অর্থনীতি

ঈদ ও পূজোয় সাড়ে ১৫ হাজার কোটি টাকার নতুন নোট বাজারে

শীর্ষবিন্দু নিউজ: পবিত্র ঈদুল আজহা ও পূজার আগে সাড়ে ১৫ হাজার কোটি টাকার নতুন নোট ছেড়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। যা গত বছরের একই সময়ে ছিলো ১৭ হাজার ২৫৮ কোটি টাকা। যদিও এ ঈদে ২২ হাজার কোটি টাকার নতুন নোট বাজারে ছাড়ার প্রস্তুতি ছিলো। বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো কেন্দ্রীয় ব্যাংকে রক্ষিত হিসাব থেকে এসব অর্থ নিয়ে থাকে। এবারে ছাড়া নতুন নোটের মধ্যে ব্যাংকগুলো গতকাল নিয়েছে মাত্র ৪৫০ কোটি টাকা।

আর গত সপ্তাহের সোমবার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত গড়ে ১২০০ কোটি টাকা করে নিয়েছিলো। এর আগে গত রোজার ঈদে ১৭ হাজার কোটি টাকা নিয়েছিলো বিভিন্ন ব্যাংক। এবার তাদের কাছে পর্যাপ্ত তারল্য থাকায় এবং গ্রাহকের চাহিদা তুলনামূলক কম থাকায় আগের তুলনায় কম টাকা নিয়েছে।

এ তালিকায় ছিলো জাতীয় প্রেস ক্লাব সংলগ্ন অগ্রণী ব্যাংক, সোনালী ব্যাংকের রমনা, জনতা ব্যাংকের নিউমার্কেট, অগ্রণী ব্যাংকের এলিফ্যান্ট রোড, পূবালী ব্যাংক সদরঘাট, এসআইবিএলের বসুন্ধরা মার্কেট, জনতা ব্যাংকের বঙ্গবন্ধু এভিনিউ, ডাচ্-বাংলা ব্যাংকের গুলশান, সাউথইস্ট ব্যাংকের কাওরান বাজার, প্রাইম ব্যাংকের মালিবাগ, ন্যাশনাল ব্যাংকের যাত্রাবাড়ী এবং প্রাইম ব্যাংকের মিরপুর-১ শাখা।

রাজধানীর সাধারণ গ্রাহকদের নতুন নোট বদলে নেয়ার সুবিধার্থে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মতিঝিল ও সদরঘাট শাখা অফিসের পাশাপাশি বিভিন্ন বাণিজ্যিক ব্যাংকের ১২টি শাখা থেকে বদলে দেয়া হয়েছে। এছাড়া ঢাকার বাইরে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের বিভিন্ন শাখা ও সকল বাণিজ্যিক ব্যাংকের শাখা থেকেও গ্রাহকরা নতুন নোট বদলে নেয়ার সুযোগ পেয়েছেন।

এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কারেন্সি অফিসার (মহাব্যবস্থাপক) সাইফুল ইসলাম খান বলেন, প্রতিবছরই ঈদসহ বিভিন্ন উৎসবের আগে নতুন টাকার চাহিদা বাড়ে। কোরবানি ঈদের আগে বড় নোটের চাহিদা থাকে বেশি। সে বিবেচনায় এবার কোরবানি ঈদে বিভিন্ন মূল্যমানের ২২ হাজার কোটি টাকার নতুন নোট প্রস্তুত রাখা হয়েছিলো। এসব নোটের বেশির ভাগই ছিলো ১০০, ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট। এর মধ্যে চাহিদার আলোকে বাজারে ছাড়া হয়েছে সাড়ে ১৫ হাজার কোটি টাকা।

তিনি জানান, সাধারণত রোজার ঈদে গ্রাহক পর্যায়ে ছোট নোটের চাহিদা বেশি থাকে। আর কোরবানি ঈদে বেশি চাহিদা দেখা দেয় বড় নোটের। তারপরও সাধারণ গ্রাহকদের জন্য এবারও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের শাখা অফিসের পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যাংকে বিশেষ কাউন্টার খুলে নতুন নোট বদলে দেয়া হয়েছে। তিনি জানান, ঈদের পরে এ অর্থের বেশির ভাগই আবার কেন্দ্রীয় ব্যাংকে জমা হবে।

 

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

আরও দেখুন...

Close
ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close