Featuredযুক্তরাষ্ট্র জুড়ে

যুক্তরাষ্ট্রে সন্ত্রাসী পরিকল্পনার অভিযোগে বাংলাদেশি ছাত্র গ্রেফতার

আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: রাহাতুল খান নামে  বাংলাদেশি ২৩ বছর বয়সী এক ছাত্র এবার সন্ত্রাসী পরিকল্পনার অভিযোগে আটক হয়েছেন টেক্সাসে। যুক্তরাষ্ট্রের একটি অনলাইন তাদের প্রতিবেদনে এ খবর জানায়। এই ঘটনায় আরো একজনকে গ্রেফতার করা হয়। আটক দুইজনই টেক্সাসের বাসিন্দা।

গ্রেফতার রাহাতুল আশিকিম খান (২৩) আদালতে দোষী সাব্যস্ত হলে তার সর্বোচ্চ ১৫ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। ফেডারেল জাস্টিস ডিপার্টমেন্ট এবং সেন্ট্রাল টেক্সাস জয়েন্ট টেরোরিজম টাস্ক ফোর্সের তথ্যমতে, রাহাতুলের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসীদের সরঞ্জামাদি সরবরাহের অভিযোগ আনা হয়েছে। তাদের মঙ্গলবার গ্রেফতার করা হয়। শুক্রবার এ বিষয়ে শুনানি হবে।

রাহাতুল খান ইউভার্সিটি অব টেক্সাসের ছাত্র। জিহাদ এর জন্য অনলাইনে লোক নিয়োগে প্রচারণা চালানোর অভিযোগ আনা হয়েছে। ২০০২ সালে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক হন। এফবিআই’র একজন এজেন্টকে ২০১১ সালে সোমালিয়ায় ইনসার্জেন্টদের যুদ্ধের পক্ষে রিক্রুট করতে চাওয়া এবং জিহাদের জন্য নিজে যুক্তরাষ্ট্রের বাইরে যাওয়ার ইচ্ছা পোষণ করার অভিযোগে রাহাতুলকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানা গেছে ।
অভিযোগে আরো উল্লেখ করা হয়েছে, রাহাতুল তরুণদের সাথে জিহাদ, অস্ত্র, প্রশিক্ষণ এবং তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের প্রস্তুতি’র বিষয় আলোচনা করেছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্রের মূলধারার সংবাদগুলো জানিয়েছে, রাহাতুল অনলাইন চ্যাটিংয়ের চ্যাট রুমে এসব কথা আলোচনা করেছিলেন। তিনি  আরো লিখেছিলেন, মুসলমানদের পবিত্র যুদ্ধ জিহাদের জন্য তিনি যোদ্ধা রিক্রুট করছেন। একজন এফবি আই এজেন্টকেও রাহাতুল বলেছেন, তিনি নিজে যুদ্ধে যেতে আগ্রহী। আইন-শৃঙ্খলা কর্তপক্ষ বলেছে, তার বাবা মাকে কেউ একজন বিষয়টি জানানোর পর থেকে বাব-মায়ের সাথে রাহাতুলের মনোমানিল্য এবং বিরোধ চলছে।

ফেডারেল আইনজীবি বলেছেন, সিরিয়া এবং সোমালিয়া’র সংঘাতে সম্পৃক্ত হওয়ার পরিকল্পনায় পৃথকভাবে দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর জনের নাম মাইকেল টড ওলফ। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি তার স্ত্রী ও শিশু সন্তানদের নিয়ে টেক্সাসের জর্জ ডব্লিউ বুশ বিমানবন্দর দিয়ে তুরস্কের পথে রওনা হয়েছিলেন। তার পরিকল্পনা ছিল তিনি তুরস্ক থেকে সিরিয়া এবং সম্ভবত ইরাকে আল কায়েদার দলে যোগ দেবেন। তাদের দুজনের বিরুদ্ধেই সন্ত্রাসীদের ‘ম্যাটেরিয়াল সাপোর্ট’ বা  –সহযোগিতা করার অভিযোগ আনা হয়েছে। দোষী সাব্যস্ত হলে তাদের ১৫ বছর করে সাজা হতে পারে।

রাহাতুলের আইনজীবী সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, তিনি কেবল মামলার কাগজপত্র হাতে পেয়েছেন।সে কারণেই কোনো মন্তব্য করা সম্ভব নয়।অনলাইনে পাওয়া তথ্যে জানা গেছে, রাহাতুলের মা কার্ল এ ডামাল হাসপাতালের একজন মনোচিকিৎসক ( সাইকিয়াট্রিস্ট) এবং বাবা মুসলিম পিস ইউনিটি নামক একটি চ্যারিট প্রতিষ্ঠানের সভাপতি। প্রতিষ্ঠানটি ২ বছর আগে জন্ম নিয়েছে।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close