জাতীয়

আন্তর্জাতিক মিডিয়ায় কাদের মোল্লার ফাঁসির খবর

মানবতাবিরোধী অপরাধে দোষীসাব্যস্ত  আব্দুল কাদের মোল্লাকে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার তাৎক্ষণিকভাবে গুরুত্বের সঙ্গে প্রচারিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে। বৃহস্পতিবার রাত ১০টা ১ মিনিটে কাদের মোল্লাকে ফাঁসি দেওয়ার কয়েক মিনিটের ‍মাথায় বিবিসি, আল-জাজিরা, ডনসহ বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম ব্রেকিং নিউজ হিসেবে প্রচার করে। এদিন সকাল থেকেই রাজধানীর বিভিন্ন জায়গায় আলোচিত বিষয় ছিল কাদের মোল্লার ফাঁসির ঘটনা।

বিবিসি
কাদের মোল্লাকে ফাঁসি দেওয়ার ২০ মিনিটের মধ্যে ব্রেকিং দেয় বিবিসি। ‘ইসলামি নেতা কাদের মোল্লাকে ঝুলালো বাংলাদেশ’ শিরোনামের খবরটি প্রচ্ছদ পাতার শীর্ষ সংবাদ হিসেবে প্রচার করা হয়েছে। বিবিসি লিখেছে, বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে (আইসিটি) দোষীসাব্যস্ত প্রথম ব্যক্তি হিসেবে কাদেরকে ফাঁসিতে ঝুলানো হলো।

১৯৭১ সালের যুদ্ধে প্রায় ৩০ লাখ মানুষ হত্যাকাণ্ডের তদন্তে ২০১০ সালে আইসিটি স্থাপন করা হয় বলে ব্রিটিশ এ সংবাদ মাধ্যমটির ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার সকালে কাদের মোল্লার আপিল আবেদন সুপ্রিম বিভাগের খারিজ করে দেওয়ার খবরটি গুরুত্ব দিয়ে প্রচার করে বিবিসি।

আল-জাজিরা
‘বিরোধী নেতার প্রাণদণ্ড ‍কার্যকর করল বাংলাদেশ’ শিরোনামে প্রধান সংবাদ হিসেবে ছেপেছে কাতারভিত্তিক আল-জাজিরা। ফাঁসির রায় কার্যকর করার ২০ মিনিটের মধ্যে ব্রেকিং নিউজ হিসেবে এ সংক্রান্ত খবরটি প্রকাশ করা হয়।

প্রতিবেদনের সূচনায় আল-জাজিরা জানিয়েছে, বিরোধী দলীয় নেতা আব্দুল কাদের মোল্লাকে যুদ্ধাপরাধের দায়ে ফাঁসি দিয়েছে বাংলাদেশ। আর এর মাধ্যমে ১৯৭১ সালে দেশটির রক্তাক্ত স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় গণহত্যার জন্য প্রথম ব্যক্তি হিসেবে তাকে (কাদের মোল্লা) মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হলো।

বৃহস্পতিবার সকালে কাদের মোল্লার ফাঁসির রায় রিভিউয়ের আবেদন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে খারিজ হওয়ার খবরটিও প্রধান সংবাদ হিসেবে প্রকাশ করে আল-জাজিরা।

গালফ নিউজ
দুবাই থেকে প্রকাশিত ইংরেজি ভাষার পত্রিকা গালফ নিউজের অনলাইন সংস্করণে গুরুত্বের সঙ্গে ছাপানো হয়েছে ফাঁসির খবর। সংবাদ মাধ্যমটি ‘যুদ্ধাপরাধের জন্য মৌলবাদী জামায়াতে ইসলামী নেতার প্রাণদণ্ড কার্যকর করল বাংলাদেশ’ শিরোনামে বেশ করে করেই ছেপেছে খবরটি।

রয়টার্স
যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদ সংস্থা রয়টার্স শিরোনাম করেছে ‘যুদ্ধাপরাধে ইসলামপন্থি বিরোধী নেতার প্রাণদণ্ড কার্যকর করল বাংলাদেশ’।

বাংলাদেশ বৃহস্পতিবার ১৯৭১ সালে যুদ্ধাপরাধে ইসলামপন্থি বিরোধী নেতা আব্দুল কাদের মোল্লার প্রাণদণ্ড কার্যকর করেছে বলে জানিয়েছেন এ সরকারি কর্মকর্তা।

এক মাসেরও কম সময় আগে এ পদক্ষেপ সহিংসতা উসকে দিতে পারে বলে উল্লেখ করা হয়েছে রয়টার্সের প্রতিবেদনে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া
‘১৯৭১ সালের যুদ্ধাপরাধে ইসলামি নেতার ফাঁসি দিল বাংলাদেশ’ শিরোনামের প্রতিবেদনে ভারতের প্রভাবশালী সংবাদ মাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া।

