গ্যালারী থেকে

প্রাইম ব্যাংকের সহায়তায় চলছে জেলা ফুটবল লীগ

 

 

 

 

 

 

 

 

জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের (ডিএফএ) প্রেসিডেন্টদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় বাফুফের জেলা ফুটবল লীগ কমিটির চেয়ারম্যান মনজুর কাদের বলেন, প্রাইম ব্যাংকের ছোঁয়ায় জেগে উঠেছে জেলার ফুটবল লীগ। বেসরকারি ব্যাংকটির অর্থায়নে ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে চার জেলার ফুটবল লীগ এখনো চলছে ৮ জেলায়। চলতি মাসে ১৯ জেলায়, এপ্রিলে ৪ জেলায়, মে-তে ৩ জেলায় ও জুনে শুরু হবে আরও ৫ জেলার ফুটবল। বাকিরাও শুরুর প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে তিনি জানান।

এ সভাতেই ডিএফএ-র সহযোগিতা পেলে ভিশন-২০২২ বাস্তবায়ন না হলেও, তার আশপাশে যাওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেন বাফুফে সভাপতি কাজী মো. সালাউদ্দিন। দ্বিতীয় দফা দায়িত্ব নিয়ে জেলার ফুটবলে মনোনিবেশ করেন বাফুফে সভাপতি। শেখ জামাল প্রেসিডেন্ট মনজুর কাদেরের তত্ত্বাবধায়নে শুরু হয় এর পথচলা। জেলা ফুটবল লীগ কমিটির পাশে এসে দাঁড়ায় প্রাইম  ব্যাংক।

২০১২ সালের ৮ই নভেম্বর রূপসী বাংলা হোটেলে জেলা ফুটবল লীগ কমিটি ও প্রাইম ব্যাংকের মধ্যে সেতু বন্ধনের কথা আনুষ্ঠানিকভাবে জানান কাজী মো. সালাউদ্দিন। ওইদিনই  ‘ভিশন-২০২২’  ঘোষণা করেন বাফুফে বস। লক্ষ্য ২০২২ সালের কাতার বিশ্বকাপ। এ লক্ষ্য পূরণে কাজ শুরু করে জেলা ফুটবল লীগ কমিটি। বাফুফের দেয়া ৩ লাখ টাকার অনুদানে শুরু হয় জেলার ফুটবল। যা তদারকি করতে প্রাইম ব্যাংকের চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম মোল্লাকে সঙ্গে নিয়ে জেলায় জেলায় সফর করেন জেলা ফুটবল লীগ কমিটির চেয়ারম্যান মনজুর কাদের। মাঝপথে আবার ডিএফএ সভাপতিদের ঢাকায় তলব করে তার কমিটি। খোলামেলা আলাপচারিতায় শোনেন তাদের সুখ-দুঃখের কথা। ফুটবলের উন্নয়নে সবার সহযোগিতা চান মনজুর কাদের।

তিনি বলেন, ফুটবলের জন্য কাজ করতে বাফুফে নির্বাহী কমিটিতে থাকতে হবে এমন নয়, বাইরে থেকেও যে ফুটবল উন্নয়নে কাজ করা যায় তিনিই তার বড় প্রমাণ। গতকাল হোটেল পূর্বানীতে অনুষ্ঠিত এমন এক মতবিনিময় সভায় খোলামেলা কথা বলেন বাফুফে সভাপতিও। এবার যেমনই হোক আগামী বছর থেকে সেপ্টেম্বরে একযোগে লীগ আয়োজনের অনুরোধ করেন তিনি।

ডিএফএ প্রেসিডেন্টদের কাছে অনুরোধ করে সালাউদ্দিন বলেন, দয়া করে কেউ দায়সারাভাবে লীগ আয়োজন করবেন না। প্রয়োজনে সময় নিন, আমাদের সহযোগিতা নিন, তারপর লীগ শুরু করুন। আমরা আপনাদের সব ধরনের সহযোগিতা করতে প্রস্তুত রয়েছি।’ তার আশা ডিএফএগুলো যদি বাফুফে-কে ঠিকভাবে সহযোগিতা করে, তবে কাতার বিশ্বকাপ না হলেও তার আশা পাশে যেতে পারবে বাংলাদেশ। বাফুফে সভাপতির কথা আশান্বিত নড়াইল ফুটবল এসোসিয়েশনের সভাপতি ও বাংলাদেশ অলিম্পিক এসোসিয়েশনের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব আশিকুর রহমান মিকুও।

তিনি বলেন, ফুটবল ফেডারেশনের সঙ্গে আমাদের যে গ্যাপ ছিল তা মিটে গেছে। বাফুফের মনিটরিংয়ে জেলার ফুটবল প্রাণ ফিরেছে, এটা গোটা ফুটবলের জন্য ইতিবাচক। ডিএফএ-র প্রতিনিধিদের উদ্দেশে মিকু বলেন, জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের ভেবে নিলে চলবে না বাফুফে আমাদের সবকিছু করে দেবে। তারা আমাদের অর্থ ও লজিস্টিক কিছু সহযোগিতা করতে পারে, বাকিটুকু আমাদের নিজেদেরই করতে হবে।

প্রাইম ব্যাংকের দেয়া ৩ লাখ টাকার অনুদান সকল জেলার জন্য পর্যাপ্ত নয় উল্লেখ করে চট্টগ্রাম জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সভাপতি আ জ ম নাসির বলেন, বাফুফে থেকে অর্থ দেয়া হয় তা সব জেলার জন্য পর্যাপ্ত নয়। তাই যেসব জেলা নিজেরা অর্থ যোগান দিয়ে লীগ আয়োজন করতে পারবে, তাদের অনুদান কমিয়ে অন্য জেলাগুলোকে বাড়িয়ে দিলে ভাল হয়। তিনি জেলা ফুটবল এসোসিয়েশন ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার মধ্যে সমন্বয়ে বাফুফের সহযোগিতা চান।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close