অন্যান্য

ইতিহাসের প্রথম ‘টেস্টটিউব’ মাংসের স্বাদ মন্দ নয়

 

 

 

 

 

 

 

 

 

লন্ডনের ল্যাবরেটরিতে তৈরি বিশ্বের প্রথম টেস্টটিউব বার্গারটির স্বাদ নিয়েছেন দুই খাদ্য বিশেষজ্ঞ। বার্গারটির বিশেষত্ব মাংসের মধ্যে। গরুর স্টেম কোষ থেকে এ মাংস তৈরি করেছেন গবেষকরা। বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ৩ কোটি টাকা দামের বার্গারটির প্রতিটি টুকরা ইতিহাসের পাতায় এরই মধ্যে স্থান করে নিয়েছে। ১৪২ গ্রাম ওজনের ফ্র্যাঙ্কেনবার্গারটি খেয়ে পরীক্ষা করার সময় উৎসুক দর্শকরা মঞ্চের সামনে উপবিষ্ট ছিলেন। অনেকেই যেটা ভেবেছিলেন, বার্গারটি খাওয়ার পরই নেতিবাচক বেশ কিছু পয়েন্ট আসবে। কিন্তু আদতে কিন্তু সেরকমটা ঘটলো না। বরং, অনেকটা চমকের সঙ্গেই দুই খাদ্য বিশেষজ্ঞের রায় ছিল বেশ ইতিবাচক। এক বিশেষজ্ঞ বললেন, ‘পারফেক্ট কন্সিসটেন্সি’ বজায় রাখা রয়েছে বার্গারটিতে। তবে এর সঙ্গে একটু লবণ আর গোলমরিচ মেশালে স্বাদ আরও কিছুটা বাড়বে। খাদ্য বিশেষজ্ঞ হ্যানি রুয়েটজলার বলেন, আমি আরেকটু মসৃণ ও নরম মাংস আশা করেছিলাম। আমি জানি এতে কোন চর্বি নেই। তিনি বলেন, তাই আমি জানতাম না এটা ঠিক কতোটা মজার হবে। এটা মাংসের কাছাকাছি। তবে সেরকম মজার নয়। আরেকটু লবণ ও গোলমরিচ দিলে, মজাটা একটু বাড়বে বলে মনে করেন তিনি। বিজ্ঞানী অধ্যাপক মার্ক পোস্ট ২০ হাজার ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র টুকরাকে একত্রিত করে মাংসটি তৈরি করেছেন। একটি গরুর স্টেম কোষ থেকে মাংসের ক্ষুদ্র টুকরাগুলোকে ল্যাবরেটরিতে বিশেষভাবে তৈরি করেছেন তিনি। নেদারল্যান্ডসের মাসট্রিচট ইউনিভার্সিটিতে তিনি ও তার গবেষক দল অক্লান্ত পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর এ ঐতিহাসিক ও অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করেন। ভবিষ্যৎ পৃথিবীর মাংসের চাহিদা মেটানোই এ গবেষণার মূল উদ্দেশ্য।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close