ব্রিকলেন টু জিন্দাবাজার

সিলেটে অবৈধ পশুর হাট ঠেকাতে মেয়রের এ্যাকশন

শীর্ষবিন্দু নিউজ: সিলেট নগরীর কয়েদির মাঠের পাশে রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় বসানো হয়েছে অবৈধ পশুর হাট। বিকালে বাজার ঘুরে দেখা গেল শতাধিক গরু নিয়ে সেখানে হাট খুলে বসা হয়েছে। মাইকিংও করা হচ্ছে। প্যান্ডেল বানিয়ে বসানো হয়েছে হাসিল। বেশ কয়েকজন যুবক ওখানে বসে গরু বিকিকিনির রশিদ লিখছে। এমন সময় ওই হাটের সামনে গিয়ে দাঁড়ালো সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর গাড়ি। মাইকে ঘোষণা দেয়া হলো- ওখানে কোন হাট নেই। গরু সরিয়ে ফেলুন। মেয়র আরিফ গাড়ি থেকে নেমে যেতেই ২৫-৩০ মানুষ তাকে ঘিরে ধরে।

পুলিশ সঙ্গে নেই। একাই ছুটে গেলেন অবৈধ পশুর হাটে। কিন্তু পারলেন না হাট মালিকদের উচ্ছেদ করতে। তবে, তাদের এক দিনের সময় দিয়েছেন। সিলেট প্রশাসনের বিতর্কিত ভূমিকার কারণে অসহায় হয়ে গেলেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

এসময় মেয়র আরিফ অভিযোগ করে বলেন, আমার সঙ্গে পুলিশ নেই। ম্যাজিস্ট্রেট নেই। কি ভাবে সরিয়ে দেয়া হবে ওদের? তিনি অবৈধ হাটবাজার কতৃপক্ষকে উদ্দেশ্য বলেন, এই সময়ের মধ্যে হাট সরিয়ে ফেলুন। অন্যথায় অ্যাকশন।

আরিফুল হক চৌধুরী অভিযোগ করলেন, ‘আমার সঙ্গে পুলিশ নেই। ম্যাজিস্ট্রেট নেই। কি ভাবে সরিয়ে দেয়া হবে ওদের?’

আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, এই হাট অবৈধ। এখান থেকে গরু সরিয়ে ফেলুন। এমন সময় কয়েকজন এগিয়ে এসে বলেন, ভাই আমরা ভুল করেছি। এবারের মতো মাফ করে দিন। কিন্তু মেয়র দমলেন না। বললেন, হাট থাকবে না। ওঠাতেই হবে। কোন আবদার মানবো না। এলাকার মানুষ বলে পরিচিত বেশ কয়েকজন এগিয়ে এসে মেয়রকে একটু ছাড় দেয়ার আবদার জানান।

এ সময় মেয়র বললেন, রাতে এ ব্যাপারে প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠক হবে। এরপর সিদ্বান্ত নেয়া হবে। অনুমতি নেই, বসলো অবৈধ হাট: প্রায় চার দিন আগে সিলেটে সংবাদ সম্মেলন করে মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী জানিয়েছিলেন, সিলেট সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে এবার কোন অবৈধ পশুর হাট বসানো হবে না। টি-টুয়েন্টি খেলার কারণে অর্থমন্ত্রীসহ ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের অনুরোধে এবার কোন পশুর হাট থাকবে না। এ কারণে মেয়র অবৈধ পশুর হাটের টেন্ডার বাতিল করে দিয়েছেন। কিন্তু ঈদ যত ঘনিয়ে আসছে সিলেটে অবৈধ পশুর হাট বসানো শুরু হয়েছে।

মেয়র বলেন, এবার ঈদের পরপরই সিলেটে খেলা। এ কারণে অর্থমন্ত্রী সহ ক্রীড়া মন্ত্রণালয় থেকে কোন হাট না বসানোর অনুরোধ করেন। এজন্য সিটি করপোরেশন থেকে পশুর হাটের টেন্ডার করার পর তা বাতিল করা হয় এবং অবৈধ পশুর হাট না বসাতে প্রতিদিন নগরীতে ৮ ঘণ্টা করে মাইকিং করা হয়।

