ঘর মন জানালা

কম ঘুম শরীরের জন্য ক্ষতিকর

ব্যস্ত জীবনে ব্যস্ত ব্যাক্তি এতই ব্যস্ত হয়ে ওঠেন যে কোন কোন দিন মাত্র দুই বা তিন ঘণ্টা ঘুমিয়েই কাজে বেরিয়ে পড়েন। ব্যস্ততার জন্য একটু আয়েশ করে ঘুমানোর ফুরসৎ পান না । শরীরের ওপর বয়ে আসে বিভিন্ন ধরনের রোগ। যা ধীরে ধীরে প্রতিলক্ষিত হয় আক্রান্ত বিভিন্ন ধরনের রোগের প্রতিলক্ষনে।

আর এ ব্যাপারে উদ্বেগের কথা জানান যুক্তরাজ্যের গবেষকরা। তারা বলেছেন, যথেষ্ট পরিমাণ ঘুমাতে না পারলে কাজ করার ক্ষেত্রে শরীরের স্বাভাবিক সক্ষমতা বিনষ্ট হয়। ভেঙে পড়ে স্বাস্থ্য। শরীরের গঠনেও আসে বিভিন্ন পরিবর্তন। ইউনিভার্সিটি অব সুরি’র গবেষকরা জানান, সপ্তাহে দৈনিক কমপক্ষে ছয় ঘণ্টার কম ঘুমালে শরীরের কয়েকশ’ জিনের স্বাভাবিক কার্যপ্রণালীতে নাটকীয় পরিবর্তন ঘটে।

শরীরে প্রোটিন তৈরির কাজে নিয়োজিত এসব জিনগুলোর অস্বাভাবিক পরিবর্তন শারীরিক রসায়নকে ক্ষতিগ্রস্থ করে স্বাস্থ্যহানি ঘটিয়েছে। গবেষণা দলের প্রধান ও ইউনিভার্সিটি অব সুরি’র অধ্যাপক কলিন স্মিথ বলেন, “অপর্যাপ্ত ঘুমের কারণে বিভিন্ন ধরনের জিনের কার্যক্ষেত্রে নাটকীয় পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়।” স্মিথ উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, “এসব জিনের অস্বাভাবিক পরিবর্তন শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা নষ্ট করে দেয়। ব্যাপকভাবে প্রভাব ফেলে শরীরের অন্যান্য অংশের কার্যনিয়মে।” পর্যাপ্ত ঘুম যেকোনো কাজে মনযোগী হতে সহায়তা করে উল্লেখ করে স্মিথ পরামর্শ দিয়ে বলেন, “যেহেতু পরিষ্কার ঘুম শরীরে ইতিবাচক প্রভাব ফেলে সেহেতু পর্যাপ্ত ঘুমের দিকেই আমাদের নজর দেওয়া উচিত।”

‘প্রসিডিং অব দ্য ন্যাশনাল অ্যাকাডেমি অব সাইন্সেস’ এর একটি জার্নালে প্রকাশিত গবেষণায় তারা ব্যাখ্যা করে দেখিয়েছেন, চাহিদানুযায়ী কম ঘুমালে স্বাস্থ্যের ক্ষতি হয়। গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়, অপর্যাপ্ত ঘুম হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, স্থুলতাবৃদ্ধি ও মস্তিষ্কের কার্যপ্রণালীর ব্যাপক ক্ষতি করে। এক সপ্তাহে দৈনিক কমপক্ষে ছয় ঘণ্টা করে ঘুমানো ২৬ ব্যক্তির স্বাস্থ্যের সঙ্গে এক সপ্তাহে ছয় ঘণ্টার কম ঘুমানো ব্যক্তির স্বাস্থ্যের তুলনা করে গবেষকরা দেখেছেন, কম ঘুমানো ব্যক্তির শরীরের সাতশ’রও বেশি জিনের স্বাভাবিক কার্যপ্রণালীতে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

আরও দেখুন...

Close
ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close