জাতীয়

পুরান ঢাকায় অপহরণ: ২ নারীসহ গ্রেপ্তার ৫

শীর্ষবিন্দু নিউজ: পুরান ঢাকা থেকে অপহৃত এক ব্যবসায়ীকে উদ্ধারের পর অপহরণে জড়িত অভিযোগে দুই নারীসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত বৃহস্পতিবার বংশাল থেকে তুলে নেয়া হয় মোটর সাইকেলের যন্ত্রাংশের ব্যবসায়ী মোহাম্মদ হাকিমকে (৫৫)। শনিবার ভোরে তাকে জুরাইনের একটি বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার পাওয়া হাকিম শরীরে নানা আঘাতের চিহ্ন দেখিয়ে বলেন, অপহরণকারীরা হাতুড়ি দিয়ে তাকে নির্যাতন চালিয়েছিল।

কলিনস অটোর মালিক হাকিমকে অপহরণের পর মুক্তিপণ চেয়ে তার পরিবারের কাছে ফোন করা হয়েছিল। কিছু টাকাও বিকাশের মাধ্যমে দেয়া হয়েছিল। তার সূত্র ধরে জুরাইন থেকে অপহৃতকে উদ্ধার করা হয় বলে বংশাল থানার ওসি আব্দুল কুদ্দুস ফকির জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ভোরে জুরাইন এলাকা একটি টিনশেড বাড়ি থেকে হাকিমকে উদ্ধার করা হয়। ওই বাড়ি থেকে ভাগ্যরানী নামে এক নারীকে গ্রেপ্তার করা হয়। আরেকটি বাসা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় শাওন, রানা, হৃদয় ও নিশি নামে চারজনকে। নারায়ণগঞ্জে সাতজনকে অপহরণ করে হত্যার প্রেক্ষাপটে পুরান ঢাকার এই অপহরণ নিয়ে শনিবার দুপুরে পুলিশ সংবাদ সম্মেলন করে বিস্তারিত তুলে ধরে। 

যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, নিশির সঙ্গে হাকিমের পরিচয় ছিল। নিশির মাধ্যমেই অপহরণের এই ঘটনা ঘটে। পুলিশের এই কর্মকর্তা জানান, রাজধানীতে ৫/৬ অপহরণকারী চক্র রয়েছে, যাতে নারীরাও রয়েছেন। কেউ প্রেমের ফাঁদ পেতে কেউবা গৃহকর্মী সেজে অপহরণ চক্রকে সহায়তা করে থাকে।

অপহৃত হাকিম বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুরে মকিমবাজারে নিজের বাসা থেকে রিকশা নিয়ে বংশাল মোড়ে আসামাত্রই একটি মাইক্রোবাস থেকে কয়েক যুবক বেরিয়ে এসে মাইক্রোবাসে তুলে নেয়। মাইক্রোবাসে তুলে কাপড় দিয়ে চোখ বেঁধে ফেলা হয় হাকিমের। তাকে একটি বাড়িতে নিয়ে রাখা হয়। আমার সঙ্গে থাকা মোবাইল ফোন দিয়ে আমার ছোট ভাই মতিনকে ফোন দিয়ে ১০ হাজার টাকা বিকাশের মাধ্যমে পাঠাতে বলি, বলেন হাকিম। পরে অপহরণকারীরা আরো তিন লাখ টাকা মুক্তিপণ চায় বলে জানান তিনি।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close