সিলেট থেকে

অবশেষে খোজ মিলল সিসিক মেয়র আরিফ চৌধুরীর

 নিউজ ডেস্ক: খোঁজ মিলছিল না সিলেট সিটি কর্পোরেশন (এসসিসি)-এর মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর। বুধবার থেকে তিনি সিলেটে নেই। কোথায় আছেন কোন ধারণা দিতে পারছিলেন না সংশ্লিষ্টরা। তবে বিভিন্ন সূত্র থেকে তথ্য মিলছিল মেয়র আরিফ ব্যাংকক গেছেন চিকিৎসা নিতে। শুক্রবার রাত পর্যন্তও এ ধোঁয়াশা কাটছিল না। তবে রাতে মুঠোফোনে আলাপে মেয়র বললেন, হারিয়ে যাইনি। আমি আছি। অবশ্য মেয়র স্বীকার করেন তিনি এ ক’দিন ব্যাংককই ছিলেন।

মেয়র স্বীকার করেন, চিকিৎসার জন্য তিনি ব্যাংকক গিয়েছিলেন। ঢাকা থেকে হঠাৎ করে চলে যেতে হয়েছিল তাই কাউকে বলে যেতে পারেননি। তিনি বলেন, অনেক দিন ধরেই শরীরটা ঠিক ভাল যাচ্ছিল না। হঠাৎ করেই অ্যাপয়েন্টমেন্ট পেয়ে যাই চিকিৎসকের। গত শুক্রবার ছিল অ্যাপয়েন্টমেন্ট। ভাবলাম শুক্র শনি যখন ছুটিই আছে চলেই যাই চেকআপের জন্য। মেয়র জানান, তিনি এখন ভালই আছেন। চিন্তার কিছু নেই।

শুক্রবার সন্ধ্যায় আলাপ হয় সিলেট মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সহসভাপতি হাসিন আহমদের সঙ্গে। তিনি জানান, বুধবার বিকাল ৫টায় (ব্যাংকক সময়) মেয়র ব্যাংকক পৌঁছেন। আমার দেশে ফেরার ফ্লাইট ছিল রাত পৌনে আটটায়। আগেই এয়ারপোর্টে পৌঁছে যাই। শুনি সিলেটের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ব্যাংকক এসেছেন। আমাকে এয়ারপোর্টে এগিয়ে দিতে আসা মুক্তাদির আহমদই ব্যাংককে মেয়রকে অভ্যর্থনা জানিয়েছিলেন। মোবাইলে মেয়রের সঙ্গে কথাও হয়। কুশল বিনিময় হয়।

তবে এরপর যখন এসসিসি’র জনসংযোগ কর্মকর্তা মঈন উদ্দিন মনজুর সঙ্গে আলাপ হয় তিনি জানান, ঢাকার হাসপাতালে ভর্তি শ্যালকের স্ত্রীকে দেখতে বুধবার মেয়র ঢাকায় গিয়েছিলেন। এখন সিলেটেই আছেন। পরে রাত পৌনে আটটায় এসসিসি’র এ কর্মকর্তাই মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর সঙ্গে আলাপ করিয়ে দেন।

তবে মেয়রের এ হঠাৎ চলে যাওয়াকে ভাল চোখে দেখেননি অনেকেই। মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও মেয়র প্যানেলের প্রথম সদস্য রেজাউল হাসান কয়েস লোদীর মধ্যকার দ্বন্দ্বের কারণে তারা সন্দেহ করছেন অন্য কিছুর। দীর্ঘদিন ধরেই মেয়রের সঙ্গে ঠাণ্ডা লড়াই চলছে কাউন্সিলর রেজাউল হাসান কয়েস লোদীর।

কয়েস লোদীর অভিযোগ, মেয়র চান না তিনি মেয়র প্যানেলে থাকুন। এজন্য বারবারই এ নিয়ে জটিলতার সৃষ্টি করছেন। মেয়র দেশের বাইরে গেলে ক্রম হিসেবে কয়েস লোদীরই প্রথম ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব পাওয়ার কথা। অনেকের সন্দেহ, কয়েস লোদীকে এ দায়িত্ব না দিতেই মেয়রের লুকোচুরি।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close