ইউরোপ জুড়ে

গ্রিসের না ভোট জয়ী: পদত্যাগ করেছেন অর্থমন্ত্রী

শীর্ষবিন্দু আন্তর্জাতিক নিউজ ডেস্ক: পথে নেমে নেচে গেয়ে, পতাকা উড়িয়ে হাজার হাজার মানুষের উচ্ছ্বাস প্রকাশের এমন দৃশ্য নিকট অতীতে অ্যাথেন্স খুব কমই দেখেছে। গণভোটে বিজয়ের পর ইউরো জোনের সঙ্গে গ্রিস সরকারের আলোচনায় গতি আনার লক্ষ্যে পদত্যাগ করেছেন দেশটির অর্থমন্ত্রী ইয়ানিস ভারুফাসিস।

সোমবার এক বিবৃতিতে অর্থমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা জানিয়েছেন তিনি। বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, ইউরোগোষ্ঠীর কিছু অংশগ্রহণকারীকে এবং অন্যান্য সহযোগীদের নিশ্চিত করছি, তাদের বৈঠকে আমি উপস্থিত থাকছি না। ইউরো জোনের সঙ্গে একটি চুক্তিতে পৌঁছানোর ক্ষেত্র প্রস্তুতে এটি সহায়ক হবে বলে মনে করছেন প্রধানমন্ত্রী (অ্যালেক্সিস সিপ্রাস)।

সেন্ট্রাল স্কয়ারে উড়ন্ত পতাকার ঢেউ, মাতোয়ারা গ্রিকদের উল্লাস, আতশবাজির শব্দ দাতাদের কানে না পৌঁছুলেও তাদের শর্তে না বলে দেওয়ার সাহস দেখিয়েই সঙ্কট থেকে উত্তরণের আলো খুঁজছে গ্রিসবাসী। রোববার সকাল থেকে সন্ধ্যা অবধি এ গণভোটে ৬১ শতাংশের রায় গেছে না এর পক্ষে। অর্থাৎ দাতাদের শর্ত মেনে ঋণ সহায়তা না নেওয়ার পক্ষেই তারা। তেইশ বছর বয়সী নিকোস তারাসিস যেমন বললেন, এই রায় গ্রিসবাসীর ইচ্ছার বহিঃপ্রকাশ। এখন বাকিটা ইউরোপীয়দের বিষয়; তারা এই গণরায়কে সম্মান দেখিয়ে সহায়তার হাত বাড়ায় কি না সেটি তাদের উপরই নির্ভর করছে।

সাতচল্লিশ বছর বয়সী শিক্ষক একটু ভিন্নভাবেই তার অভিব্যক্তি প্রকাশ করলেন। বললেন, এই রায়ের অর্থ- সব ধরনের চাপের পরও আমরা ভীত নই। আমরা স্বতন্ত্র ও স্বাধীনভাবে ইউরোপে থাকতে চাই। বেশিরভাগ নাগরিকের এমন রায়কে সাহসী পদক্ষেপ হিসেবেই দেখছেন প্রধানমন্ত্রী অ্যালেক্সিস সিপ্রাসও।

টেলিভিশনে জাতির উদ্দেশে দেওয়া এক ভাষণে তিনি বললেন, জনগণ যে রায় দিয়েছে তা ইউরোপের সঙ্গে বিরোধের জন্য নয়, বরং একটি উপযুক্ত সমাধান খুঁজে বের করার জন্য। টালমাটাল অর্থনীতিকে পুনরুজ্জীবিত করার প্রতিশ্রুতি দিয়ে ক্ষমতায় আসা বামপন্থী দল সিরিজার প্রধান বলেন, ইউরোপের সঙ্গে বিরোধের জন্য নয়, বরং সংকট থেকে উত্তোরণে একটি উপযুক্ত, গ্রহণযোগ্য সমাধান খুঁজে বের করার ভার আপনারা আমাকে দিয়েছেন। সঙ্কটময় মুহূর্তে এই রায়ে জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করেন তিনি।

এদিকে না এর পক্ষে এমন বিপুল রায়ে হতভম্ব ইউরোপীয় শীর্ষ নেতারা মঙ্গলবার পরবর্তী পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনায় বৈঠক ডেকেছেন। ক্ষমতাসীন বামপন্থি সিরিজা পার্টির নেতারা আর্থিক পুনরুদ্ধারে দাতাদের দেওয়া শর্তগুলো মর্যাদাহানিকর বলে আসছিলেন। তারা বলছিলেন, গণভোটে ‘না’ জয়ী হলে দাতাদের সঙ্গে দ্রুত নতুন চুক্তিতে যাওয়ার সুযোগ সৃষ্টি হবে।

