ঘর মন জানালা

পুষ্টিগুণ ভরপুর কাঁচা আম

আগেকার দিনে অনেকেই বাচ্চাদের কাঁচা আম খেতে দিতেন না। কাঁচা আমে নানা ধরনের রোগ হয় এমন ধারণাই সে সময়ে মনে পুষে রাখতেন। এখন দিন পাল্টেছে।ধারণাও পাল্টেছে সবার। এখন কাঁচা আমের জুস, আচার আরও কত কি মানুষ খেতে পছন্দ করেন। কাঁচা আমের গুণাগুণ বিশ্লেষণ করতে গেলে অনেক কথাই বলতে হয়।

এই সম্পর্কে জানাচ্ছেন অ্যাপোলো হাসপাতালের পুষ্টিবিদ ডা. তামান্না।

কাঁচা আমের উপকারিতা * ভিটামিন সমৃদ্ধ ও মিনারেলে ভরপুর। * ক্যারোটিন ও ভিটামিনে সমৃদ্ধ কাঁচা আম চোখ ভাল রাখার জন্য দরকার। বিটা ক্যারোটিন থাকায় হৃৎপিন্ডের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে। * ভিটামিন বি-১ ও ভিটামিন-২ ভাল পরিমাণে রয়েছে। * ক্যালসিয়াম ও আয়রন রয়েছে। * পরিশ্রমী বা নিয়মিত ব্যায়াম করার অভ্যেস থাকলে কাঁচা আম খেতে পারেন। পটাশিয়ামের অভাব পূরণ করতে পারে। * পটাশিয়াম ও ম্যাগনেশিয়াম প্রচুর পরিমাণে থাকায় অ্যাসিডিটি বা অম্বল, পেশি সংকোচন, মানসিক চাপের ফলে তৈরি শারীরিক সমস্যায় উপকারী। * কাঁচা আমে প্রচুর পরিমাণে আয়রন থাকায় তা অ্যানিমিয়া বা রক্তাল্পতা সমস্যায় বেশ উপকারী। রোগ প্রতিরোধ * ফাইবার বা আঁশ সমৃদ্ধ হওয়ায় কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে। এছাড়া কোলন বা মলাশয়ে ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে। * কলেরা, রক্তাল্পতা ও যক্ষা প্রতিরোধে সাহায্য করে। * ভিটামিন সি সমৃদ্ধ হওয়ায় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলে ও গরমের সময় সর্দিগর্মি থেকে রক্ষা করে। * আমের বীজ শুকিয়ে চূর্ণ করে ডায়রিয়া সারাতে ব্যবহার করা হয়। * আমের পাতা ব্যবহার করে বহুমূত্ররোগের প্রকোপ কমানো যায়। * নিফ্রাইটিস বা বৃক্ক প্রদাহ এবং কিডনির সমস্যা সমাধানে সাহায্য করে। * নিঃশ্বাসের সমস্যা, জ্বরের সমস্যা উপশম করে। অন্যান্য উপকারিতা * যথেষ্ট পরিমাণ কার্বোহাইড্রেট রয়েছে। * অ্যালকালাইন জাতীয় খাবার হওয়ায় অ্যাসিডিটি উপশমে ভাল কাজ করে। * অ্যান্টি অক্সিডেন্ট সমৃদ্ধ হওয়ায় অ্যান্টি-ভাইরাস ও অ্যান্টি-ক্যান্সার উপাদান রয়েছে। * ত্বক উজ্জ্বল রাখতে আমের পাল্প বা আঁশ সাহায্য করে। * আম পাতলা করে কেটে ত্বকের ওপর কিছুক্ষণ রেখে মুখ ধুয়ে ফেলুন। রোমকূপের মুখ বন্ধ হয়ে যাওয়ার সমস্যা কমে যাবে। * কাঁচা আম শুকিয়ে তৈরি করা আমচূর গুঁড়া স্কার্ভি সারানোয় কার্যকর। যথেষ্ট পরিমাণে টাটকা শাকসবজি ও ফলমূল না খাওয়ার ফলে সৃষ্ট রক্তঘটিত রোগই হচ্ছে স্কার্ভি। * কাঁচা আমে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি আছে। এমনকি পাকা আমের তুলনায় কাঁচা আমে ভিটামিন সি বেশি পরিমাণে থাকে।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

আরও দেখুন...

Close
ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close