Featuredস্বদেশ জুড়ে

বিরোধী দলীয় সাংসদ পাপিয়ার বক্তব্যে সংসদে উত্তাপ

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

স্বদেশ জুড়ে ডেস্ক: বিরোধী দলের সৈয়দা আশিফা আশরাফী পাপিয়ার এক বক্তব্যকে কেন্দ্র করে রোববার কিছু সময়ের জন্য হলেও উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল সংসদ। বিরোধী দলীয় সাংসদ এ্যানি তার দলের সংসদ সদস্য আশরাফী পাপিয়াকে পয়েন্ট অব অর্ডারে কথা বলতে দিতেও স্পিকারকে অনুরোধ করেন। অনির্ধারিত আলোচনায় দাঁড়িয়ে পাপিয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কথা বললে সরকারি দলের সংসদ সদস্যরা প্রতিবাদমুখর হয়ে ওঠেন।

শুরুতেই উত্তপ্ত হয়ে উঠলো টানা দু’দিন পর শুরু হওয়া জাতীয় সংসদের মুলতবি অধিবেশন। রোববার বিকেল ৩টা ২৫ মিনিটে শুরু হওয়া অধিবেশনের শুরুতেই বিরোধী দলের ভারপ্রাপ্ত চিফ হুইপ শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী দাঁড়িয়ে গেলে স্পিকার তাকে কথা বলার অনুমতি দেন। এ্যানী এ সময় সংরক্ষিত আসনের সাংসদ আশিফা আশরাফী পাপিয়ার জন্য পয়েন্ট অব অর্ডারে কথা বলার সুযোগ চান। পাপিয়া দাঁড়িয়ে তারেক রহমানকে ফিরিয়ে আনার জন্য ইন্টারপোল ইস্যুতে সরকারের কড়া সমালোচনা শুরু করেন। তার বক্তব্যের সময় গোটা সংসদ উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।পাপিয়ার বক্তব্যের পরপর সরকার দলীয় সাংসদ ফজলে রাব্বি মিয়া পাপিয়ার পয়েন্ট অব অর্ডারের বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন।

বক্তব্যে এক পর্যায়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী দীপু মনিকেও আক্রমণ করেন বিরোধী সদস্য পাপিয়া। তাকে ‘হাইব্রিড’ নেতা হিসেবে আখ্যায়িত করেন তিনি। দলের জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যানের প্রশংসা করে পাপিয়া বলেন, তারেক রহমান পথে ঘাটে বৃষ্টিতে ভিজে রাজনীতি করেছেন। পাপিয়া বক্তব্যের সময়ই সরকারদলীয় হুইপ আ স ম ফিরোজ, স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবীর নানক, ফজলে রাব্বি মিয়া কথা বলতে স্পিকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। এক পর্যায়ে সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীও স্পিকারের দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা করেন। তবে স্পিকার শিরীন শারমিনকে এক্ষেত্রে মাইক বন্ধ না করে বিরোধী দলের প্রতি নমনীয় থাকতেই দেখা যায়।

সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য পাপিয়া তিন দিন আগে পয়েন্ট অফ অর্ডারে কথা বলতে দাঁড়ালেও তা বিধিসম্মত হয়নি উল্লেখ করে তাকে সুযোগ দেননি স্পিকার। এরপর বিএনপি ওয়াক আউট করে। তিনি বলেন, বিএনপি কারো কাছে মুচলেকা দিয়ে রাজনীতি করে না। সকলে জানে কারা মুচলেকা দিয়ে ‘৮৬ সালে নির্বাচনে অংশ নিয়েছিল। তারেক রহমান চিকিৎসার জন্যে বিদেশে রয়েছেন। তিনি কারো কাছে মুচলেকা দিয়ে রাজনীতি করেন না। বিরোধী দল সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীসহ সরকারি দলের সংসদ সদস্যরা ‘বিভ্রান্তিমূলক’ বক্তব্য দিচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন পাপিয়া। এ সময় তিনি বলেন, তারেক রহমানকে গ্রেপ্তারের কথা বলে নির্দলীয় সরকারের আলোচনার জন্যে বিরোধী দলীয় নেতার সন্তানকে এজেন্ডা হিসেবে দাঁড় করাতে চান প্রধানমন্ত্রী।

পাপিয়ার বক্তব্যের পরে ফজলে রাব্বী মিয়া বক্তব্য রাখার সুযোগ পান। তিনি বিরোধী দলের সংসত সদস্যের বক্তব্য এক্সপাঞ্জের দাবি জানিয়ে বলেন, এই বক্তব্য কার্যপ্রণালি বিধি অনুযায়ী হয়নি। এরপর আব্দুল মান্নান বলেন, পয়েন্ট অব অর্ডারের নামে সংসদ নেতা ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে নিয়ে ‘অশালীন’ বক্তব্য রেখেছেন বিরোধী দলের সংসদ সদস্য। আমি তার সমস্ত বক্তব্যের ধিক্কার জানাই, পাপিয়াকে পাল্টা উত্তর দেন সরকারদলীয় এই সংসদ সদস্য।

৮৩ দিন পর বাজেট অধিবেশনে ফেরা বিএনপির সংসদ সদস্যরা এদিন এম কে আনোয়ারের নেতৃত্বে সংসদে যোগ দেন। তাদের সঙ্গে অধিবেশন কক্ষে ঢোকেন এলডিপি সভাপতি অলি আহমদ ও জামায়াতের সংসদ সদস্য আ ন ম শামসুল ইসলাম। শুরুতে বিএনপির শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে গত ৫ জুন বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানকে নিয়ে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর ‘অসংসদীয়’ বক্তব্য এক্সপাঞ্জের দাবি জানান। এ্যানি অভিযোগ করেন, দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় বিরোধী দলের সদস্যদের প্রতি বৈষম্য করছে। টিআর, কাবিখার বরাদ্দ বিরোধী দলের সদস্যদের এলাকায় দেয়া হচ্ছে না। পরে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, মন্ত্রীর বক্তব্যে অসংসদীয় কিছু থাকলে পরীক্ষা করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রায় মিনিট বিশেক পর প্রশ্নোত্তর পর্ব শুরু হলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। মহাজোট সরকারের এই শেষ বাজেট অধিবেশনে বিএনপির নেতৃত্বাধীন্ বিরোধী দল যোগ দেয় ৩টা ২৩ মিনিটে। বিকেল ৩টা ২৫ মিনিটে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অধিবেশন শুরু হয়। তবে অধিবেশন শুরুর আগেই সংসদ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর তাদের আসনে অবস্থান নেন।

চলমান সংসদের ১৮তম এই অধিবেশনের চতুর্থ কার্যদিবসে গত বৃহস্পতিবার ২ লক্ষ ২২ হাজার ৪৯১ টাকার বাজেট পেশ করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। আগামী ৩০ জুন প্রস্তাবিত এ বাজেট পাশ হবে।

 

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close