Featuredসিলেট থেকে

সিলেট বিভাগে ৫ম দফায় উপজেলা নির্বাচন: আওয়ামী লীগ বিএনপি সমানভাবে এগিয়ে

শীর্ষবিন্দু নিউজ: সিলেট বিভাগের ৬টি উপজেলার মধ্যে তিনটিতে আওয়ামী লীগ ও তিনটিতে বিএনপি প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন। সিলেটের বিয়ানীবাজার, মৌলভীবাজারের জুড়ি ও রাজনগরে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী এবং সুনামগঞ্জের তাহিরপুর, বিশ্বম্ভরপুর ও হবিগঞ্জের বানিয়াচঙ্গে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন।

এর মাধ্যমে দু’টি ছাড়া সিলেট বিভাগের ৩৬টি উপজেলায় সম্পন্ন হলো নির্বাচন। ফেঞ্চুগঞ্জ ও জগন্নাথপুর উপজেলায় মামলাজনিত কারণে নির্বাচন স্থগিত রয়েছে। সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান খান আনারস প্রতীক নিয়ে ১ হাজার ৫১১ ভোট বেশি পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের মুফতি শিবিবর আহমদ (প্রতীক চশমা) এবং সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী রোকসানা বেগম লিমা (প্রতীক ফুটবল)।

মৌলভীবাজারের জুড়ি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী এম এ মুমিত আসুক আনারস প্রতীক নিয়ে ২৯ হাজার ৮৩ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী নাসির উদ্দিন মিঠু দোয়াত কলম প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২৩ হাজার ৪শ’ ৫২ ভোট। ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী কিশোর রায় চৌধুরী তালা প্রতীক নিয়ে ২১ হাজার ৬শ’ ৬১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী মাওলানা আব্দুর রহমান বাল্ব প্রতীকে পেয়েছেন ১৯ হাজার ৯শ’ ৫ ভোট। সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী রঞ্জিতা শর্মা প্রজাপতি প্রতীকে ২৭ হাজার ২শ’ ৭৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী হুসনে আরা বেগম কলস প্রতীকে পেয়েছেন ২৭ হাজার ২শ’ ৫৫ ভোট।

মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আছকির খান দোয়াত-কলম প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার প্রাপ্ত ভোট ২৬ হাজার ৯৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী জামি আহমদ ঘোড়া প্রতীক নিয়ে ১৯ হাজার ৫শ’ ৬৯ ভোট পেয়েছেন। ভাইস চেয়ারম্যান (পুরুষ) পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী ফারুক আহমদ বিজয়ী হয়েছেন। তার প্রাপ্ত ভোট ৩০ হাজার ৫০। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী উড়োজাহাজ প্রতীকের রামলাল রাজভর। সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী ডলি বেগম পদ্মফুল প্রতীক নিয়ে ২৯ হাজার ৯৫০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হলেন মুক্তি রানী চক্রবর্তী। তিনি পেয়েছেন ২৯ হাজার ৯৪৫ ভোট। মাত্র ৫ ভোটের ব্যবধানে ডলি বেগম নির্বাচিত হন।

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলায় বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী মো. কামরুজ্জামান কামরুল বিজয়ী হয়েছেন। তিনি ঘোড়া প্রতীক নিয়ে ২৭ হাজার ৩০৭ ভোট পেয়েছেন । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আনিসুল হক কাপ-পিরিচ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২০ হাজার ৩শ’ ২৮ ভোট। ভাইস চেয়ারম্যান(পুরুষ) পদে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী ফেরদৌস আলম আখঞ্জী চশমা প্রতীক নিয়ে ২৯ হাজার ১৭০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মো. রতন মিয়া তালা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২৩ হাজার ১ ভোট। সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী শাহেদা আক্তার পদ্মফুল প্রতীক নিয়ে ২২ হাজার ৯০৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকট প্রতিদ্বন্দ্বী খালেদা বেগম প্রজাপতি প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২১ হাজার ৩৩৩ ভোট।

সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মো: হারুনুর রশীদ মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে ২৪ হাজার ৭১৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী দিলীপ কুমার বর্মণ পেয়েছেন ১৫ হাজার ২৯৭ ভোট। আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী রফিকুল ইসলাম তালুকদার কাপ-পিরিচ প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ১৪ হাজার ৫৯৮ ভোট। স্বতন্ত্র প্রার্থী জহিরুল ইসলাম আনারস প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২ হাজার ৪৬৪ ভোট। ভাইস চেয়াম্যান পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী সুলেমান তালুকদার নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি পেয়েছেন ২১ হাজার ১০২ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী আবুল বাশার পেয়েছেন ১৬ হাজার ৩০৪ ভোট। সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আয়েশা আক্তার প্রজাপতি প্রতীক নিয়ে ২১ হাজার ১৪৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী গীতা রাণী তালুকদার পেয়েছেন ১৭ হাজার ৬৭১ ভোট।

হবিগঞ্জের বানিয়াচঙ্গ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী শেখ বশির আহমদ ঘোড়া প্রতীকে ৩৪ হাজারর ২শ’ ৪৬ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী আবুল কাশেম চৌধুরী মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ২৪ হাজার ৩শ’ ৪০ ভোট। ভাইস চেয়ারম্যান পদে চশমা প্রতীক নিয়ে ২৫ হাজার ৩শ’ ২৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী মোঃ ইকবাল বাহার খান। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন খেলাফত মজলিসের এহতেশামুল হক শামীম। তিনি উড়োজাহাজ প্রতীক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ১৫ হাজার ২শ’ ৭৬। সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী তানিয়া খানম পদ্মফুল প্রতীক নিয়ে ৩৭ হাজার ২শ’ ৫৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী ফেরদৌস আরা হাঁস প্রতীক নিয়ে ভোট পেয়েছেন ২৭ হাজার ৪৩ ভোট।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close