অন্য পত্রিকা থেকে

নজর থাকছে যাদের ওপর

ওয়ার্ল্ড কাপ ডেস্ক:

নজর থাকছে যাদের ওপর

বিশ্বকাপের ২০তম আসরের দ্বিতীয় দিনে তিনটি খেলা অনুষ্ঠিত হবে। শুক্রবার বাংলাদেশ সময় রাত ১০টায় মেক্সিকো লড়বে ক্যামেরুনের বিপক্ষে, রাত ১টায় মুখোমুখি হবে ২০১০ বিশ্বকাপের দুই ফাইনালিস্ট স্পেন ও নেদারল্যান্ড। অপর খেলায় শুক্রবার মধ্যরাত ৪টায় চিলি মুখোমুখি হবে অস্ট্রেলিয়ার। সান্তোস, মারকেস ও হার্নান্দেসের মতো তারকাদের সমন্বয়ে গড়া মেক্সিকো। তবুও আজকের ম্যাচে নজর থাকবে অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার খ্যাত হেক্তর হেরেরার ওপর।

হেক্তর হেরেরা: ২০১২ সালে মেক্সিকোর অলিম্পিক জয়ের অন্যতম নায়ক। ২৪ বছরের এ তরুণ বিশ্বকাপে কী করেন তা দেখার বিষয়। অ্যালেক্স সং, জাঁ মাকুন ও বেঞ্জামনি মৌকাঞ্জোদের নিয়ে গড়া ক্যামেরুন দলে রয়েছেন স্যামুয়েল ইতো।

ইতো: ৩৩ বছর পেরিয়েও মাঠে তুখোড় খেলোয়াড় ইতো। তিন বিশ্বকাপ খেলার অভিজ্ঞতা চেলসির এ খেয়োড়ারের দিকে নজর থাকবে বিশ্ববাসীর। জাবি আলোনসো, রামোস, ফ্যাব্রেগাসের মতো বিশ্বনন্দিত ফুটবল তারকারা রয়েছেন স্পেনে। তবে বার্লোনার তারকা আন্দ্রে ইনয়েস্তার দিকে নজর রাখছেন সবাই।

ইনিয়েস্তা: ২০১০ সালে বিশ্বকাপ ফাইনালে সেই গোলের মাধ্যমে স্পেনের ফুটবল ইতিহাসে স্থান করে নিয়েছেন ইনিয়েস্তা। স্নেইডার, মার্নস ইন্ডি, পার্স রয়েছেন নেদারল্যান্ডে। তবে বার্ন মিউনিখের হয়ে খেলা বরেনের দিকে নজর রাখতেই হবে।

 

রবেন: ২০১০ সালের ফাইনালে ব্যর্থতা এখনো যন্ত্রণা দেয়। শুক্রবার তা মুছে ফেলার সুযোগ রয়েছে। ৩০ বছর বয়সী এ ফরোয়ার্ড ড্রিবলিং এখনো প্রতিপক্ষের জন্য হুমকির কারণ হতে পারে। দিয়াস, সানচেস, ইজলা চিলিকে সামনে এগিয়ে নিতে যথেষ্ট। তবে সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার ভিদাল কিন্তু রয়েছেন।

ভিদাল: জুভেন্টাসের এ ফুটবলারের প্রতিভা, বৈচিত্রতা প্রশংসনীয়।বিশ্বসেরা মিড ফিল্ডারদের একজন ভিদাল। ২০১০ সালের বিশ্বকাপে প্রথম রাউন্ডেই বিদায় নেয় অস্ট্রেলিয়া। তবে এবার দলে ব্রেসিয়ানো, ডেজিনাক, রোজিচের মতো তরুণ খেলোয়াড় রয়েছে। আর যার ওপর নজর থাকবে তিনি হলেন টিম কাহিল।

 

টিম কাহিল: ৩৪ বছর পার করলেও গোলের জন্য সকারুদের নির্ভর করতে হবে তার ওপর। মার্চ ইকুয়েডরের বিপক্ষে জোড়া গোল করে অস্ট্রেলিয়ার সর্বকালের সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন এভারটনের এ ফরোয়ার্ড।

উদ্বোধনী ম্যাচে প্রতিপক্ষ ক্রোয়িশাকে দুই গোল দিয়ে জাত চিনিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার নেইমার। গত বিশ্বকাপে ২২ বছর বয়সে থাকা আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার মেসি ব্যর্থ হয়েছিলেন, একই বয়সে পা রাখা ব্রাজিলিয়ান এ স্ট্রাইকারও কী ব্যর্থ হবেন? এমন সব জল্পনার কিছুটা জবাব পাওয়া গেছে প্রথম ম্যাচেই। প্রথম ম্যাচের ব্রাজিলিয়ান এ স্ট্রাইকারের দিকে তাকিয়ে ছিল দুনিয়াজোড়া ব্রাজিলিয়ান ফুটবল ভক্তরা।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close