Featuredব্রিকলেন টু জিন্দাবাজার

ব্যবসায়ীদের ধর্মঘটে হরতালের ন্যায় অচল সিলেট

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

শীর্ষবিন্দু সিলেট: সিলেটের নেহার মার্কেটে ডাকাতি ও নৈশপ্রহরী হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে ব্যবসায়ীদের ডাকা সকাল-সন্ধ্যা ধর্মঘটের কারণে নগরীতে হরতালের আমেজ বিরাজ করছে। নগরীর প্রধান এলাকা ছাড়াও বন্ধ রয়েছে পাড়া-মহল্লারও বেশিরভাগ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। রোববার সকাল থেকে নগরীর মার্কেট- বিপনী বিতান বন্ধ থাকার ফলে রাস্তায় গাড়ি চলাচলও রয়েছে খুব কম। জনসাধারণের চলাচলও অন্যদিনের তুলনায় অনেক কম। সম্প্রতি ঘটে যাওয়া কয়েক দফার দাবিতে এ ধর্মঘট পালন করছেন তারা।

এদিকে নগরীর জিন্দাবাজার স্বর্ণ মার্কেটে দুর্ধর্ষ ডাকাতি, নৈশপ্রহরী খুনের প্রতিবাদ ও ডাকাতদের গ্রেফতারসহ স্বর্ণালংকার উদ্ধারের দাবিতে সিলেট জেলা স্বর্ণ শিল্পী শ্রমিক ইউনিয়নের উদ্যোগে নগরীতে এক মৌন মিছিল বের হয়। রবিবার দুপুর সাড়ে বারোটায় নেহার মার্কেটের সম্মুখ থেকে মিছিলটি বের হয়ে শহীদ মিনার-কোর্টপয়েন্ট ঘুরে নেহার মার্কেটে এসে মৌন মিছিলটি শেষ হয়।

প্রসঙ্গত: গত বুধবার সন্ধ্যারাতে নগরের জিন্দাবাজার নেহার মার্কেটে বোমা ফাটিয়ে স্বর্ণের দোকানে লুটপাট চালায় দুর্বৃত্তরা। এ সময় ডাকাতদের গুলিতে মার্কেটের নৈশপ্রহরী নিহত ও ব্যবসায়ীসহ চারজন আহত হন। এ ঘটনার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সিলেটের সব মার্কেট বন্ধ রেখে ব্যবসায়ীরা রাজপথে বিক্ষোভ করেন। ব্যবসায়ীদের দাবি, প্রায় তিন কোটি টাকা মূল্যের স্বর্ণ লুট করে নেয় সশস্ত্র ডাকাত দল। ডাকাতির ঘটনায় শনিবার পর্যন্ত পুলিশ সন্দেহভাজন হিসেবে কবীর আহমদ ওরফে হেরোইন কবীর (৩৫) ও আবদুল জলিল ওরফে ফোকড়া জলিল (৩৩), ছাত্রদল নেতা নাহিদুল ইসলাম নাহিদ ওরফে কালা নাহিদ, ডাকাত ওমর আলী ও দুলাল নামের এক সন্ত্রাসীকে আটক করলেও ডাকাতি রহস্যের কোনো কূলকিনারা করতে পারেনি। আটককৃতদের মধ্যে নাহিদকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী ধর্মঘট চলাকালে দুপুর আড়াইটায় নগরীর কোর্ট পয়েন্টে বিক্ষোভ সমাবেশ শুরু হয়েছে। এ ব্যাপারে জেলা ব্যবসায়ী ঐক্য কল্যাণ পরিষদের সভাপতি শেখ মো. মকন মিয়া বলেন, সিলেটের ব্যবসায়ীরা নিরাপত্তাহীন হয়ে পড়েছেন। নেহার মার্কেটের ডাকাতির ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এখনো মূল হোতাদের গ্রেফতার করতে পারেনি। জড়িতদের গ্রেফতারের দাবিতে আজকের এই ধর্মঘট। তিনি বলেন, ব্যবসায়ীদের নিরাপত্তা বিধান ও ডাকাতির মূল হোতাদের গ্রেফতারে পুলিশ ব্যর্থ তাই সমাবেশ থেকে লাগাতার ধর্মঘট এবং হরতালসহ কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা আসতে পারে।

সিলেট জুয়েলার্স সমিতির সাধারণ সম্পাদক বাবুল আহমদ জানান, নেহার মার্কেটের এই ডাকাতির ঘটনায় স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা উদ্বিগ্ন। এর আগেও সিলেটে কয়েকটি স্বর্ণের দোকানে ডাকাতির ঘটনা ঘটলেও এখন পর্যন্ত কোনো ঘটনার সুরাহা হয়নি। উদ্ধার হয়নি লুণ্ঠিত মালামালও। এবার লুন্ঠিত স্বর্ণ উদ্ধার ও ডাকাতদের গ্রেফতার না হওয়া পর্যন্ত তাদের এ আন্দোলন চলবে বলে তিনি জানান।

 

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close