গোপন রোগ

গর্ভপাত সম্পর্কে যে সত্যগুলো জেনে রাখা উচিত আপনার

এন.এস.সি-সোহাগ: বিষয়টি নারীর জন্য যতটা গুরুত্বপূর্ণ, পুরুষের জন্যও ঠিক ততটাই। গর্ভপাত যে কেবল নারীদের বিষয়, ব্যাপারটি মোটেও তা নয়। একটি গর্ভপাত মানে একটি সন্তানের মৃত্যু। বিষয়টি নারীর জন্য যতটা গুরুত্বপূর্ণ, পুরুষের জন্যও ঠিক ততটাই। কেননা তিনি সন্তানের বাবা। আজকাল অকাল গর্ভপাতের বিষয়টি বেড়ে গিয়েছে খুব। অন্যদিকে ক্যারিয়ারের চিন্তায় অনেক দম্পতিই স্বেচ্ছায় গর্ভপাত করিয়ে ফেলেন কিছু চিন্তা না করেই। চলুন, জেনে নিই এমন কিছু সত্য যেগুলো গর্ভপাত সম্পর্কে জেনে রাখা উচিত সকল বিবাহিত পুরুষের।

নারীর জন্য অনেক বড় ধাক্কা

পুরুষেরা অনেকেই সেভাবে অনুভব করেন না একটি গর্ভপাতের কষ্ট, যেভাবে নারীরা করে থাকেন। কারণ ভ্রূণটি নারীর শরীরেই প্রতিপালিত হয়। গর্ভপাত দুর্ঘটনায় হোক বা স্বেচ্ছায়, নারীর জন্য এটা অনেক বড় একটি ধাক্কা ও কষ্টের বিষয়। তাই স্বামী হিসাবে আপনার কর্তব্য স্ত্রীর পাশে থাকা।

স্বেচ্ছায় গর্ভপাত থেকে হতে পারে বন্ধ্যাত্ব

আজকাল অনেক দম্পতিই স্বেচ্ছায় গর্ভপাত করিয়ে থাকেন হয়তো ক্যারিয়ার বা ভবিষ্যতের কথা ভেবে। মনে রাখবেন, গর্ভপাত মোটেও ভালো কিছু নয়। স্বেচ্ছায় গর্ভপাত করানোর কারণে ভবিষ্যতে সন্তান ধারণে অসুবিধা হয়। এমনকি বন্ধ্যাও হয়ে যেতে পারেন অনেক নারী। তাই স্বেচ্ছায় গর্ভপাত হতে যতটা সম্ভব দূরে থাকুন। আর একান্তই করাতে হলে অতি অবশ্যই খুব ভালো ডাক্তার ও হাসপাতালের সাহায্য নিন।

তাড়াহুড়া নয়

অনেক দম্পতিই একটি গর্ভপাতের পর আরেকটি সন্তান নিতে তাড়াহুড়ো শুরু করেন। বিশেষ করে স্বামীরা। মনে রাখবেন, স্ত্রী আরেকবার গর্ভবতী হয়ে যাওয়া মানেই সকল সমস্যার সমাধান নয়। একটি গর্ভপাতে নারীর শরীরের যে ক্ষতি হয়, সেটা পূরণ হবার সময় দিন। এবং পরবর্তীতে কখন সন্তানের জন্য চেষ্টা করবেন, সেটি অবশ্যই ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করে ঠিক করুন। প্রতিটি ধাপে ডাক্তারের পরামর্শ শোনা খুবই জরুরী।

গর্ভপাতের চাইতে সতর্ক থাকা ভালো

একটি গভপাত হতে পারে আজীবনের কান্না। তাই স্বামী হিসাবে আপনি বিশেষ সতর্ক থাকুন যেন গর্ভপাত করার পরিস্থিতিই তৈরি না হয়। একটি দুর্ঘটনার চাইতে সতর্ক থাকা ভালো। স্ত্রী গর্ভবতী হলে তার দিকে বিশেষ যত্ন ও কেয়ার দিন। আর যারা এখনো সন্তান চান না, তাঁরা সঠিক জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি অবলম্বন করুন।

স্ত্রীকে সময় দিন

গর্ভপাত কেবল স্ত্রীর শারীরিক ক্ষতি নয়, তার মানসিক ক্ষতিও। এই উভয় ক্ষতিই সেরা ওঠার সময় দিন। তাঁকে শারীরিক ও মানসিক বিশ্রামে রাখুন। স্ত্রী কেবল সন্তান উৎপাদন করার মেশিন নন। তাছাড়া এই গর্ভপাতে সবচাইতে বেশী ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন তিনিই। তাই তাঁকে তার মত সেরে থার সুযোগ দিন। স্বামী হিসাবে নিজের সবটুকু চেষ্টা করুন স্ত্রীকে সেরে উঠতে।

দোষারোপ করবেন না

এই কাজটি অনেক পুরুষই করেন, সেটা হচ্ছে দোষারোপ করা। মনে রাখবেন, একটি অকাল গর্ভপাতের জন্য নারী দায়ী নন। দুর্ঘটনা জীবনে ঘটতেই পারে, সেটা ভুলে সামনে এগিয়ে যেতে হবে। দোষারোপ করে বা হা হুতাশ করে স্ত্রীর কষ্ট বাড়াবেন না।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close