টাইমস অব ইন্ডিয়ার অনলাইন সংস্করণের সংবাদ সূচনায় বলা হয়েছে, শেষ মুহূর্তের আপিল সুপ্রিম কোট খারিজ করে দেওয়ার  কয়েক ঘণ্টা পর যুদ্ধাপরাধের দায়ে দোষীসাব্যস্ত বিরোধী নেতার ফাঁসি দিয়েছে ‍বাংলাদেশ।
সংবাদটিকে প্রচ্ছদ পাতার শীর্ষ সংবাদ হিসেবে স্থান দিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া। এক গোয়েন্দা কর্মকর্তার বরাত দিয়ে পত্রিকাটি জানিয়েছে, জানান,বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকার একটি জেলে আব্দুল কাদের মোল্লাকে ফাঁসি দেওয়া হয়েছে।

হিন্দুস্তান টাইমস
‘মিরপুরের কসাই’ হিসেবে পরিচিত এক জ্যেষ্ঠ ইসলামী নেতাকে বৃহস্পতিবার ফাঁসি দিয়েছে বাংলাদেশ। আর এর মাধ্যমে ১৯৭১ সালে দেশটির রক্তাক্ত স্বাধীনতা আন্দোলনের সময় গণহত্যা চালানোর দায়ে প্রথম ব্যক্তি হিসেবে তার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হলো।

সংবাদ সংস্থা এএফপির বরাত দিয়ে হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে বাংলাদেশের আইন প্রতিমন্ত্রী কামরুল ইসলাম বলেছেন, মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হয়েছে। জামায়াতে ইসলামী দলের জ্যেষ্ঠ নেতা আব্দুল কাদের মোল্লার মৃত্যুদণ্ড রাত ১০টা ১ মিনিটে কার্যকর করা হয়েছে।

এনডিটিভি
ভারতের আরেক সংবাদ মাধ্যম এনডিটিভির অনলাইন সংস্করণের প্রচ্ছদে গুরুত্বের সঙ্গে ছাপানো হয় সংবাদটি। ‘যুদ্ধাপরাধের দায়ে শীর্ষ ইসলামী নেতা আব্দুল কাদের মোল্লার প্রাণদণ্ড কার্যকর করল বাংলাদেশ’ শিরোনামের সংবাদ সূচনা হিন্দুস্তান টাইমসের মতো ছিল।

দ্য ডন
পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর দোসর হিসেবে বাংলাদেশে গণহত্যা চালানো কাদের মোল্লার ফাঁসির সংবাদ পাকিস্তানি দ্য ডন গুরুত্ব দিয়ে প্রচার করেছে। দ্য ডনের শিরোনাম ছিল ‘যুদ্ধাপরাধে জামায়াত নেতাকে ঝুলালো বাংলাদেশ’।

সিএনএন
যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদ মাধ্যম সিএনএন প্রধান সংবাদ হিসেবে প্রচার করেছে কাদের মোল্লার ফাঁসির খবরটি। ‘জাতিসংঘের আপত্তি সত্ত্বেও জামায়াত নেতার ফাঁসি দিল বাংলাদেশ’।

আগরতলা (ত্রিপুরা): বাংলাদেশের যুদ্ধাপরাধী জামায়াত নেতা কাদের মোল্লার ফাঁসির খবর স্থান করে নিয়েছে ভারতের আগরতলা থেকে প্রকাশিত দৈনিক পত্রিকা ও ইলেকট্রনিক সংবাদ মাধ্যমে।

আগরতলা থেকে ২৩টি দৈনিক পত্রিকা প্রকাশিত হয়। শুক্রবার প্রকাশিত প্রায় সব ক’টি পত্রিকার প্রধান শিরোনামে ছিল কাদের মোল্লার ফাঁসির খবর। আগরতলার ইলেকট্রনিক সংবাদ মাধ্যমগুলো বৃহস্পতিবার রাতেই প্রচার করেছে আলোচিত এ ফাঁসির খবর। শুক্রবার সকাল থেকেও ক্রমাগত প্রচার করছে ফাঁসি কার্যকরের খবর।

রাজ্যের সবচেয়ে বেশি প্রচলিত সাংবাদপত্র ‘দৈনিক সংবাদ শীর্ষক খবর’ শিরোনামে লিখেছে, ’৭১-এর কসাই কাদেরের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হল’।

দ্বিতীয় সর্বাধিক প্রচলিত দেশের কথা পত্রিকা তাদের শিরোনামে লিখেছে ‘একাত্তরের মানবতা বিরোধী অপরাধী কাদের মোল্লাকে ফাঁসিতে ঝোলানো হল’।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close