অন্য পত্রিকা থেকে

গাফফার চৌধুরী শেখ রেহানাকে জড়িয়ে ধরার অপরাধে বেগম মজিব ও শেখ কামাল জুতা দিয়ে পিটে তওবা পড়াইয়াছিল

নিউজ ডেস্ক: বঙ্গবন্ধুর ফোন পেয়ে ধানমন্ডির ৩২নং বাড়িতে ছুটে যাই। গিয়ে দেখি বেগম মুজিব ও শেখ কামাল জুতা দিয়ে আবদুল গাফফার চৌধুরীকে বেধড়ক পেটাচ্ছিলেন।

কথা গুলি লিখেছেন:-

(চরম পত্র ও অস্ত্রহীন এক বীর “ এম আর আক্তার মুকুল”. ‘স্বাধীনতা – মুক্তিযুদ্ধ – স্বাধীনবাংলা বেতারকেন্দ্র’ একই সুতায় গাথা।স্বাধীনতা যুদ্ধ যারা দেখেছেন,তাদের পক্ষে এম আর আখতার মুকুলের অবদানের কথা ভুলে যাওয়া কোন ভাবে ই সহজ নয়। ‘স্বাধীনবাংলা বেতারকেন্দ্র’ এর রঙ্গ ব্যাঙ্গাত্মক প্রচার “চরমপত্র” বাঙ্গালী মনোবল চাঙ্গা করেছিলেন এই যুবকটি)

পেছনে শেখ মুজিব দাঁড়িয়ে ছিলেন।

জানতে চাইলাম, শেখ কামাল তাকে এতো পেটাচ্ছে কেন? সে তো মারা যাবে! বঙ্গবন্ধু বললেন, বদমাশটা রেহানাকে একা পেয়ে জড়িয়ে ধরেছে…………..। পরে আবদুল গাফফার দীর্ঘ সময় বঙ্গবন্ধু ও বেগম মুজিবের পা ধরে পড়ে থাকে।

আমি সুপারিশ করায় বঙ্গবন্ধু তাকে নিয়ে চলে যেতে বলে।

সেদিন সে মদপ্য ছিল বলে বঙ্গবন্ধু তাকে ক্ষমা করে।

এর কিছুদিন পর গাফফার লন্ডন চলে যান এবং বঙ্গবন্ধুর জীবদ্বশায় আর দেশে ফেরেননি।

Tags

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট করেছে সাইন সফট লিমিটেড
Close