দুনিয়া জুড়ে

সেনাবাহিনীর গুলিতে কায়রোয় নিহত শতাধিক

 

 

 

 

 

 

 

 

 

মিসরের রাজধানী কায়রোতে শনিবার ভোরে মুরসির সমর্থকদের ওপর সেনাদের গুলিবর্ষণের ঘটনায় শতাধিক লোক নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে এক হাজারেরও বেশি লোক। রয়টার্স, বিবিসি অনলাইন, আল জাজিরা ও টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে এ কথা জানানো হয়।

খবরে বলা হয়, গত বুধবার সেনাপ্রধান জেনারেল আবদেল ফাত্তাহ আল সিসি দেশবাসীর প্রতি সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর জন্য রাজপথে অবস্থান নেওয়ার আহ্বান জানান। এ আহ্বানে সাড়া দিয়ে গতকাল কায়রোর ঐতিহাসিক তাহরির স্কয়ারে অবস্থান নেয় বহু লোক। সেনা অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে ও মুরসির মুক্তির দাবিতে রাজধানীতে পাল্টা বিক্ষোভ-মিছিল করে মুরসির সমর্থকেরা। পাল্টাপাল্টি এ বিক্ষোভের একপর্যায়ে আজ ভোরে কায়রোর নাসর সিটিতে রাবা আল-আদাউইয়া মসজিদের ভেতর মুরসির সমর্থকদের অবস্থান কর্মসূচিতে গুলি ও কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোড়ে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। এতে ওই হতাহতের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থলে থাকা একজন চিকিত্সকের বরাত দিয়ে বিবিসির অনলাইন জানায়, কমপক্ষে ১০০ লোক নিহত ও এক হাজারের বেশি লোক আহত হয়েছে। ওই অবস্থান কর্মসূচিতে অনেক নারী ও শিশু ছিল বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে। মুসলিম ব্রাদারহুডের মুখপাত্র জেহাদ এল-হাদাদ রয়টার্সকে জানান, তাঁদের শান্তিপূর্ণ অবস্থান কর্মসূচিতে গুলি করা হয়েছে। তিনি দাবি করেন, আহত করতে নয়, বরং প্রাণে মেরে ফেলতেই এভাবে নির্বিচারে গুলি করা হয়েছে। মিসরের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ শহর আলেকজান্দ্রিয়ায় গতকাল মুরসির সমর্থক ও বিরোধীদের সংঘর্ষে ১০ জন নিহত হয়েছে।

হত্যা ও ষড়যন্ত্রের দায়ে অভিযুক্ত মুরসি

মিসরের ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসির বিরুদ্ধে হত্যা ও ফিলিস্তিনি সংগঠন হামাসের সঙ্গে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত থাকার অভিযোগ আনা হয়েছে।

অভিযোগে বলা হয়, ২০১১ সালে সাবেক প্রেসিডেন্ট হোসনি মোবারকবিরোধী আন্দোলনের সময় কায়রোর একটি কারাগারে যে বন্দুকধারীর হামলার ঘটনা ঘটেছিল, এতে মুরসির সম্পৃক্ততা রয়েছে। ওই হামলার পর মুরসিসহ মুসলিম ব্রাদারহুডের ৩০ জন নেতা কারাগার থেকে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হন। হামাসের সঙ্গে যোগসাজশের মাধ্যমে ওই হামলা চালানো হয়েছিল বলে অভিযোগ আনা হয়েছে। হামলায় ওই কারাগারের ১৪ জন রক্ষী নিহত হয়।

মুসলিম ব্রাদারহুড এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছে, এর মধ্যে রাজনৈতিক প্রভাব রয়েছে।

 

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close