Featuredদুনিয়া জুড়ে

অত্যাধুনিক বিমানবাহী রণতরী ভারতীয় নৌবাহিনীতে

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: প্রায় এক দশক ধরে চলা আলোচনা ও পুননির্মাণের পর ভারতের নৌবাহিনীতে যুক্ত হচ্ছে অত্যাধুনিক বিমানবাহী রণতরী আইএনএস বিক্রমাদিত্য। আগামী বছর থেকে এটি ভারত মহাসাগরে টহল দিবে। শনিবার আনুষ্ঠানিকভাবে এটি ভারতের নেৌবাহিনীতে যুক্ত হবে বলে জানিয়েছে এনডিটিভি।

নৌবাহিনীতে এই জাহাজ যুক্ত হওয়ার মাধ্যমে ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলে দুটি বিমানবাহী রণতরী পরিচালনাকারী প্রথম রাষ্ট্র হল ভারত। অত্যাধুনিক এই রণতরীটি যুক্ত হওয়ার ভারতীয় নৌবাহিনীর সক্ষমতা বহুগুণ বৃদ্ধি পেল। রাশিয়া থেকে ভারতের কোচি নৌবন্দরে আসার পথে রণতরীরি একটি বহর বিমানবাহী এই রণতরীটিকে পাহারা দিয়ে নিয়ে আসবে। ভারতে আসার পর এটিকে ইসরায়েলি বারাক ক্ষেপণাস্ত্রে সজ্জিত করা হবে। কোনো সরবরাহ ছাড়াই ১৬শ’ মানুষ নিয়ে রণতরীটি ৪৫ দিন একটানা চলতে পারবে। প্রতিমাসে রণতরীটির ক্রুরা এক লাখেরও বেশি ডিম, ২ লাখ লিটার দুধ এবং ১৬ টান চাল ব্যবহার করবে। ভারতের অপর বিমানবাহী রণতরীটির নাম আইএনএস বিরাট। এটি তার মেয়াদের শেষ পর্যায়ে রয়েছে।

ভারত ২০০৪ সালে ৯৭ কোটি ৪০ লাখ মার্কিন ডলারে জাহাজটি কিনতে রাজি হয়। পাঁচ বছর পর রাশিয়া এটি হস্তান্তর করে। রণতরীটির ওজন ৪০ হাজার টন এবং এটি ভারতীয় নৌবাহিনী পরিচালিত সবচেয়ে বড় ও ভারি জাহাজে পরিণত হতে যাচ্ছে। এটি ২৮৪ মিটার লম্বা এবং এর উচ্চতা ৬০ মিটার, যা প্রায় ২০তলা ভবনের সমান। একদিনে ১৩০০ কিলোমিটার পাড়ি দিতে সক্ষম আইএনএস বিক্রমাদিত্য এক সঙ্গে ২৪টি মিগ-২৯ বিমান এবং ১০টি হেলিকপ্টার বহন করতে পারবে। ভারতীয় নৌবাহিনীর বৃহত্তম এই যুদ্ধ জাহাজটি মূলত সোভিয়েত ইউনিয়নে নৌবাহিনীর জন্য নির্মিত হয়েছিলো। এর তখনকার নাম ছিল অ্যাডমিরাল গরস্কোভ। পরে সোভিয়েত ইউনিয়ন ভেঙে গেলে এটির নির্মাণ কাজ স্থগিত করা হয়।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close