গ্যালারী থেকে

এই মুহূর্তে বিশ্বসেরা ১০ ফুটবলার

ওয়ার্ল্ড কাপ ডেস্ক: এখনও শেষ হয়নি ব্রাজিল বিশ্বকাপ। তারপরও সেমিফাইনালের আগ পর্যন্ত বিশ্বসেরা ১০ ফুটবলারের তালিকা করেছে ইউএস টুডে স্পোর্টস। ক্লাব ফুটবল ও বিশ্বকাপের পারফরমেন্সের কথা মাথায় রেখে তালিকাটি করেছে তারা। তলিকার অনেকেই বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিয়েছেন। এ জন্য স্প্যানিশদের কাউকে দেখা যাচ্ছে না তালিকায়। দেখে নেওয়া যাক কে কে আছেন তালিকায়।

১০. কোর্টইস, গোলরক্ষক (বেলজিয়াম/চেলসি)
বিশ্বকাপের প্রথম পর্ব থেকে কোয়ার্টার ফাইনাল পর্যন্ত দারুণ খেলেছেন এ বেলজিয়ান। বিশেষ করে কোয়ার্টার ফাইনালে মেসির সঙ্গে তার ওয়ান টু ওয়ান লড়াইটা ছিল দেখার মতো। লড়াইয়ে চেলসি তারকা আর্জেন্টাইনের আক্রমণ রুখে দেন।

৯. রদ্রিগেজ, মিডফিল্ডার (কলম্বিয়া/এসএস মোনাকো)
এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ ৬ গোল করে নিজের প্রথম বিশ্বকাপটা স্মরণীয় করে রাখলেন ২২ বছর বয়সী এ তারকা। ব্রাজিলের কাছে হেরে কলম্বিয়া কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় নিলেও গোল্ডেন বুটের দৌড়ে এখনও এগিয়ে তিনি।  



৮. লাম, ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার (জার্মানি/বায়ার্ন মিউনিখ)
জার্মানিকে সেমিফাইনালে তোলার অন্যতম প্রধান কারিগর লাম। হতে পারে বিশ্বকাপে তাদের গোলরক্ষক নয়্যার ও মুলারের নামটাই বেশি উচ্চারিত হচ্ছে, কিন্তু নীরবে দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে চলেছেন তিনি।


৭. পগবা, মিডফিল্ডার (ফ্রান্স/জুভেন্টাস)
প্রশ্ন আসতে পারে কেন পগবা রদ্রিগেজের আগে? বলা যায়, চলতি বিশ্বকাপে ফরাসিদের মাঝমাঠের খেলাটা একাই তৈরি করে দিয়েছেন এই তারকা। বিশ্বকাপে তারা যে একটি দল হয়ে খেলতে পেরেছে, সেটার প্রধান দাবিদার পগবা।



৬. নেইমার, উইঙ্গার (ব্রাজিল/বার্সেলোনা)
মেরুদণ্ডে আঘাত পেয়ে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেলেও তাকে ঘিরেই সেলেকাওরা দেখতে শুরু করেছিল হেক্সা জয়ের স্বপ্ন। চার ম্যাচে চার গোল করে সেই আস্থার প্রতিদানও দিয়ে চলেছিলেন তিনি।


৫. ইব্রাহিমোভিচ, স্ট্রাইকার (সুইডেন/পিএসজি)
এবার বিশ্বকাপে খেলেনি তার দেশ কিন্তু শুধু ফ্রান্সের প্রভাবশালী লিগ ওয়ান দিয়েই থেকে গেলেন পাঁচে।

৪. সুয়ারেজ, স্টাইকার (উরুগুয়ে/লিভারপুল)
ইতালিয়ান ডিফেন্ডারকে কামড় দিয়ে নিষেধাজ্ঞায় বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নিলেও এর আগে জোড়া গোল করে ইংলিশদের হাতে ধরিয়ে দেন বাড়ি ফেরার টিকেট। প্রিমিয়ার লিগে ৩৩ ম্যাচে ৩১ গোলের ফর্মটাই যেন বিশ্বকাপে বয়ে এনেছিলেন তিনি।   


৩. রোবেন, ফ্রি রেঞ্জ অ্যাটাকার (হল্যান্ড/বায়ার্ন মিউনিখ)
ডাইভ বিতর্কে বিশ্বকাপে বেশ সমালোচিত হলেও দল জেতানোয় তার কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন তুলবে না কেউ। হল্যান্ডকে অপ্রতিরোধ্য গতিতে সেমিফাইনালে তোলার ক্ষেত্রে প্রধান ভূমিকাই তার।


২. রোনালদো, উইঙ্গার (পর্তুগাল/রিয়াল মাদ্রিদ)
ফিফার বর্ষসেরা খেলোয়াড় হয়ে বিশ্বকাপে এসেছিলেন। দল হিসেবে পর্তুগাল হতাশ করলেও বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফুটবলার খুব একটা হতাশ করেন নি। সবাই তার কাছ থেকে অতিমানবীয় কিছু প্রত্যাশা করলেও, ফুটবল আসলে দলগত খেলা। সবমিলিয়ে থেকে গেলেন দুই নম্বরে।


১. মেসি, ফরোয়ার্ড (আর্জেন্টিনা/বার্সেলোনা)
আর্জেন্টিনাকে বলতে গেলে একাই সেমিফাইনালে তোলা পাঁচ ফুট সাত ইঞ্চির এই বার্সা তারকাকেই বিশ্বসেরার তালিকায় প্রথমে রেখেছে ইউএস টুডে।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close