন সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এ সব মিছিল থেকে হরতাল প্রত্যাখ্যানের পাশাপাশি যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসি ও জামায়াতে ইসলামীকে নিষিদ্ধের দাবি জানানো হয়।

সিলেটেও হরতাল পালিত

সোমবারের হরতালে সিলেট নগরীতে  বিচ্ছিন্নভাবে কিছু রিকশা ও অটোরিকশা চলাচল করলেও সকালে ভারী যানবাহন চলাচল করতে দেখা যায়নি। ব্যাক্তি নিরাপত্তা চিন্তা করে দোকানপাট প্রায় বন্ধ ছিল। কড়া নিরাপত্তার বেষ্টনি ছিল পুরো সিলেট নগরী। জেলা প্রশাসক খান মোহাম্মদ বিল্লাল বলেন, সিলেটবাসী সোমবার যাতে পুরো দৈনন্দিন কাজ চালিয়ে যেতে পারেন সেক্ষেত্রে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় নগরীতে রাব ও পুলিশের পাশাপাশি রাস্তায় টহল দিবে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) সদস্যরা।

বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনার মধ্যে সকাল সাতটায় নগরীর ওসমানী মেডিকেল কলেজের সামনের সড়কে হরতালের সমর্থনে ঝটিকা মিছিল বের করে জামায়াত-শিবির। তারা সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে হরতালের সমর্থনে বিক্ষোভ করে এবং তিনটি আটোরিকশা ও একটি প্রাইভেটকার ভাংচুর করে। পিকেটাররা কয়েকটি হাতবোমা ফাটিয়ে দ্রুত ঘটনা স্থল ত্যাগ করে।

এদিকে সিলেট থেকে সকালে দূরপাল্লার কোনো বাস ছেড়ে যায়নি। তবে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে বলে জানান সিলেট রেলওয়ে স্টেশনের ম্যানেজার আবুল কালাম আজাদ।

 

বন্দর নগরী চট্রগ্রামে হরতাল পালিত

শাহবাগের আন্দোলনের সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করে চট্টগ্রামের আন্দোলনকারীরাও জামায়াত-শিবিরের হরতাল প্রতিহত করার ঘোষণা দেয়।  সোমবার সকাল থেকেই নগরীর ষোলশহর, ডিসি হিলসহ কয়েকটি স্থানে জামায়াত-শিবির কর্মীরা ঝটিকা মিছিল ও টায়ার জ্বালানোর চেষ্টা করলেও পুলিশের বাধায় তেমন সুবিধা করতে পারেনি।

ভোরে নগরীর বিভিন্ন সড়কে ভারি যানবাহন চলাচল কম দেখা গেলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সংখ্যা বাড়তে দেখা গেছে। চট্টগ্রাম রপ্তানি প্রক্রিয়াজাতকরণ এলাকাসহ নগরীর বিভিন্ন এলাকায় অবস্থিত তৈরি পোশাক কারখানাগুলোতে কাজ চলছে। এছাড়া চট্টগ্রাম বন্দরের সকলপ্রকার কার্যক্রম স্বাভাবিক রয়েছে।

নগরীতে ব্যাংক-বীমাসহ সহ বিভিন্ন প্রকার সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে কার্যক্রম স্বাভাবিক রয়েছে। বেশ কয়েকটি স্কুল কলেজ খোলা রয়েছে যেগুলোতে শিক্ষার্থী উপস্থিতির সংখ্যাও উল্লেখযোগ্য। হরতালে চট্টগ্রাম থেকে দূরপাল্লার বাস না ছাড়লেও ট্রেন ও বিমান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।

সমুদ্রের দেশ কক্সবাজারে হরতাল পালিত:

কক্সবাজারে সহিংসতায় হতাহতের ‘প্রতিবাদে’ সারা দেশে সকাল সন্ধ্যা এই হরতাল ডেকেছে জামায়াতে ইসলামী, একাত্তরে বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরোধিতা ও মানবতা বিরোধী কর্মকাণ্ডের জন্য যে দলটিকে নিষিদ্ধের দাবি জোরালো হয়ে উঠেছে সারা দেশে। ডিসি হিল এলাকায় মোটরসাইকেলসহ মহসিন কলেজের শাখা ছাত্র শিবিরের সভাপতি নাসির উদ্দিন ও শিবিরকর্মী রাশেদকে পুলিশ আটক করেছে।

এছাড়া কক্সবাজারে একটি রোগীবাহী মাইক্রোবাসে জামায়াত-শিবির কর্মীরা ভাংচুর চাললে গাড়ির ভেতরেই হার্ট অ্যাটাকে সাথে সাথেই মারা যান ওই মাইক্রোবাসে বহনকারী রোগী।

 

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close