এশিয়া জুড়ে

এবার এমএইচ৩৭০ রহস্য উদঘাটনে নামলো এমআই৬ ও সিআইএ

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: দুনিয়া জুড়ে বর্তমানে আলোচনার বিষয় মালয়েশীয় উড়োজাহাজ এমএইচ৩৭০ হারিয়ে যাওয়ার রহস্য। তিন সপ্তাহের বেশি সময় ধরে নিখোঁজ মালয়েশীয় উড়োজাহাজের রহস্য উদঘাটনে এবার নেমে পড়েছে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের গোয়েন্দা সংস্থা ।

মালয়েশীয় কর্তৃপক্ষ জানায়, যুক্তরাজ্যের গোয়েন্দা সংস্থা এমআই৬, যুক্তরাষ্ট্রের সিআইএ এবং চীনের একটি গোয়েন্দা সংস্থা এমএইচ৩৭০ ফ্লাইট অনুসন্ধানে যোগ দিয়েছে। উড়োজাহাজটি সন্ত্রাসীদের কবলে পড়তে পারে গত কয়েকদিনে ধরে এমন সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর তিনদেশের গোয়েন্দা সংস্থা অনুসন্ধানে নামল। ইতোমধ্যেই এ তিন গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তারা এমএইচ৩৭০ ফ্লাইটের ক্যাপ্টেন জাহেরি আহমাদ শাহের বাড়িতে তৈরি কৃত্রিম ফ্লাইট (ফ্লাইট সিমালটর) তদন্ত করে দেখছেন।

যদিও ভারপ্রাপ্ত পরিবহনমন্ত্রী হিশামুদ্দিন হুসেইন এফবিআই তদন্তের বরাত দিয়ে জানান, তারা পাইলটের বাড়িতে ক্ষতিকর কিছুই পাননি। কুয়ালালামপুরে তিনি রোববার একথা জানান। হিশামুদ্দিন হুসেইন জানান, পুলিশের আইজিপি উড়োজাহাজ নিখোঁজের সন্ত্রাস, অপহরণ, ব্যক্তিগত বা মানসিক সমস্যাসহ সম্ভাব্য সব কারণ সামনে রেখে তদন্ত করছেন। এসব কারণগুলো দীর্ঘ পরিসরে বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গেও আলোচনা হয়েছে।

ডেইলি মেইল জানায়, ৫৩ বছর বয়সী পাইলট জাহারি আহমাদ শাহকে ঘিরে এখন সন্দেহের ঘুরপাক খাচ্ছে। বলা হচ্ছে, পাইলটের বিয়ে ভেঙে যাওয়ার পর তিনি মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়েন।

চীনা স্বজনদের বিক্ষোভ

এদিকে চীনের নিখোঁজ আরোহীদের স্বজনরা রোববার মালয়েশিয়ায় পৌছায়। পৌছেই কুয়ালালামপুরের একটি হোটেলে তারা সংবাদ সম্মেলন করেন। সম্মেলনের ব্যানারে লেখা ছিল আমরা প্রমান, সত্য জানতে চাই। তারা মালয়েশিয়ার সরকারি কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। এসময় তাদের ‘সত্য জানাও’ স্লোগান দিয়ে ভুল বিবৃতির জন্য মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাককে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানান।

অন্যদিকে অনুসন্ধান কাজে অংশ নেওয়া এক মার্কিন নৌ-কর্মকর্তা জানান, অনুসন্ধানে কয়েক বছরও লেগে যেতে পারে। সর্বশেষ দশটি প্লেন ও আটটি জাহাজ ভারত মহাসাগরে উড়োজাহাজটির সন্ধান করে যাচ্ছে।

গত ৮ মার্চ মালয়েশীয় এয়ারলাইন্সের উড়োজাহাজটি ২৩৯ জন যাত্রী ও ক্রু নিয়ে নিখোঁজ হয়। উড়োজাহাজটি কুয়ালালামপুর থেকে বেইজিং যাচ্ছিল। স্থানীয় সময় সেদিন দিবাগত রাত ২টা ৪০ মিনিট থেকে ফ্লাইট এমএইচ৩৭০ নিখোঁজ হয়। বোয়িং বি৭৭৭-২০০ বিমানটিতে ২২৭ জন যাত্রী ও ১২ জন ক্রু ছিলেন। স্থানীয় সময় পরেরদিন সকাল সাড়ে ৬টায় উড়োজাহাজটির বেইজিংয়ে অবতরণের কথা ছিল।

মালয়েশিয়ান এয়ারলাইন্স কর্তৃপক্ষ জানায়, উড়োজাহাজে ১৪টি দেশের নাগরিক ছিলেন। তাঁদের মধ্যে চীনের ১৫২ জন, মালয়েশিয়ার ৩৮ জন, ইন্দোনেশিয়ার ১২ জন, অস্ট্রেলিয়ার সাতজন, ভারতের পাঁচজন, যুক্তরাষ্ট্রের তিনজন, ফ্রান্সের তিনজন, নিউজিল্যান্ডের দুজন, ইউক্রেনের দুজন, কানাডার দুজন এবং ইতালি, তাইওয়ান, নেদারল্যান্ডস ও অস্ট্রিয়ার একজন করে নাগরিক ছিলেন।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close