এশিয়া জুড়ে

আর-এস-ভি-পি

শীর্ষবিন্দু নিউজ ডেস্ক: আর-এস-ভি-পি। ভারতের চলমান নির্বাচনী প্রচারাভিযানে বিজেপি প্রার্থী নরেন্দ্র মোদির দেওয়া নয়া এক মডেলের নাম। বিহারের কাতিহারে প্রথম উচ্চারিত হলেও সে নিয়ে তর্ক-বিতর্ক, আলোচনা-সমালোচনা এখন ভারত জুড়ে।

আর ফর রাহুল, এস ফর সোনিয়া, ভি ফর ভদ্র আর পি ফর প্রিয়াংকা। আরএসভিপি ইংরেজিতে একটি বহুল ব্যবহৃত এক্সপ্রেশন। আস্ক.কমকে প্রশ্ন করে আরএসভিপি’র মানে জানা যাবে। তাতে বলা হয়েছে- এটি একটি ফরাসি এক্সপ্রেশন। যার ইংরেজি মানে ‘প্লিজ রেসপন্ড’। যেকোন নিমন্ত্রণপত্রে যখন আরএসভিপি লিখে দেওয়া হবে তার অর্থই হবে- আমন্ত্রিত অতিথি অবশ্যই আয়োজককে জানাবেন তিনি সেই অনুষ্ঠানে বা কর্মসূচিতে যোগ দিচ্ছেন কি না।

তবে এই আরএসভিপি’র এক ভিন্ন ও চটুল ব্যবহারই দেখা গেলো নরেন্দ্র মোদির বক্তৃতায়। কাতিহারের জনসভায় নরেন্দ্র মোদি তার বক্তৃতায় এই আরএসভিপি মডেলের ব্যাখ্যায় বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের একটি সংবাদপত্র একটি বিশেষ মডেলের কথা বলেছে সেটি হচ্ছে- কিভাবে এক লাখ রুপি মাত্র চার বছরে ৩০০ কোটি রুপিতে পরিণত হয়। একমাত্র আরএসভিপি- রাহুল, সোনিয়া, ভদ্র ও প্রিয়াঙ্কা মডেলেই এটি সম্ভব। বাকিদের কথা উল্লেখ করলেও এই বক্তব্যে নরেন্দ্র মোদির অঙ্গুলী নির্দেশনা ছিলো সোনিয়ার জামাতা, রাহুলের দুলাভাই আর প্রিয়াঙ্কার স্বামী রবার্ট ভদ্রের দিকে।

তবে ওই বক্তৃতায় রাহুলকেও ছেড়ে কথা বলেননি তিনি। নরেন্দ্র মোদি বলেন, রাহুল জি দেশের সব জায়গা ঘুরে গরীব মানুষদের দেখছেন- নাকি পর্যটন করছেন। গরীবরা কি করে, কিভাবে ঘুমায় তা জানতে চাইছেন তিনি। কিন্তু তার পক্ষে মানুষের দারিদ্র দেখা সম্ভব নয়। কারণ তিনি রুপার চামচ মুখে দিয়েই জন্মেছেন।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close