এশিয়া জুড়ে

বাংলাদেশের সুন্দরবন সীমান্তে ভারতের বিশেষ বাহিনী গঠন

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: সুন্দরবন সীমান্তে নজরদারি বাড়াতে বিশেষ বাহিনী গড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। বাংলাদেশের চলমান অস্থির পরিস্থিতিতে সীমান্ত নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এই সিদ্ধান্ত বলে মনে করা হচ্ছে। বুধবার পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব অনিল গোস্বামীর বৈঠকে এই সিন্ধান্ত নেওয়া হয়।

সুন্দরবনের একদিকে অরক্ষিত সীমান্ত অন্যদিকে বঙ্গোপসাগর। তাই সন্ত্রাসী বা জঙ্গি গোষ্ঠী এই দুই পথ ব্যবহার করতে পারে বলে ভারতের ধারণা। তাছাড়া মুম্বাই হামলার জঙ্গিরা জলপথ ব্যবহার করেই ভারতে প্রবেশ করেছিল। তাই এসব দিক বিবেচনায় রেখে সীমান্ত নিরাপত্তার বিশেষ প্রকল্পে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে ভারতের তরফে। এ পরিকল্পনায় খরচ হবে ১৩৮ কোটি রুপি। এজন্য নতুন বাহিনী তৈরিতে পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে জমির ব্যবস্থা করতে বলেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

সুন্দরবন সীমান্ত সংলগ্ন ফ্রেজারগঞ্জ , ছোট মোল্লাখালি , কাটুয়াঝুড়ি , নেতিধোপানি, হেড়োভাঙা, বালিগ্রাম, ধুলিভাসানি, মইপীঠ, পাথরপ্রতিমা, নামখানা, গোসাবা ও বুড়িঘাগড়ি এলাকাগুলোকে পরিকল্পনার সম্ভাব্য স্থান হিসেবে বাছাই করা হয়েছে। বিশেষ এই নিরাপত্তা ব্যবস্থায় বৈদ্যুতিক ব্যবস্থায় সীমান্ত নজরদারির জন্য জিপিএফ অ্যান্টেনা, ভেরি হাই ফ্রিকোয়েন্সি অ্যান্টেনা, রাডার সিস্টেম, থার্মাল ইমেজিং ক্যামেরা, মেরিটাইম মোবাইল সিস্টেম আইডেন্টিটি, ক্যাবল লাইন, অটোমেটিক আইডেনটিফিকেশন সিস্টেম, কন্ট্রোল রুম সহ বিভিন্ন যন্ত্রপাতি থাকবে।

এমনকি রাতের অন্ধকারে সীমান্ত পেরিয়ে জলসীমায় ঢুকে পড়া ছোট নৌকাগুলোও চিহ্নিত করা যাবে এই বিশেষ ব্যবস্থায়। পশ্চিমবঙ্গ উপকূল নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা এডিজি রাজ কানোজিয়া বলেন, বেআইনি অনুপ্রবেশ ঠেকাতে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের জন্য অনুমতি চেয়ে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। এর মাধ্যমে সুন্দরবনের নিরাপত্তা বাড়ানো সম্ভব হবে বলেও জানান তিনি।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close