Featuredলন্ডন থেকে

প্রতিবাদ জানাতে লন্ডনে ফিলিস্তিনী পতাকা প্রদর্শন

আব্দুল কাইয়ুম: ইসরাইলীদের নির্মম বর্বর হামলা চলছে গাজায়। অব্যাহত রয়েছে ঈদের দিন এবং এরপরেও। তবে ইসরাইলী এই নির্মম ও বর্বরোচিত হামলার বিপরীতে নিরীহ ফিলিস্তিনীদের পক্ষে জোরদার হচ্ছে মানবিক সহমর্মিতা ও সমর্থন। বিশ্বের সর্বত্র নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। অব্যাহত রয়েছে প্রতিবাদী মানুষের গণবিক্ষোভ।
নিপীড়িত ফিলিস্তিনীদের সমর্থনে ইতোমধ্যে ফিলিস্তিনী পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে। প্রতিদিন পৃথিবীর কোথাও না কোথাও প্রতিবাদ হচ্ছে। ইতোমধ্যে ইসরাইলকে বয়কটের দাবী উঠেছে। জোরদার হচ্ছে স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের দাবী। ফিলিস্তিনের অসহায় মানুষের হত্যার প্রতিবাদে এবং তাদের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করে যুক্তরাজ্যের কয়েকটি বারায় ফিলিস্তিনী পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে। বুধবার বিপুল সংখ্যক মুসলিম অধ্যূষিত টাওয়ার হ্যামলেটস বারার টাউন হলে ফিলিস্তিনী পতাকা উত্তোলন করেন বারার নির্বাহী মেয়র লুতফুর রহমান। ইতোপূর্বে প্রেস্টন এবং ব্রাডফোর্ডেও অনুরূপভাবে ফিলিস্তিনীদের সমর্থন করে পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে বলে জানা গেছে।
তবে বিভিন্ন কাউন্সিলে ফিলিস্তিনী পতাকা উত্তোলনের বিষয়ে যুক্তরাজ্যের ইহুদী কমিউনিটি তাদের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেছে, এতে করে এককভাবে ফিলিস্তিনীদের পক্ষ অবলম্বন করা হয়েছে।  এদিকে, ব্রিটিশ এমপি ডেভিড ওয়ার্ড বলেছেন, তিনি যদি গাজায় বাস করতেন তাহলে তিনিও ইসরাইলে রকেট ছুড়তেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে তিনি নিজের প্রতি নিজেই প্রশ্ন উত্থাপন করেছেন এই বলে যে আমি যদি গাজায় বাস করতাম আমিও কি রকেট ছুড়তাম?
অতঃপর নিজেই উত্তর দিয়েছেন – সম্ভবতঃ হ্যা। তার এই টুইট বার্তার পর ইহুদী কমিউনিটিসহ বিভিন্ন পক্ষ থেকে বিরোধীতা শুরু হয়। অবশেষে ব্রাডফোর্ড ইস্টের এই লিবডেম এমপি তার টুইটের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করতে বাধ্য হন। টাওয়ার হ্যামলেটসের টাউন হলে ফিলিস্তিনী পতাকা : বরাবরের মতো যে কোনো মানবতাবিরোধী কর্মকান্ডের বিরোধী যুক্তরাজ্যের সাধারণ জনগণ তাদের প্রতিবাদ অব্যাহত রেখেছেন। প্রায় প্রতিদিন কোথাও না কোথাও র‌্যালি, মানববন্ধন অব্যাহত রয়েছে। ইতোমধ্যে কয়েকটি বারায় সহমর্মিতা প্রকাশ করে ওই সকল বারার টাউন হলে উত্তোলন করা হয়েছে ফিলিস্তিনী পতাকা।
প্রেস্টন, ব্রাডফোর্ডের পর এবার বিপুল সংখ্যক মুসলিম অধ্যূষিত টাওয়ার হ্যামলেটস বারায় ফিলিস্তিনী পতাকা উত্তোলন করলেন বারার নির্বাহী মেয়র লুতফুর রহমান। ৩১ জুলাই, বুধবার টাউন হলে ফিলিস্তিনী পতাকা উত্তোলন করে মেয়র লুতফুর রহমান বলেন, মানবিক কারনে আমরা গাজার মানুষের সাথে সংহতির প্রকাশ হিসেবে টাউন হলে ফিলিস্তিনী পতাকা উত্তোলন করছি।  এছাড়া কাউন্সিলের পুল কাউন্সিল মিটিংয়ে ফিলিস্তিনে ইসরাইলী হামলা বন্ধে একটি জরুরী প্রস্তাব গৃহীত হয়। বুধবারের ফুল কাউন্সিল মিটিংয়ে সব দলের কাউন্সিলাররা ফিলিস্তিনে ইসরাইলী হামলার নিন্দা জানিয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর তাৎক্ষণিক যুদ্ধ বন্ধের আহবানের প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করা হয়।
এতে ফিলিস্তিনী ও ইসরাইলের নিরাপরাধ বেসামরিক নাগরিক মানুষ হত্যা উভয় পক্ষের মধ্যে ঘৃণা ও দ্বন্দ্ব আরো বাড়াবে বলে আশংকা প্রকাশ করা হয়। গৃহীত প্রস্তাবে নর্দান আয়ারল্যান্ড এবং দক্ষিণ আফ্রিকার দ্বন্দ্বের সমাধানের উদাহরণ টেনে বলা হয়, দীর্ঘস্থায়ী ও ফলপ্রসু সমাধানের জন্য সব পক্ষের অংশগ্রহণে আলোচনা আবশ্যক। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী যাতে তাঁর প্রভাব খাটিয়ে এবং নর্দান আয়ারল্যান্ডে শান্তি প্রতিষ্ঠার অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে ফিলিস্তিন-ইসরাইল সংঘাতেরও একটি শান্তিপূর্ণ সমাধান খুঁজে বের করার চেষ্টা করার জন্যও প্রস্তাবে অনুরোধ করা হয়।
অন্যদিকে, টাওয়ার হ্যামলেটসসহ কয়েকটি বারায় ফিলিস্তিনীদের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করে পতাকা উত্তোলন করা হলেও বিপুল সংখ্যক মুসলিম অধ্যূষিত বার্মিংহাম সিটি কাউন্সিল ফিলিস্তিনি পতাকা উত্তোলনের দাবী প্রত্যাখান করেছে। বিভিন্ন দিক থেকে দাবী উত্থাপনের পাশাপাশি কাউন্সিলার ও এমপিদের দাবীর পরও বার্মিংহাম সিটি কাউন্সিল টাউন হলে ফিলিস্তিনি পতাকা উত্তোলনে রাজী হয়নি। তবে বার্মিংহামে বেড়ে ওঠা ইংল্যান্ডের জাতীয় দলের ক্রিকেটার মঈন আলী ফিলিস্তিনের পক্ষে সমর্থন ব্যক্ত করেছেন। ভারতের সাথে তৃতীয় টেস্ট চলাবস্থায় তার হাতের কবজিতে সেইভ ফিলিস্তিন এবং সেইভ গাজা সম্বলিত ব্যান্ড পরতে দেখা গেছে। এছাড়া প্রেস্টন কাউন্সিল জনসাধাণের দাবীর প্রেক্ষিতে ফিলিস্তিনীদের প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করে পতাকা উত্তোলন করলেও পরবর্তীতে তারা তা থেকে সরে আসে এবং টাউন হল থেকে ফিলিস্তিনী পতাকা নামিয়ে ফেলে।
Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close