এশিয়া জুড়ে

ভারতের সাথে বাংলাদেশ-ভুটান-নেপাল সংযোগ সড়কের পরিকল্পনা মমতার

শীর্ষবিন্দু নিউজ ডেস্ক: প্রতিবেশী তিন দেশ বাংলাদেশ, ভুটান ও নেপালের সঙ্গে সংযোগ সড়কের একটি পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার জলপাইগুড়িতে প্রশাসনিক এক বৈঠকের পর তিনি সাংবাদিকদের একথা জানান বলে সংবাদ সংস্থা আইএএনএস জানিয়েছে।

মমতা বলেন, আমরা ১৪০০ কোটি টাকায় নতুন একটি সড়ক তৈরির পরিকল্পনা গ্রহণ করছি, যা শিলিগুড়ির সঙ্গে বাংলাদেশ, ভুটান, নেপালের সংযোগ তৈরি করবে। তিস্তা চুক্তিতে বাধা হয়ে দাঁড়ানোয় ঢাকার বিরাগভাজন মমতার এই ‍উদ্যোগ দৃশ্যত বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্কোন্নয়নে তার আগ্রহের ইঙ্গিত দেয়। নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে গঠিত ভারতের নতুন কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে মমতার সম্পর্ক এখনো অনেকটাই বৈরী। ভোটের সময় মোদির কড়া সমালোচনাকারী মমতা যোগ দেননি মোদির শপথ অনুষ্ঠানেও। উগ্রপন্থি ইসলামী দল নিয়ে মমতার নমনীয়তায় নয়া দিল্লি হতাশ বলে সরকারি সূত্রগুলো জানিয়েছে। তবে মমতা বলেছেন, তার রাজ্যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রাখতে তিনি বদ্ধপরিকর। বাংলা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ভূমি। এখানে কোনো বিভেদের রাজনীতি চলবে না, বলেছেন তিনি।

সাম্প্রতিক সহিংসতার ঘটনায় বাংলাদেশে পুলিশি অভিযান শুরু হওয়ায় জামায়াতে ইসলামীসহ বেশকিছু জঙ্গি সংগঠনের নেতারা কলকাতায় আশ্রয় নিয়েছেন। তাদের তালিকা ও বিস্তারিত তথ্য নতুন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংকে ইতোমধ্যেই জানিয়েছে গোয়েন্দা বিভাগ।

অভিযোগ রয়েছে, মমতার তৃণমূল কংগ্রেসের উর্দুভাষী মুসলিম নেতৃত্বের একটি অংশ বাংলাদেশ থেকে পালিয়ে যাওয়া এসব জামায়াত নেতাদের পৃষ্ঠপোষকতা করছেন। পলাতক নেতাদের কেউ কেউ তৃণমূল কংগ্রেসের নেতাদের বাড়িতেই আশ্রয় নিয়েছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভারতীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান, কিন্তু রাজ্য সরকার তাদের বিরুদ্ধে কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছে না। আমরা তাদেরকে ধরে বাংলাদেশে পাঠাতেই পারি। কিন্তু কলকাতা ও পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ যদি তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ না নেয়, তাহলে কিভাবে সেটি করব?

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close