রাজনীতি

রিজভী গ্রেফতার: আদালতে রিমান্ড চাইবে পুলিশ

শীর্ষবিন্দু নিউজ: গাড়ি পোড়ানোর ঘটনায় রাজধানীর শাহবাগ থানার মামলায় গ্রেপ্তার বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীকে আজ শনিবার বেলা তিনটার দিকে আদালতের উদ্দেশে নেওয়া হচ্ছে। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড চাইবে পুলিশ। রিজভীসহ গ্রেপ্তার সব নেতা-কর্মীর মুক্তির দাবিতে আগামীকাল রোববার কুড়িগ্রামে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে ১৮-দলীয় জোট।

গাড়ি পোড়ানোর মামলায় গ্রেপ্তার
ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) জনসংযোগ বিভাগের উপকমিশনার মাসুদুর রহমান প্রথম আলো ডটকমকে বলেন, গত বৃহস্পতিবার শাহবাগে গাড়ি পোড়ানোর ঘটনায় হত্যা ও বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে শাহবাগ থানার মামলায় রিজভীকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। এই মামলায় তাঁকে আদালতে হাজির করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড চাওয়া হবে।
ডিএমপির তথ্য ও জনসংযোগ বিভাগের সহকারী কমিশনার আবু ইউসুফ জানিয়েছেন, রিজভীকে ডিবি কার্যালয় তেকে বেলা তিনটার দিকে আদালতের উদ্দেশে নিয়ে যাওয়া হয়।

বিএনপি কার্যালয় থেকে গ্রেপ্তার
আজ ভোরে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে রিজভীকে আটক করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। রিজভীর সঙ্গে কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে দলটির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য বেলাল আহমেদকেও নিয়ে যায় ডিবি। তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছি কি না, তা জানা যায়নি।

গত বৃহস্পতিবার শাহবাগে গাড়ি পোড়ানোর ঘটনায় হত্যা ও বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে গতকাল শাহবাগ থানায় মামলা করে পুলিশ। মামলার এজাহারে আসামি হিসেবে ১৬ জনের নাম উল্লেখ করা হয়। এর মধ্যে রুহুল কবির রিজভীও আছেন।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল, স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, সহসভাপতি সাদেক হোসেন খোকা, আমানউল্লাহ আমান, বরকত উল্লা ও সালাহউদ্দিন আহমেদ, ঢাকা মহানগর বিএনপির সদস্যসচিব আবদুস সালাম, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফুল আলম, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সভাপতি আবদুল কাদের ভুঁইয়া, যুগ্ম সম্পাদক ওবায়দুল হক, ঢাকা মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি মাহিদুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মাসুদ রানা, যুবদলের ঢাকা মহানগর উত্তরের সভাপতি মামুন হাসান ও জামায়াতের ঢাকা মহানগর শাখার সহকারী সেক্রেটারি শফিকুল ইসলাম। মামলায় তিনজন অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিকে আসামি করা হয়েছে।

কার্যালয়ে ভাঙচুর চালানোর অভিযোগ
অভিযানের সময় বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের ভেতরে বিভিন্ন কক্ষে ডিবির সদস্যরা ভাঙচুর চালিয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ছাড়া ঘটনার ছবি তোলার সময় কয়েকটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের ক্যামেরা ভাঙচুরেরও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

দলের যুগ্ম মহাসচিব সালাউদ্দিন আহমেদ প্রথম আলো ডটকমকে বলেন, ‘ভোর পৌনে চারটার দিকে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের দরজা ভেঙে রিজভী ও বেলালকে নিয়ে যায় ডিবি পুলিশ। এই বর্বরতম ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এভাবে নেতাদের গ্রেপ্তার ও নির্যাতন করে সরকার তার পতন ঠেকাতে পারবে না।’

বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের এক কর্মচারী দাবি করেন, ভোর চারটার কিছু আগে ডিবির সদস্যরা মই বেয়ে দোতলার বারান্দায় ওঠেন। সেখান থেকে দরজার তালা কেটে তাঁরা ভেতরে ঢুকে কার্যালয়ের বিভিন্ন কক্ষ ভাঙচুর করেন। পরে রিজভী ও বেলালকে নিয়ে যান ডিবির সদস্যরা।

বিএনপি কার্যালয়ের বর্তমান অবস্থা
সকালে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে গিয়ে দেখা যায়, দ্বিতীয় তলার সামনের অংশের বারান্দার একটি দরজার তালা কাটা। দ্বিতীয় তলায় বিএনপির চেয়ারপারসনের কক্ষ। ওই কক্ষের দরজা কিছুটা ভেঙে খোলা হয়েছে।

তৃতীয় তলায় বিএনপির দপ্তরে গিয়ে দেখা যায়, একটি কাচের দরজা ভাঙচুর করা হয়েছে। সেখানে রিজভীর টেবিলটি তছনছ করা। তিনি যে কক্ষটিতে ঘুমাতেন, সেটিও লন্ডভন্ড করা হয়েছে। এ ছাড়া দাপ্তরিক কাজ করা হয়, এমন দুটি কম্পিউটারের সিপিইউ পুলিশ নিয়ে গেছে বলে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের কর্মচারীরা দাবি করেছেন।

কুড়িগ্রামে কাল হরতাল
কুড়িগ্রাম থেকে আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক জানান, আজ জেলা বিএনপি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রিজভীসহ সব নেতা-কর্মীর মুক্তির দাবিতে কাল কুড়িগ্রামে সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দেন।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close