জাতীয়

সকল নারীদের কাছে ক্ষমা চাইলেন মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান

শীর্ষবিন্দু নিউজ ডেস্ক: পহেলা বৈশাখে টিএসসি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যান এলাকায় যৌন নির্যাতনের ঘটনায় একটি সিসিটিভির ফুটেজ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মিজানুর রহমান। সোমবার নারীর প্রতি সহিংসতা ও যৌন হয়রানির ঘটনার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন।

মগবাজারে নিজ কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ক্ষোভ প্রকাশ করে ড. মিজানুর রহমান বলেন, অনেকগুলো সিসিটিভির ফুটেজ দেখানো হয়েছে। কিন্তু ১৬ নম্বর সিসিটিভির ফুটেজ প্রকাশ না করা সন্দেহজনক। এটা উদ্বেগের বিষয়।

তিনি বলেন, আমরা কিন্তু বলছি না যে, ফুটেজগুলো নারীর জন্য অপমানজনক তা জনসম্মুখে প্রকাশ করা হোক। আমরা চাই না, বারবার ফুটেজ প্রকাশের মাধ্যমে যৌন হয়রানির শিকার হন। তবে অন্যসব ফুটেজ প্রকাশ করে কেবল একটি ফুটেজ প্রকাশ না করা সন্দেহের। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সমালোচনা করে তিনি বলেন, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে আমাদের প্রত্যাশা তারা যেনো এ ধরনের বক্তব্য দিয়ে তাদের (যৌন নির্যাতনকারীদের) দায়মুক্তির চেষ্টা না করেন।

গত শনিবার ঢাকা মহানগর পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম বলেছেন, ঢাবি ক্যাম্পাসে কোনো নারীকে বিবস্ত্র করার মতো ঘটনা সিসিটিভির ফুটেজে নেই। এমন কোনো ঘটনাও ঘটেনি। এমন বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান বলেন, নারীর প্রতি যেকোনো ধরনের অশোভনীয় আচরণই হচ্ছে যৌন নির্যাতন। একটি অশোভনীয় শব্দও যৌন নির্যাতন হতে পারে। এ ধরনের মন্তব্য নিন্দনীয়। এসব কথা তাদের জ্ঞানের যে সংকীর্ণতা সেটাই শুধুমাত্র বুঝিয়ে দেয়। আমরা আশা করবো, তারা এসব সংকীর্ণতার উর্ধ্বে উঠে অপরাধীদের বিচার করবেন।

নববর্ষ উদযাপনে পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে ড. মিজানুর রহমান বলেন, নববর্ষের এ হীন ঘটনায় পুলিশ গতানুগতিক ভূমিকা পালন করছে। বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, কয়েকজন ছাত্র সন্দেহভাজন দুজনকে ধরে পুলিশে সোপর্দ করেছিলেন। বলা হচ্ছে, পুলিশের অবহেলায় তারা পালিয়ে গেছেন। পুলিশের এ ভূমিকা হতাশাজনক। এটা নিছক কর্তব্যে অবহেলার শামিল। এমনকি আমরা জেনেছি পুলিশ সংযুক্ত সিসি ক্যামেরা দেখে অভিযুক্ত খুঁজে দেখার বিষয়েও অনাগ্রহ দেখিয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে মানবাধিকার কমিশনের সদস্য মাহফুজা খানম বলেন, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সেদিন নারীদের নিরাপত্তা দিতে পারেননি। বলা হয়েছিল, ওইদিকে তিন স্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা ছিলো। কিন্তু টিএসসি এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পর্যাপ্ত তৎপরতা দেখা যায়নি। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন কমিশনের সার্বক্ষণিক সদস্য কাজী রেয়াজুল হক।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close