ইউরোপ জুড়ে

ফ্রান্সে স্থাপিত হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি

সুমন খান, প্যারিস থেকে: ফ্রান্স আওয়ামী লীগের উদ্যোগে ইউরোপে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য স্থাপনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ফ্রান্সের প্যারে দ্য লুমিয়াল শহরে এ ভাস্কর্য স্থাপনের অনুমতি পাওয়া গেছে। ভাস্কর্য স্থানটিকে বঙ্গবন্ধু স্কয়ার হিসেবে ঘোষণা করা হবে।

২০১৫ সালের নভেম্বরে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার ফ্রান্স সফরকালে ভাস্কর্যটি উদ্বোধন করা হবে। ইউরোপের কোনো দেশে এবারই প্রথম জাতির জনকের প্রতিকৃতি স্থাপন হচ্ছে। রোববার প্যারিসের একটি রেস্তোরায় সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এ তথ্য জানান ফ্রান্স আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ।

ফ্রান্স আওয়ামী  লীগ সভাপতি বেনজির আহমদ সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন ফ্রান্স আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আবুল কাশেম। বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল্লাহ আল বাকী, নাজিমউদ্দিন আহমদ প্রমুখ। বক্তারা বলেন, জাতির জনকের প্রতিকৃতি স্থাপনের বিষয়ে ফ্রান্স আওয়ামী লীগ ১৯৯৭ সাল থেকে কাজ করে যাচ্ছে। ফ্রান্সে নিযুক্ত তৎকালীন রাষ্ট্রদূত সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী ও আন্তরিকভাবে ফ্রান্স সরকারের সঙ্গে সে সময় আলোচনা করেছিলেন। পরবর্তীতে প্যারিসের ন্যাশন নামক এলাকায় একটি স্থান বরাদ্দের বিষয়ে মৌখিক অনুমতি পাওয়া গিয়েছিল। সে সময় ফ্রান্স সরকারের অভ্যন্তরীণ সিদ্ধান্তের কারণে সে প্রক্রিয়া বাস্তবায়ন হয়নি।

তারা বলনে, পরবর্তীতে ২০০১ সালে চারদলীয় জোট সরকার ক্ষমতায় আসলে এ প্রক্রিয়াটিতে সরকারী সহায়তা পাওয়া যায়নি। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার গঠন করলে আবারও প্রক্রিয়াটি সরকারের নজরে আসে।  এর অংশ হিসেবে ফ্রান্স আওয়ামী লীগের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে ফ্রান্সের অন্যতম পর্যটন শহর প্যারে দ্য লুমিয়ালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি স্থাপনের বিষয়ে একটি সিদ্ধান্ত হয়।

প্রায় দেড় মিটার উচ্চতা বিশিষ্ট এ প্রতিকৃতি স্থাপনের নির্মাণ ব্যয় বাংলাদেশ সরকার বহন করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন নেতৃবৃন্দ। কোনো কারণে সরকারী সহায়তা পাওয়া না গেলে ফ্রান্স আওয়ামী লীগ ও সকল প্রবাসীদের সহায়তায় এ ভাস্কর্য স্থাপন করা হবে।

ইতিমধ্যে প্যারিসস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রদূত শহীদূল ইসলাম উল্লেখিত স্থানটি পরিদর্শন করে করেছেন। তিনি এ প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাই করে একটি প্রতিবেদন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে পাঠাবেন।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close