তবে ‘না’ ভোটের বিজয় গ্রিক ব্যাংকগুলোর তহবিল বন্ধ হয়ে যেতে পারে এবং তা গ্রিসকে একক মুদ্রা ইউরো থেকে বের হয়ে যাওয়ার পথে নিয়ে যাবে বলে সতর্ক করেছেন আন্তর্জাতিক দাতারা। গণভোটের পর তাই সাফ বক্তব্যও এলো- এমন রায়ে গ্রিসের সঙ্গে আলোচনা শুরুর কোনো সম্ভাবনা দেখছেন না তারা। যদিও এ সপ্তাহেই নিজেদের মধ্যে আলোচনায় বসার চিন্তা ভাবনা করছেন ইউরোপের অর্থমন্ত্রীরা।

২০১০ সাল থেকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ও আইএমএফ থেকে দুটি বেইল আউটে প্রায় ২৪০ বিলিয়ন ইউরো নেয় গ্রিস। এই অর্থে চলতে থাকে দেশটি, যদিও তার জন্য নাগরিকদের অনেক ভোগান্তি পোহাতে হয়। এ সময়ে পেনশন, বেতন ও সরকারি সেবায় কাটছাঁট হয় গ্রিসে। নতুন করে সহায়তার জন্য (বেইল আউট) গ্রিসকে কর বাড়ানোর পাশাপাশি জনকল্যাণমূলক ব্যয় কমানোসহ কঠিন আর্থিক পুনর্গঠনের শর্ত দেয় ইউরোজোন। ভারুফাসিসের পদত্যাগে ইউরো জোনের সঙ্গে এথেন্সের কোনো সম্ভাব্য চুক্তির ক্ষেত্রে বড় ধরনের বাধা অপসারিত হল বলে মনে করছেন পর্যবেক্ষকরা।

স্বঘোষিত ব্যতিক্রমী মার্কসিস্ট অর্থনীতিবিদ ভারুফাসিস তার অপ্রচলিত ধরনের কঠোর বক্তব্য-বিবৃতির মাধ্যমে ইউরো জোনের অংশীদারদের বিরাগভাজন হয়েছেন। গণভোটে ‘না’ ভোটের পক্ষে ব্যাপক প্রচারণা চালানো ভারুফাসিস গ্রিসের ঋণদাতাদের সন্ত্রাসী বলে অভিহিত করেছিলেন।

ঋণ দাতাদের শর্ত প্রত্যাখ্যানের সিদ্ধান্তে গণভোটে ব্যাপক সমর্থন পাওয়ার পর কয়েকদিনের মধ্যেই ইউরো জোনের সঙ্গে ভালো একটি চুক্তি করতে পারবেন বলে গ্রিকদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তার হঠাৎ পদত্যাগে ধারণা পাওয়া যাচ্ছে, ইউরোপীয় নেতাদের সঙ্গে শেষ মুহূর্তে একটি সমঝোতায় আসার চেষ্টায় বামপন্থী প্রধানমন্ত্রী সিপ্রাস দৃঢ়প্রতিজ্ঞ হয়ে আছেন।

গ্রিস সরকারের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, পরবর্তী অর্থমন্ত্রী হওয়ার দৌঁড়ে আন্তর্জাতিক দাতাদের সঙ্গে গ্রিসের ঋণ আলোচনায় নেতৃত্ব দেওয়া ইউক্লিড সাকালোতস এগিয়ে আছেন। এপ্রিলে দাতাদের সঙ্গে আলোচনা থেকে ভারুফাসিস সরে দাঁড়ালে নম্র স্বভাবের অর্থনীতিবিদ ও অধ্যাপক সাকালোতস ঋণদাতাদের সঙ্গে আলোচনায় প্রধান ভূমিকা পালন করেন। সকাল ১০টা থেকে শুরু হওয়া রাজনৈতিক নেতাদের একটি বৈঠকের পর গ্রিসের পরবর্তী অর্থমন্ত্রীর নাম ঘোষণা করা হবে ।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close