অন্য পত্রিকা থেকে

মালয়েশিয়ায় যেসব পণ্যের আমদানি-রফতানির সুযোগ

মাহমুদ খায়রুল: অন্যান্য দেশের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে মালয়েশিয়ায় ব্যবসা ক্ষেত্রে বাংলাদেশিরা বেশ এগিয়ে। বিভিন্ন ব্যবসায়ী এখানে বেশ শক্ত অবস্থানে আছেন। মালয়েশিয়া ও বাংলাদেশের মধ্যে কূটনীতিক সম্পর্ক ভালো থাকায় এখানে ব্যবসায় উপকৃত হচ্ছেন অনেকেই।

বস্ত্রশিল্প
মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশি বস্ত্রশিল্পের চাহিদা অনেক বেশি। ইউনিক্লো, এইচ অ্যান্ড এম, জারা, লিভাইস, সুপার ড্রাই ইত্যাদি ব্র্যান্ড এর পোশাক আসে বাংলাদেশ থেকেই। এছাড়াও বাংলাদেশি গার্মেন্টস এর স্টক লট এর বিশাল চাহিদা এই মালয়েশিয়ায়। বর্তমানে অনেক কাপড় ব্যবসায়ী এখানে ব্যবসায় সফলতা লাভ করেছেন।  

এগ্রো প্রোডাক্টস 
মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশের এগ্রো প্রোডাক্টস এর সরবরাহ উল্লেখ করার মতো। বিশেষ করে আলু, পেঁয়াজ এর বড় বাজার মালয়েশিয়া। এছাড়া বিভিন্ন মৌসুমে বিভিন্ন ফলের আমদানি হয়। বিশেষ করে বাংলাদেশি আমের আমদানি বেশ ভাল। তবে সাম্প্রতিককালে বাংলাদেশে ফরমালিন এর ব্যবহার বেড়ে যাওয়ায় এর আমদানি অনেক কমে গেছে। 

পাটশিল্প 
মালয়েশিয়ায় বর্তমানে পাটশিল্পের ব্যবহার না হলেও এতে বিশাল সুযোগ রয়েছে। বর্তমান সরকার আবহাওয়া উপযোগী পণ্যের ব্যবহারে বেশ জোর দিয়েছে। বিভিন্ন শুল্কের ছাড়ও দেওয়া হয়েছে পাটশিল্পে। তাই বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের জন্য এটি একটি বিশাল সুযোগ। 

নির্মাণ সামগ্রী ও রাবারশিল্প 
বর্তমানে প্রচুর টাইলস ও অন্যান্য নির্মাণ সামগ্রী যাচ্ছে মালয়েশিয়ায়। তুলনামূলক কম মূল্যে ভালো প্রযুক্তির পণ্যের জন্য এর চাহিদাও বাড়ছে। এছাড়াও রয়েছে মালয়েশিয়ার রাবারশিল্প। মেডিকেল গ্লাভস, রাবার জুতা, বিভিন্ন প্যাকেজিং সামগ্রী এর বিশাল বাজার এই মালয়েশিয়া।  

ইলেক্ট্রনিক্স সামগ্রী 
মালয়েশিয়া থেকে বাংলাদেশের বিশাল পরিমাণ ইলেক্ট্রনিক্স সামগ্রী রফতানি হয়। বর্তমানে বিভিন্ন নামকরা ব্রান্ডের তৈরি কারখানা এখন গড়ে উঠেছে মালয়েশিয়ায়। সনি, তোশিবা, ইন্টেল, এ এমডি, নিক্কন, আসুস ইত্যাদি বিখ্যাত কোম্পানির সামগ্রী এখন মালয়েশিয়া থেকে সরাসরি রফতানি হচ্ছে পুরো বিশ্বে। এছাড়া বিভিন্ন মোবাইল এর আমদানি-রপ্তানিও বেশ লাভজনক। 
Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close