রাজনীতি

আন্দোলন তীব্রতর করে তুলতে মাঠে থাকার ঘোষনা খালেদার

শীর্ষবিন্দু নিউজ: শনিবার ভোর ৬টা থেকে মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত টানা ৭২ ঘণ্টা সড়ক, নৌ ও রেলপথ অবরোধ ডেকেছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোট। এই কর্মসুচিতে বেগম জিয়া মাঠে থাকবেন। নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে সৃষ্ট সংকট নিরসনে সংলাপের আশা ছেড়ে দিয়ে রাজপথকেই বেছে নেয়ার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। দলের নীতিনির্ধারকসহ তৃণমূল নেতাকর্মীদের এমন মেসেজ পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

সরকারের দমন নির্যাতনে ভীত না হয়ে চলমান আন্দোলন আরও বেগবান করতে তৃণমূল নেতাদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করছেন দলের নীতিনির্ধারণী পর্যায়ের কয়েক নেতা। আর রাজধানী ঢাকাসহ পুরো দেশের আন্দোলন কর্মসূচি মনিটর করছেন খালেদা জিয়া নিজেই। দলীয় সূত্র বলছে, হরতাল-অবরোধের মতো কঠোর কর্মসূচিতেও না টলে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পথে আওয়ামী লীগ ও তার অনুসারীরা অবিচলভাবে এগুতে থাকায় আরো গণজাগরণ তৈরির জন্যই নিজেই মাঠে নামার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন খালেদা। উপরন্তু বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা টিপ্পনী কেটে মাঠে নামেন, এভাবে হবে না বলে চ্যালেঞ্জ ছোড়ার পর মোক্ষম জবাব দিতে এখন মাঠে নামারই কথা ভাবছেন খালেদা জিয়া।

আর মাঠে নামার ক্ষেত্রে গত দু’তিন বছরে দেশের বিভাগীয় শহর অভিমুখে করা লংমার্চগুলোতে বিপুল সংখ্যক জনসমাগম বিশেষভাবে উৎসাহ যোগাচ্ছে তাকে। খালেদা জিয়া মাঠে নামলে অভূতপূর্ব গণজাগরণ ঘটবে বলে মনে করছেন তিনি ও তার দল।সূত্র জানায়, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে তফসিল ঘোষণার পর মঙ্গলবার সকাল থেকে ৪৮ ঘণ্টার সড়ক, রেল ও নৌপথ অবরোধের ডাক দেয় জোটটি। বুধবার দুই দফায় তা বাড়িয়ে ৭১ ঘণ্টা করা হয়। কিন্তু টানা

অবরোধের সফলতা নিয়ে খালেদা জিয়া ক্ষুব্ধ। কয়েকটি জেলা ছাড়া সারা দেশে অবরোধ তেমন একটা প্রভাব ফেলতে পারেনি। বিশেষ করে রাজধানীতে অবরোধের কোনো প্রভাব ছিল না। যদিও কর্মসূচির আগে বারবার নেতাদের এ বিষয়টি স্মরণ করিয়ে দেয়া হয়। রাজধানীকে আটটি ভাগে ভাগ করে আটজনকে দায়িত্ব দেয়া হয়। কিন্তু অবরোধের সময় যুগ্ম-মহাসচিব আমান উল্লাহ আমানকে ছাড়া কাউকে রাজপথে দেখা যায়নি। আন্দোলনের মাঠে না থাকায় কেন্দ্রীয় নেতাদের ওপর এমনিতেই ক্ষেপে আছেন জোটনেত্রী। বারবার তাগাদা দেওয়া সত্ত্বেও তাদের মাঠে নামাতে পারছেন না তিনি।

কেবল হাতে গোণা ক’জন গরম করছেন আন্দোলনের মাঠ। আর দেশজুড়ে ছড়িয়ে আছে হাজার হাজার তৃণমূল নেতাকর্মী।তাই খালেদা জিয়া মাঠে নামলে চাপে পড়ে কেন্দ্রীয় নেতারা যেমন রাজপথে নেমে আসবেন, তেমনি বিপুল উৎসাহে আন্দোলনে আরো সক্রিয় হবেন তৃণমূল নেতাকর্মীরা। এছাড়া বিএনপিকে বাদ দিয়ে নির্বাচন সফল হয়ে গেলে ফের দীর্ঘ সময়ের জন্য ক্ষমতা হাতছাড়া থাকার ভয়ও খালেদা জিয়াকে মাঠে নামতে উৎসাহ যোগাচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে। তাই নির্বাচন ঠেকাতে নিজেই মাঠে নামা ছাড়া বিকল্প নেই খালেদা জিয়ার সামনে।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close