তিনি বলেন, এবার সিটি করপোরেশন কোন হাটের অনুমতি না দিলেও কয়েদির মাঠে হাট বসানো হয়েছে। কে বা কারা তোরণ নির্মাণ করে সেখানে হাট বসিয়েছে। এ ব্যাপারে ওসিকে ফোন করা হলে মেয়র জানান, ওসি জানিয়েছেন তিনি অসহায়। এখানে কিছু করতে পারছেন না। এরপরও মেয়র বলেন, তিনি বসে নেই। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে প্রশাসনকে লিখিত ও মৌখিকভাবে জানানো হয়েছে।

মেয়র দাবি করেন, ওই অবৈধ হাটের সঙ্গে সিটি কাউন্সিলর মুনিম কিংবা মোস্তাক জড়িত নয়। তারা হাটের কাউকে প্রশ্রয় দিচ্ছেন না। সংবাদ সম্মেলনে মেয়র আরও অভিযোগ করেন, পুলিশ প্রশাসনের অসহযোগিতার কারণে নগরীর ট্রাফিক ব্যবস্থাও ভেঙে পড়েছে। মিসবাহ-কামরানের কাছে অভিযোগ: গতকাল বিকালে শহীদ মিনারে মেয়র আরিফের সঙ্গে দেখা হয় সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, জেলা পরিষদের প্রশাসক আব্দুজ জহির চৌধুরী সুফিয়ান ও উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদের।

মেয়র জানান, তিনি চারজনকে এক সঙ্গে পেয়ে বলেন, নগরীতে অবৈধ হাট উচ্ছেদ করতে প্রশাসন সহযোগিতা করছে না। প্রশাসন কারও কথা শুনছে না। মেয়রের এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে শহীদ মিনার এলাকা থেকেই কোতোয়ালি থানার ওসিকে ফোন করেন সাবেক মেয়র বদরউদ্দিন আহমদ কামরান। এ সময় তিনি ওসিকে নির্দেশ দেন, ‘যেসব অবৈধ হাট বসানো হয়েছে সেগুলো উচ্ছেদ করুন।’ এসব হাটের সঙ্গে তার কোন সম্পর্ক নেই বলেও জানান সাবেক মেয়র।

মাছিমপুরের কয়েদির মাঠের পাশে এবার বসানো হয়েছে এ পশুর হাট। ওই এলাকার আজাদ নামের এক ব্যক্তির নেতৃত্বে সরকারদলীয় লোকদের ছত্রছায়ায় এখানে এ হাট বসানো হয়েছে। এ খবর পেয়ে গতকাল বিকালে সেখানে আরিফুল হক চৌধুরী নিজেই ছুটে যান। পশুর হাট বসানোর কারণে ওই নির্মাণাধীন ক্রীড়া কমপ্লেক্সের পাশের পরিবেশে মারাত্মক প্রভাব দেখা দিয়েছে। এছাড়া পশুবাহী ট্রাকের কারণে যানজটে নাকাল হয়ে পড়েছে সিলেট।

কেবলমাত্র সিলেট নগরীর কয়েদির মাঠ সংলগ্ন এলাকায়ই পশুর হাট বসেনি নগরীর উপশহর, তেররতন, রিকাবীবাজার, সুবহানীঘাট সবজি বাজার এলাকায় পশু দাড় করিয়ে বিকিকিনি চলছে। সিটি মেয়র নিজেই সুবহানীঘাটের সবজি বাজার এলাকা পরিদর্শনকালে এসব অবৈধ হাটের মালিকদের সতর্ক করে দেন এবং গরু সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দেন। প্রশাসন কথা শুনছে না: সিলেটের প্রশাসন অনুরোধ রাখছে না বলে মন্তব্য করেছেন সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। গতকাল বিকালে তার বাসভবনে এক জরুরি প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এ অভিযোগ করেন।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close