Featuredঅর্থনীতি

দেশে বর্তমানে খাদ্যমূল্য কমলেও বেড়েছে মূল্যস্ফীতি

শীর্ষবিন্দু নিউজ: নতুন বছরের প্রথম মাসে খাদ্যমূল্য সামান্য কমলেও সার্বিক মূল্যস্ফীতি কিছুটা বেড়েছে। পয়েন্ট-টু-পয়েন্ট ভিত্তিতে জানুয়ারিতে সার্বিক মূল্যস্ফীতির হার বেড়ে ৭ দশমিক ৫০ শতাংশ হয়েছে, গত বছরের শেষ মাস ডিসেম্বরে যা ছিল ৭ দশমিক ৩৫ শতাংশ। খাদ্য মূল্যস্ফীতি ডিসেম্বরের ৯ শতাংশ থেকে কমে জানুয়ারিতে হয়েছে ৮ দশমিক ৮১ শতাংশ। তবে এই সময়ে খাদ্য বহির্ভূত মূল্যস্ফীতি ৪ দশমিক ৮৮ শতাংশ থেকে বেড়ে ৫ দশমিক ৫৩ শতাংশ হয়েছে। পরিসংসখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক গোলাম মোস্তফা কামাল মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলন করে মূল্যস্ফীতির হালনাগাদ এ তথ্য প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, দেশে এখন রাজনৈতিক অস্থিরতা নেই। পরিবহন ব্যবস্থা স্বাভাবিক। আগের অস্থিরতার সময় যে সব খাদ্যের মজুদ ছিল; সেগুলো একসঙ্গে বাজারে আসছে। স্বাভাবিক কারণেই সরবরাহ বেড়ে গেছে, কমছে দাম। খাদ্য বহির্ভূত মূল্যস্ফীতি বাড়ার কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে বিবিএসের মহাপরিচালক বলেন, হরতাল-অবরোধের কারণে গত কিছুদিনে অনেক পণ্য আমদানিতে সমস্যা হয়েছে। বন্দরে মাল খালাসসহ অনেক সমস্যা হয়েছে। যার রেশ এখনও চলছে। আগামী মাসগুলোতে মূল্যস্ফীতি নিম্মমুখী থাকবে বলেই মোস্তফা কামাল আশা প্রকাশ করেন। রাজধানীর আগারগাঁওয়ে ব্যুরো অফিসে প্রতি মাসে এই সংবাদ সম্মেলন হয়।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গত এক বছরে (২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে ২০১৪ সালের জানুয়ারি) গড় মূল্যস্ফীতি হয়েছে ৭ দশমিক ৬ শতাংশ। চলতি ২০১৩-১৪ অর্থবছরের বাজেটে গড় মূল্যস্ফীতি ৭ শতাংশের মধ্যে রাখার পরিকল্পনা করা হয়। জাতীয় নির্বাচন ঘিরে গত বছরের শেষের কয়েকটি মাস ছিল অস্থির। ২৬ নভেম্বর নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর থেকে ছুটির দিনগুলো ছাড়া ডিসেম্বর মাসের প্রায় প্রতি দিনই কেটেছে বিরোধী দলের হরতাল-অবরোধে। এই কর্মসূচির মধ্যে সারা দেশে সহিংসতায় শতাধিক মানুষের প্রাণহানি ঘটেছে, নাশকতার শিকার হয়েছে পণ্য ও যাত্রীবাহী বহু যানবাহন।

গত ৫ জানুয়ারি ভোটের দিনও সহিংসতায় অন্তত ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে নির্বাচনের পর থেকে দেশে মোটামুটি স্থিতিশীলতা বিরাজ করছে। গত অগাস্ট মাস থেকে ২০০৫-০৬ অর্থবছরকে ভিত্তিবছর ধরে মূল্যস্ফীতির তথ্য প্রকাশ করছে পরিসংখ্যান ব্যুরো। এর আগে প্রায় এক বছর ১৯৯৫-৯৬ এবং ২০০৫-০৬ দুই ভিত্তিবছরের হিসাবেই মূল্যস্ফীতির তথ্য প্রকাশ করা হতো।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close