এশিয়া জুড়ে

সাগরের তলদেশে নিখোঁজ বিমান অনুসন্ধান

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: নিখোঁজ মালয়েশীয় উড়োজাহাজের খোঁজে এবার দক্ষিণ ভারত মহাসাগরের তলদেশে অনুসন্ধান কার্য চলবে বলে জানিয়েছে অস্ট্রেলিয়া। অথৈ সাগরের গভীর তলদেশে তল্লাশি কাজের এ দায়িত্ব অর্পিত হচ্ছে মিনি সাবমেরিনের ওপর। অস্ট্রেলীয় উদ্ধারকারী কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমগুলো সোমবার এ খবর জানিয়েছে।

উদ্ধার অভিযানে ‍দায়িত্বরত জয়েন্ট এজেন্সি কোঅর্ডিনেশন সেন্টারের প্রধান অগাস হোস্টন দেশটির পূর্বাঞ্চলীয় শহর পার্থে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, যত শিগগির সম্ভব নিখোঁজ উড়োজাহাজের সন্ধানে মিনি সাবমেরিন মোতায়েন করা হবে। তিনি বলেন, অভিযানে থাকা টোয়েড পিঙ্গার লোকেটর ব্যবহারকারী ওশ্যান শিল্ড সোমবার দিনশেষে অনুসন্ধান কার্য স্থগিত করবে এবং খুব শিগগির পানির নিচে অনুসন্ধান পরিচালানায় মিনি সাবমেরিন ব্লুফিন-২১ মোতায়েন করা হবে।

হোস্টনের বক্তব্য অনুযায়ী, দীর্ঘদিন নৌজাহাজ দিয়ে অনুসন্ধান শেষে নিখোঁজ উড়োজাহাজের ব্ল্যাক বক্সের (ফ্লাইট রেকর্ডার) সন্ধান কাজের দায়িত্ব ব্লুফিন-২১’র কাছে হস্তান্তর করা হচ্ছে। অনুসন্ধান এলাকায় নিয়োজিত জাহাজের রিসিভারে প্রায় সপ্তাহখানেক আগে রহস্যজনক রেডিও সংকেত বেশ কয়েকবার ধরা পড়লেও গত ক’দিন ধরে আর কোনো সংকেত না পাওয়ায় সেসব জাহাজের অনুসন্ধান কার্যক্রম স্থগিত করা হচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে।

হোস্টন বলেন, আমরা প্রায় ছয় দিন ধরে কোনো সংকেত পাইনি। তাই আমাদের মনে হয়, এখন পানির নিচেই অনুসন্ধান কার্য চালানো উচিত। তিনি আরও বলেন, উড়োজাহাজের ব্ল্যাক বক্স সাধারণত ৩০ দিন পর্যন্ত সচল থাকে। যেহেতু উড়োজাহাজ ৩৮ দিন ধরে নিখোঁজ এবং গত কিছু দিন ধরে সন্ধানে নিয়োজিত জাহাজের রিসিভারে কোনো রেডিও সংকেত পাওয়া যাচ্ছে না, তাই এখন পানির নিচে অনুসন্ধান কার্যক্রম চালানো ছাড়া কোনো উপায় নেই।

এদিকে, হোস্টন দাবি করেছেন, অনুসন্ধানে নিয়োজিত একটি নৌজাহাজ দক্ষিণ ভারত মহাসাগরের তল্লাশি এলাকায় তেলের রেখা চিহ্নিত করেছে। তবে ওই রেখা এখনও পর্যবেক্ষণ ও যাচাই করা হচ্ছে বলে তিনি জানান। তিনি জানান, অনুসন্ধান এলাকায় একটি বিশাল তেলের রেখা চিহ্নিত হয়েছে। পরীক্ষার জন্য সেখান থেকে দুই লিটার তেল সংগ্রহ করা হয়েছে।

তিনি বলেন, আমি জোর দিয়ে বলছি, এই তেল কীসের সে ব্যাপারে এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি, তবে টোয়েড পিঙ্গার লোকেটরের মাধ্যমে চিহ্নিত তেলের রেখাটি কেন্দ্রস্থল থেকে বাতাসের অনুকূলে আনুমানিক সাড়ে পাঁচ হাজার মিটার লম্বা বলে ধারণা করা হচ্ছে। এই তেলে রেখা নিখোঁজ উড়োজাহাজের কিনা এ ব্যাপারে কিছু না জানালেও হোস্টন জানান, তিনি মনে করেন না, এই রেখা অনুসন্ধানে নিয়োজিত নৌজাহাজের তেলের।

গত ৮ মার্চ ২২৭ জন যাত্রী ও ১২ জন ক্রু নিয়ে মালয়েশীয় উড়োজাহাজ (ফ্লাইট এমএইচ৩৭০) মালয়েশিয়া থেকে চীনের বেইজিংয়ের উদ্দেশে যাত্রা করার ৪০ মিনিট পর ট্রাফিক কন্ট্রোলের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এরপর অনেক চেষ্টায়ও উড়োজাহাজটির কোনো ধ্বংসাবশেষ কিংবা ব্ল্যাক বক্স খুঁজে পাওয়া যায়নি। এছাড়া, যাত্রীরা বেঁচে আছেন নাকি উড়োজাহাজটি ছিনতাইয়ের কবলে পড়েছিল, সে ব্যাপারেও কিছু নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close