Featuredস্বদেশ জুড়ে

জিএসসি নির্বাচন: গাজীপুরে ফল পক্ষে নিতে কৌশলী আওয়ামীলীগ

 

 

 

 

 

 

 

 

শীর্ষবিন্দু নিউজ: চার সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ব্যপক ভরাডুবির পর পরাজয়ের ব্যবধান ৫-০ করতে চায় না আওয়ামী লীগ। সিটি নির্বাচনের মাঠে নেমেই ৪ গোল খেয়ে দিশেহারা আওয়ামী লীগ এখন তাই কৌশলী হয়ে উঠেছে। জাতীয় নির্বাচনের আগে অন্তত একটি গোল করতে চায় তারা। এবার তাই স্ট্রাইকার আজমত উল্লা খানকে বিজয়ী করে প্রতিপক্ষ বিএনপির জালে গোল পুরতে চাইছে সরকারি দল। তাকে সহযোগিতা করতে আটঘাঁট বেধে নির্বাচনী মাঠে দৌড়াচ্ছে পুরো দল।

চার সিটি করপোরেশন নির্বাচনে পরাজয়ের কারণ মাথায় রেখে ঢাকার উপকণ্ঠে কৌশলে হাঁটছে আওয়ামী লীগ। পরাজয়ের গ্লানি মুছতে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নিজ প্রার্থীকে জয়ী করতে সম্ভাব্য সকল কৌশল মাথায় রেখে এগোচ্ছেন দলের সিনিয়র থেকে শুরু করে মাঠ পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা। রাজশাহী, বরিশাল, সিলেট ও খুলনা সিটিতে মেয়র নির্বাচনে মহাজোট প্রার্থীদের পরাজয়ের প্রধান কারণ হিসেবে জাতীয় ইস্যুকে চিহ্নিত করেছেন বিশ্লেষকরা। বিশেষত নিত্যপণ্যের লাগামহীন মূল্য বৃদ্ধি, দুর্নীতি, দলীয়করণ এবং সরকারের শেষ সময়ে মতিঝিলে হেফাজতে ইসলামের সমাবেশের অভিযানকেই প্রাধান্য দেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি ওইসব সিটি মেয়রদের সঙ্গে তৃণমূল মানুষের দূরত্ব ও বিভাজনও পরাজয়ের কারণ হিসেবে ধরা হয়েছে। ক্ষমতাসীন মহাজোট সরকারের শেষ সময়ে জাতীয় নির্বাচনের আগে চার চারটি পরাজয় ভাবিয়ে তুলেছে আওয়ামী লীগকে। এজন্য সরকারের মেয়াদের শেষ মুহূর্তে গাজীপুর সিটি নির্বাচনকে জাতীয় নির্বাচনের জন্য একটি এসিড টেস্ট হিসেবে দেখছে ক্ষমতাসীন মহাজোট সরকার।

এছাড়া মহাজোটের মধ্যে ১৪ দলের নেতা-কর্মীদের বিভাজনও প্রভাব ফেলেছিল চার সিটিতে। সরকার ও আওয়ামী লীগ বিরোধী অপপ্রচার, সাধারণ মানুষের সঙ্গে দলের নেতা-কর্মীদের দূরত্ব, দলের মধ্যে অন্তর্দ্বন্দ্ব, সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে স্থবিরতা, মন্ত্রী-এমপি-নেতাদের সঙ্গে মাঠ পর্যায়ের কর্মীদের দূরত্ব, দলের নেতাকর্মীদের অধিক আত্মবিশ্বাস- এসব কারণেই তাদের জনপ্রিয়তা মারাত্মকভাবে কমে গেছে বলে ধারণা করছেন দলটির নীতি নির্ধারকরা। চার সিটিতে পরাজয়ের মধ্য দিয়ে দলের মাঠ পর্যায়ের বাস্তব চিত্রই উঠে এসেছে বলে তারা মনে করেন।

এদিকে, গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ফল সরকার তার সমর্থিত প্রার্থীর পক্ষে নিতে চেষ্টা করছে অভিযোগ করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। শুক্রবার সকালে এক আলোচনা সভায় মির্জা ফখরুল অভিযোগ করেন, গাজীপুর নির্বাচনে সরকার তার সমর্থিত প্রার্থীর পক্ষে ফলাফল নিতে স্থানীয় প্রশাসন ও পুলিশকে ব্যবহার করছে। এ কৌশল রুখতে নির্বাচন কমিশনকে শক্তভাবে দায়িত্ব পালনের আহবান জানিয়েছেন তিনি।

নির্দলীয় সরকারের দাবি মেনে নেয়ার আহবান জানিয়ে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, চার সিটি নির্বাচনে এই সরকারকে জনগন জানিয়ে দিয়েছে, তোমরা বিদায় হও, আর জগদ্দল পাথরের মতো বসে থেকো না। ৬ জুলাইয়ের এই নির্বাচনে সরকার নিজেদের পক্ষে ফল নেয়ার চেষ্টা করলে সেদিন থেকেই সরকার পতনের আন্দোলন শুরু হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন তিনি।

 

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close