জাতীয়স্বদেশ জুড়ে

পুলিশের সামনেই জাতীয় প্রেস ক্লাবে আওয়ামী লীগের হামলা

শীর্ষবিন্দু নিউজ: জাতীয় প্রেস ক্লাবে সাংবাদিকদের সমাবেশ চলাকালে পুলিশের উপস্থিতিতে দফায় দফায় হামলা চালিয়েছে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের কর্মীরা। এসময় ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের নেতারাও সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

প্রেস ক্লাবে সংবাদিক ইউনিয়নের একাংশের সমাবেশ চলাকালে বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে থেকে একটি মিছিল প্রেস ক্লাব পর্যন্ত এসে ইটপাটকেল ছুড়ে ভাঙচুর চালায়। সাংবাদিকরা ভিতরে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন। বাইরে পুলিশের অবস্থান থাকলেও তারা হামলাকারীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়নি। প্রায় ১০ মিনিটেরও বেশি সময় ধরে হামলাকারীরা প্রেস ক্লাব লক্ষ্য করে ঢিল ছুড়ে। তারা লাঠি দিয়ে মাইক, প্রেসক্লাবের ফকট, দেয়াল, বাইরে রাখা গণমাধ্যমের গাড়ি ও যন্ত্রপাতি ভেঙে ফেলে। এসময় আওয়ামী লীগ কর্মীরা জয় বাংলা স্লোগান দেন।

এ সময় বাইরে বিপুল সংখ্যক পুলিশ অবস্থানে থাকলেও তারা হামলাকারীদের নিভৃত করতে কোন ব্যবস্থা নেয়নি। এক পর্যায়ে আওয়ামী লীগ কর্মীরা প্রেসক্লাবের সামনের রাস্তায় দাঁড়িয়ে স্লোগান দেন। এর কিছুক্ষণ পর দ্বিতীয় দফা হামলা করে আওয়ামী লীগ কর্মীরা। এসময় দেয়াল টপকে কিছু কর্মী লাঠি নিয়ে প্রেস ক্লাবের ভেতরেও প্রবেশ করেন। এতে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। হামলার পর প্রেসক্লাবে যান প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী। আওয়ামী লীগপন্থি কয়েকজন সাংবাদিকও প্রেস ক্লাবে প্রবেশ করেন। তারা সেখানে মিছিলও করেন। বিএনপিপন্থি সাংবাদিকরা এসময় প্রেস ক্লাব ভবনের প্রধান ফটকে অবস্থান করেন। এর আগে সেখানে অবস্থান করা বিএনপিপন্থি সাংবাদিকদের সঙ্গে পুলিশের ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটে। সকাল সোয়া ১১টার দিকে প্রেস ক্লাবের ফটক খোলে দেয়ার বিষয়ে পুলিশের সঙ্গে সাংবাদিক নেতাদের কথা বলার সময় এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, প্রেসক্লাবের ভেতরে সাংবাদিকদের ও জাতীয় পার্টির পৃথক দুটি সমাবেশ ছিল। এ সমাবেশে অংশ নিতে কাউকে ভেতরে প্রবেশ করতে দেয়নি পুলিশ। সকাল ১১টায় এ বিষয়ে পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে ফটক খোলে দিতে বলেন। এবং সাংবাদিকদের তাদের কর্মসূচিতে অংশ নেয়ার সুযোগ দেয়ার অনুরোধ করেন। এসময় পুলিশ সদস্যরা সাংবাদিক নেতাদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু করেন। তারা সংবাদিকদের উদ্দেশ্যে কটুক্তিও করেন। এসময় সাংবাদিক নেতা রুহুল আমিন গাজী পুলিশের এ আচরণের প্রতিবাদ জানান। উপস্থিত সাংবাদিকরাও এসময় ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন। পরে তারা প্রেস ক্লাবের ভেতরে অবস্থান নেন।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close