যুক্তরাষ্ট্র জুড়ে

শেখ হাসিনার অধীনে পরবর্তী নির্বাচন হবে ২০১৯ সালে

শীর্ষবিন্দু নিউজ ডেস্ক: পরবর্তী অর্থাৎ একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ২০১৯ সালে হবে এবং ওই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে শেখ হাসিনা সরকারের অধিনে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসে যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক সেমিনারের প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এ কথা বলেন।

তিনি জোর দাবি জানিয়ে বলেন, বিএনপি-জামায়াতের কোনো ষড়যন্ত্রই এ সরকারকে ক্ষমতা থেকে হটাতে পারবে না। আর তাই বাংলাদেশে পরবর্তী জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে ২০১৯ সালে এবং তা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের অধীনেই অনুষ্ঠিত হবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জীবন ঝুকিপূর্ণ। তার পরেও প্রধানমন্ত্রী যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে রয়েছে। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও জঙ্গীবাদ দমনে শেখ হাসিনার সরকার একবিন্দুও ছাড় দেয়নি এবং দেবে না। দেশের বিভিন্ন সমস্যাগুলোর সমাধানে আগামী ৪ বছরে অসমাপ্ত কাজগুলো শেষ করতে পারলে বাংলাদেশে আওয়ামী লীগের আর কোনো বিকল্প থাকবে না বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

কাদের মোল্লার যেন ফাঁসি না হয় এ জন্য যুক্তরাষ্ট্র থেকে বিশ্বের ক্ষমতাধর ব্যক্তিরা ফোন করেছিলেন, কিন্তু কোনো কাজ হয়নি বলেও তিনি মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, বিএনপি দেশে জঙ্গীবাদের সৃষ্টি করেছে। বঙ্গবন্ধু হত্যা, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার তো করেইনি এমনকি জিয়া হত্যার বিচার পর্যন্ত করেনি। খালেদা জিয়া আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা ও দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ বলেই জনগণ বিএনপি-জামায়াত জোটকে প্রত্যাখ্যান করেছে।

দুইবার ক্ষমতায় থেকেও এরশাদের বিচার না করার সমালোচনা করে নাসিম বলেন, শেখ হাসিনার সরকার আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় মঞ্জুর হত্যার বিচারও শুরু করেছে। বিগত ৫ বছরের আওয়ামী লীগের শাসনামলেও ছোটখাটো ভুল হয়েছে স্বীকার করে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিম আরো বলেছেন, মানুষই ভুল করে, কেবল ফেরেশতা আর শয়তান ভুল করেনা । তবে অতীতের ভুলগুলো যাতে না হয় এবং‌ আমাদের সুষ্ঠুতা প্রমাণে বর্তমান সরকারকে সময় দিতে হবে।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close