অন্য পত্রিকা থেকে

সিলেট নগরীর ফ্যাশন হাউজগুলোতে ঈদ বাজারে জমজমাট ব্যবসা

এম.এ.সাবলু হৃদয়: নগরীর ফ্যাশন হাউজগুলোতে ঈদ বাজারের কেনাকাটা জমে উঠছে। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ক্রেতারা ভিড় করছেন পছন্দের পোষাকের দোকানগুলোতে। ক্রেতাদের মধ্যে তরুন-তরুনীরাই বেশি। পছন্দের পোষক কিনতে তারা ভিড় করছেন ফ্যাশন হাউজ আর ব্রান্ডশপগুলোতে।

নগরীর কযেকটি অভিজাত ফ্যাশন হাউসের বিক্রেতাদের সাথে আলাপ করে জানা গেছে, দিনে গরম থাকায় ইফতারের পরই বেশির ভাগ ক্রেতা কেনাকাটা করতে আসছেন। দিনের চেয়ে এখন রাতেই বেশি সরব নগরী। এবারও ক্রেতাদের, বিশেষত তরুণীদে প্রথম পছন্দ ভারতের কাপড়। সিলেট নগরীর নয়াসড়ক এলাকা ফ্যাশন হাউসপাড়া হিসেবেই পরিচিত। এখানকার আড়ং, মাহা, মনোরম, কাশিস, কমলাভান্ডার, শী, রমণী, পাপাই, পিণণসহ সব ফ্যাশন হাউস ও অভিজাত দোকানগুলোয় ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়। সকাল ১০টা থেকে সেহরির আগ পর্যন্ত ক্রেতাদের ভিড় সামলাতে হচ্ছে ফ্যাশন হাউসগুলোর কর্মচারীদের। ফ্যাশনসচেতন তরুণ-তরুণীরা তাদের পছন্দের কাপড় কিনতে এক দোকান থেকে অন্য দোকানে ছুটছেন।

বিক্রেতারা জানান, তরুণীদের মধ্যে এবার সবচেয়ে আকর্ষণীয় হচ্ছে ভারতীয় সিরিয়ালের থ্রি-পিস পাখি। এ ছাড়াও বাজারে রয়েছে সোনাক্ষি, মহিনি, খাগড়া, আশিকী, সুট আউটের মতো থ্রি-পিস। তরুণীরা ভারতরে টিভি চ্যানেল স্টার প্লাসের বিভিন্ন সিরিয়ালের নামের থ্রিপিসই বেশি কিনছেন। তবে ফ্যাশন হাউসে দেশীয় কাপড়ের ওপর সুতার কাজ করা কাপড়েরও কদর রয়েছে। ঈদের কাপড়ে যারা একটু আলাদা বৈচিত্র ও আভিজাত্য আনতে চাইছেন তারাই ফ্যাশন হাউসগুলোর দেশীয় কালেকশন থেকে পছন্দের থ্রিপিস কিনে নিচ্ছেন।

ফ্যাশন হাউস মাহায় কিনতে আসা বিয়ানীবাজারের ফাতেমা বেগম জানান, সাড়ে ৬ হাজার টাকা দিয়ে তিনি ঝিলিক থ্রিপিস কিনেছেন। ছোট বোনের জন্য প্রায় একই দামের পায়েল নামের আরেকটি থ্রিপিস কিনেছেন। নয়াসড়কের ফ্যাশন হাউস মনোরমের আবুল কালাম জানান, ঈদ বাজার জমে উঠেছে। শেষমুহুর্তে ক্রেতাদের পদচারণা আরও বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এবার ঈদে তরুণীরা ভারতের কাপড় কিনছেন। তবে তরুণদের চাহিদা বেশি দেশীয় পাঞ্জাবিতে। গত বছর শর্ট পাঞ্জাবি বেশি চললেও এবার চাহিদা বেশি লং পাঞ্জাবির। অ্যান্ডি কটন ও অ্যান্টি সিল্কের পাঞ্জাবিই বেশি বিক্রি হচ্ছে। তবে এ বছর তৈরি পোশাকের দাম গত বছরের চেয়ে কিছুটা বেড়েছে। ঈদ উপলক্ষে দেশে আসা প্রবাসীরাও শুরু করেছেন কেনাকাটা।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

আরও দেখুন...

Close
ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close